শনিবার, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রবাসী আয়ে দুশ্চিন্তা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :রেমিট্যান্সআন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমায় সরকারের পাশাপাশি দেশের ব্যবসায়ী মহল ব্যাপক খুশি হলেও ক্ষতির মুখে পড়েছে কয়েক লাখ প্রবাসী শ্রমিকের পরিবার। বিশেষ করে প্রবাসী সন্তানের আয়ের ওপর যে সব পরিবার নির্ভরশীল সেই সব পরিবারে দেখা দিয়েছে চরম দুশ্চিন্তা। কারণ, জ্বালানি তেলনির্ভর দেশগুলোতে কর্মরত প্রবাসী শ্রমিকদের অনেকের বেতন কমে গেছে। অনেকের ওভার টাইম বাতিল হয়েছে। এর ফলে প্রবাসী শ্রমিকদের পাঠানো টাকার পরিমাণও কমে গেছে।

092bc0755386050a8d6642cc0e79a368-575f62f5997e2
বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তৈরি করা প্রতিবেদন অনুযায়ী,এক বছরের ব্যবধানে প্রবাসী আয় কমেছে ৪২ কোটি ২৮ লাখ ৯০ হাজার ডলার। আরও খারাপ খবর হলো- সম্প্রতি সৌদি আরবে কর্মরত প্রবাসীদের মোট আয়ের ওপর ৬ শতাংশ কর আরোপের প্রস্তাব করেছে দেশটির সরকার।নতুন করারোপের এ প্রস্তাবে রীতিমতো মাথায় হাত দেওয়ার মতো অবস্থা হয়েছে অভিবাসী শ্রমিকদের। সৌদি গেজেটের খবর অনুযায়ী,গত বুধবার দেশটির কর মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব দিয়েছে।

অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৬ এর তথ্য অনুযায়ী, ২০০৬ সালে সৌদি আরবে বাংলাদেশি শ্রমিকের সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৯ হাজার ৫১৩ জন। বর্তমানে ওই দেশে বাংলাদেশের ৫৮ হাজার ২৭০ জন প্রবাসী শ্রমিক কাজ করছেন। আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমার কারণে সৌদি আরবে শ্রমের বাজার সংকুচিত হয়ে প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। তারপরও সৌদি আরবে প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে বাংলাদেশিই বেশি। আরও ৫ লাখ কর্মী বাংলাদেশ থেকে নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে দেশটি। কিন্তু আয়ের ওপর কর চাপানো হলে দেশটিতে যেতে আগ্রহ হারাবেন শ্রমিকরা। বাংলাদেশ ছাড়াও প্রতিবেশী ভারত, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানেরও অনেক কর্মী ওই দেশে কাজ করেন। নতুন করারোপের এই প্রস্তাবে উদ্বিগ্ন শ্রমিকরা তাদের কঠোর শ্রমে অর্জিত আয়ের ওপর করারোপ না করতে দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
এর বাইরে ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে ডলারের দাম বেড়েছে। ওই সব দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিদের স্থানীয় মুদ্রাকে ডলারে রূপান্তর করতে আগের চেয়ে বেশি স্থানীয় মুদ্রা খরচ করতে হচ্ছে। যার প্রভাব পড়ছে প্রবাসী আয়ে। অর্থনৈতিক সমীক্ষা- ২০১৬ এর তথ্য অনুযায়ী, ২০০৬-০৭ অর্থ বছরের তুলনায় ২০১৫-১৬ অর্থবছরে কাতার, কুয়েত ও যুক্তরাজ্য থেকে রেমিট্যান্স প্রবাহ হ্রাস পেয়েছে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিগত কয়েক মাস ধরেই রেমিট্যান্স প্রবাহ কমছে। ২০১৪ সালে রেমিট্যান্স প্রবাহে ৭ দশমিক ৮৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হলেও ২০১৫ সালে তা কমে দাঁড়িয়েছে মাত্র ২ দশমিক ৬৮ শতাংশে। ২০১৬ সালে এই প্রবৃদ্ধি আরও কমে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন,বিদেশ যাওয়ার মতো যাদের টাকা থাকে তারা একবারে গরিব নয়, এরা সাধারণত দারিদ্র্যসীমার একটু ওপরের মানুষ। এখন যদি প্রবাসীদের আয় কমে যায় এবং যে টাকা খরচ করেছে তা যদি ফেরত না পায় তাহলে ওই শ্রেণির মানুষজন দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে যাবেন।

জানা গেছে, চলতি অর্থবছরে সরকার প্রবাসী আয়ে ১০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি আশা করেছিল। তবে প্রবাসী আয়ের নিম্নগতির কারণে পরে তা সংশোধন করে ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ঠিক করা হয়। কিন্তু গেল ১১ মাসের প্রবাসী আয়ে কোনও প্রবৃদ্ধি হয়নি।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে অব্যাহতভাবে জ্বালানি তেলের মূল্য হ্রাস এর অন্যতম কারণ। জ্বালানি তেলের ওপর নির্ভরশীল দেশগুলোতে এখন আয় কমে গেছে। যার ফলে সেখানকার শ্রমিকদেরও আয় কমেছে। এছাড়া বেশ কিছুদিন ধরে ডলারের বিপরীতে টাকা শক্তিশালী হওয়ায় প্রবাসীরা এখন আর আগের মতো অর্থ দেশে পাঠাতে আগ্রহী হচ্ছেন না।

এ প্রসঙ্গে অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমা ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে জনশক্তি রফতানি কমে যাওয়ার কারণে প্রবাসী আয় কমেছে। এছাড়া, বেশ কিছুদিন ধরে ডলারের বিপরীতে টাকা শক্তিশালী হওয়ায় প্রবাসীরা এখন আর আগের মতো অর্থ দেশে পাঠাতে আগ্রহী হচ্ছেন না। তবে চলতি মাসে রোজা ও সামনে ঈদের কারণে প্রবাসীরা হয়তো বেশি অর্থ পাঠাবেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে মে পর্যন্ত এই ১১ মাসে প্রবাসীরা দেশে পাঠিয়েছেন ১ হাজার ৩৪৫ কোটি ৪৬ লাখ ডলারের সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। যা গেল অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৩ দশমিক ০৪ শতাংশ কম। গেল অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে প্রবাসীরা পাঠিয়েছিলেন ১ হাজার ৩৮৭ কোটি ৭৫ লাখ ডলার।

এ প্রসঙ্গে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) অতিরিক্ত গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য কমে যাওয়া ও সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে জনশক্তি রফতানি কমে যাওয়ার কারণে প্রবাসী আয় অব্যাহতভাবে কমছে। এতে করে প্রবাসী আয়ের ওপর নির্ভরশীল পরিবারগুলো ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। তিনি বলেন, জ্বালানি তেলের ওপর নির্ভরশীল দেশগুলোতে এখন আয় কমে গেছে। যার ফলে সেখানকার শ্রমিকদেরও আয় কমেছে।
প্রবাসী আয়ের এই ধারা অব্যাহত থাকলে অর্থবছর শেষে রেমিট্যান্স উল্লেখযোগ্য হারে কমবে বলে মনে করেন বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টার প্রেস নেটওয়ার্কের সিনিয়র গবেষক আনোয়ারুল হক। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, প্রবাসী শ্রমিকদের একটা বড় অংশ রয়েছে জ্বালানি তেল নির্ভর দেশগুলোতে। এই দেশগুলোতে ইতিপূর্বে শ্রমিকরা নির্ধারিত কাজের পাশাপাশি ওভারটাইম বা অতিরিক্ত কাজ করতো। কিন্তু সম্প্রতি এই দেশগুলো নিজেরাই পড়েছে সঙ্কটে। যার ফলে ওই সব দেশে অবস্থানকারী শ্রমিকদেরও আয় কমেছে।

গত ২ জুন ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও প্রবাসী আয় নিয়ে হতাশার কথা ব্যক্ত করেন। তবে অচিরেই প্রবাসী আয়ে গতিশীলতা আসবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন ১২০ কোটি ৫৬ লাখ ডলার।গত এপ্রিল মাসে রেমিট্যান্স এসেছিল ১১৯ কোটি ৭৪ লাখ ডলার। গত মার্চে এসেছিল ১২৮ কোটি ৫৫ লাখ ডলার। ফেব্রুয়ারি মাসে এসেছিল ১১৩ কোটি ৩১ লাখ ডলার। জানুয়ারিতে এসেছিল ১১৫ কোটি ২০ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ১৩৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স আসে। আগস্টে আসে ১১৯ কোটি ৫০ লাখ ডলার। সেপ্টেম্বরে আসে ১৩৫ কোটি ডলার। অক্টোবর, নভেম্বর ও ডিসেম্বরে যথাক্রমে ১১০ কোটি, ১১৪ কোটি ২৫ লাখ এবং ১৩১ কোটি ২৬ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আসে।

অর্থনৈতিক সমীক্ষা- ২০১৬ এর তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিভিন্ন দেশে ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৮৮১ জন প্রবাসী বাংলাদেশি কাজ করছেন। এর মধ্যে ৭০ শতাংশই মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে কাজ করেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়‌কে ১৩ কি‌লো‌মিটার অংশে যানজট-ধীরগ‌তি‌

কামার পল্লীতে ঠনা ঠন শব্দে ব্যস্ত সময় পার করেছেন কারিগররা

বিএনপির টপ টু বটম সবাই দুর্নীতিবাজ, তারেক এর বরপুত্র : কাদের

আবারও খোলামেলা শাড়িতে রুনা খান

সুনেত্রা চাপা অভিমান নিয়ে চলে গেছেন : অঞ্জনা

কোরবানির ঝাঁজ আদা, রসুন ও পেঁয়াজে

বেড়েছে টুপি বিক্রি, তবে ভয়ে আছেন ফুটপাতের দোকানিরা

জমে উঠেছে পশুর হাট, গাবতলীতে নজর কাড়ছে বড় গরু

শিমুল-তানভীর-শিলাস্তির পর বাবুর দায় স্বীকার

খুলে দেওয়া হচ্ছে বেনজীরের রিসোর্ট

বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানের বিদায়, যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাস

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল হাসপাতাল পরিদর্শনে শেখ হাসিনা