শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চিপসের ইতিবৃত্ত

news-image

 

১৮৫৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সারাতোগা কাউন্টির একটি শহর সারাতোগা স্প্রিংয়ে মুনস লেক হাউস নামে একটি রেস্তোরাঁ ছিল। সেখানে জর্জ ক্রাম নামে এক নেটিভ আমেরিকান রাঁধুনি কাজ করতেন। এক সন্ধ্যায় ওই রেস্তোরাঁয় উপচে একজন অতিথি ফ্রেন্স ফ্রাইয়ের টুকরা (এক ধরনের আলু ভাজা) অতিরিক্ত পুরু বলে অভিযোগ করেন। বারবার পাতলা করে আনার পরও ওই অতিথির তা পছন্দ হচ্ছিল না। অবশেষে ক্রাম কিচেনে ফিরে রাগ করে আলু আরও পাতলা করে কেটে, তেলে মচমচে করে ভেজে তাতে লবণ ছিটিয়ে দিলেন। এবার অতিথির এই নতুন আইটেম খুব পছন্দ হলো। ধীরে ধীরে আরও অনুরোধ আসতে থাকল ক্রামের পটেটো চিপসের। এরপর রেস্তোরাঁটির মেন্যু কার্ডে যুক্ত হলো নতুন একটি আইটেম-সারাতোগা চিপস।

১৮৬০ সালে ক্রাম সারাতোগা লেকের কাছেই ক্রাম তার নিজের রেস্তোরাঁ চালু করেন। চিপসের আবিষ্কার নিয়ে বিতর্ক থাকলেও একটা ব্যাপারে সবাই একমত যে ক্রামই পটেটো চিপসকে জনপ্রিয় করে তোলেন। চিপস আবিষ্কারের পর ক্রাম চিপসের জন্য কোনো ধরনের পেটেন্টের আবেদন করেননি। তার চিপসের প্রচার সীমাবদ্ধ ছিল নিউইয়র্কের আশপাশেই। এই রেস্তোরাঁ ৩০ বছর চলে। এরপর ১৮৯০ সালে এটি বন্ধ করে দেন তিনি। ৯২ বছর বয়সে ১৯১৪ সালে জর্জ ক্রাম শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৯৫৪ সালে আইরিশ ব্যবসায়ী জয় স্টুড মারফি টাইটো নামে একটি কোম্পানি চালু করেন। সেখানে তিনি চিপসে সিজনিং যুক্ত করা শুরু করেন। সিজনিং হচ্ছে মজাদার স্বাদ আনার জন্য লবণ, ভেষজ বা মসলা যোগ করার প্রক্রিয়া। এই পদ্ধতিতে তখন দুটি ফ্লেভার তৈরি করা হয়- চিজ ও ওনিয়ন এবং সল্ট ও ভিনেগার। মূলত তার এই উদ্যোগেই বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসে পটেটো চিপস শিল্পে। ১৯৬৫ সালে প্রথম বারবিকিউ চিকেন ফ্লেভারের চিপস উৎপাদন করে লেস কোম্পানি। এভাবেই পটেটো চিপসশিল্প এগিয়ে যাচ্ছে।