বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

স্বামীর প্রাণ নিল স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের শাবল

news-image

বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ায় জামাল উদ্দিন খাজাকে লোহার শাবল দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাতে খুন করে তার স্ত্রীর প্রেমিক। এদিকে শনিবার সকালে শহরের বৃন্দাবনপাড়া পূর্বপাড়ায় খাজার নিজঘর থেকে লাশ উদ্ধার করার ১২ ঘণ্টার মধ্যে খুনের রহস্য উদঘাটন ও আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত পরকীয়া প্রেমিক মোজাফফর হোসেন (৬০) জেলার শাজাহানপুর উপজেলার রানীরহাট বয়রাদিঘী এলাকার মৃত অছিমুদ্দিনের ছেলে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত লোহার শাবলটি উদ্ধার করে পুলিশ। শনিবার রাত ১১টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইহান ওলিউল্লাহ।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি জানিয়েছে নিহত জামাল উদ্দিন খাজার স্ত্রী মোসা. জেসমিন এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল প্রায় ২ বছর আগে মোজাফফরের। একপর্যায়ে তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে নিহতের স্ত্রী এতে রাজি হন না। পরবর্তীতে জেসমিন এই সম্পর্ক থেকে বের হয়ে আসতে চেষ্টা করে কিন্তু আসামি তাকে বারবার বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে। এরপর গত শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) নিহতের স্ত্রী সন্তান বাড়িতে না থাকায় রাত পৌনে ৯টার সময় সুপরিকল্পিতভাবে খাজাকে লোহার শাবল দিয়ে মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করে খুন করে। খুন করার পর নিহতের শয়ন কক্ষের মেঝেতে লাশ কম্বল দিয়ে ঢেকে রাখে। তারপর শয়নকক্ষের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দিয়ে দেয়াল ডিঙিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টায় নিহতের ছেলে জেমস রিমন তার নানাবাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে এসে বাবাকে ডাকাডাকি করলে ভেতর থেকে কোনো শব্দ পায় না। এরপর স্থানীয় লোকজনসহ দরজা ভেঙে ঢুকে ঘরের ভেতর বাবার রক্তাক্ত লাশ দেখে পুলিশে জানায়। পরে সকাল ১০টায় নিহতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

শনিবার রাত ১২টার দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, নিহতের লাশ উদ্ধারের পর গোয়েন্দা পুলিশ বিভিন্ন সূত্র ধরে অভিযান পরিচালনা করে সদর ও শাজাহানপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে। অভিযানে মোজাফফরকে গ্রেপ্তার করা হয়। খুনের ঘটনাটি পরকীয়ার জেরে হয়েছে, যা প্রাথমিকভাবে আসামি স্বীকার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

স্বামীর প্রাণ নিল স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের শাবল
বগুড়া প্রতিনিধি | ২৭ নভেম্বর, ২০২২ ১২:২৬
স্বামীর প্রাণ নিল স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের শাবল

বগুড়ায় জামাল উদ্দিন খাজাকে লোহার শাবল দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাতে খুন করে তার স্ত্রীর প্রেমিক। এদিকে শনিবার সকালে শহরের বৃন্দাবনপাড়া পূর্বপাড়ায় খাজার নিজঘর থেকে লাশ উদ্ধার করার ১২ ঘণ্টার মধ্যে খুনের রহস্য উদঘাটন ও আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত পরকীয়া প্রেমিক মোজাফফর হোসেন (৬০) জেলার শাজাহানপুর উপজেলার রানীরহাট বয়রাদিঘী এলাকার মৃত অছিমুদ্দিনের ছেলে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত লোহার শাবলটি উদ্ধার করে পুলিশ। শনিবার রাত ১১টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইহান ওলিউল্লাহ।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি জানিয়েছে নিহত জামাল উদ্দিন খাজার স্ত্রী মোসা. জেসমিন এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল প্রায় ২ বছর আগে মোজাফফরের। একপর্যায়ে তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে নিহতের স্ত্রী এতে রাজি হন না। পরবর্তীতে জেসমিন এই সম্পর্ক থেকে বের হয়ে আসতে চেষ্টা করে কিন্তু আসামি তাকে বারবার বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে। এরপর গত শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) নিহতের স্ত্রী সন্তান বাড়িতে না থাকায় রাত পৌনে ৯টার সময় সুপরিকল্পিতভাবে খাজাকে লোহার শাবল দিয়ে মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করে খুন করে। খুন করার পর নিহতের শয়ন কক্ষের মেঝেতে লাশ কম্বল দিয়ে ঢেকে রাখে। তারপর শয়নকক্ষের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দিয়ে দেয়াল ডিঙিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টায় নিহতের ছেলে জেমস রিমন তার নানাবাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে এসে বাবাকে ডাকাডাকি করলে ভেতর থেকে কোনো শব্দ পায় না। এরপর স্থানীয় লোকজনসহ দরজা ভেঙে ঢুকে ঘরের ভেতর বাবার রক্তাক্ত লাশ দেখে পুলিশে জানায়। পরে সকাল ১০টায় নিহতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

শনিবার রাত ১২টার দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, নিহতের লাশ উদ্ধারের পর গোয়েন্দা পুলিশ বিভিন্ন সূত্র ধরে অভিযান পরিচালনা করে সদর ও শাজাহানপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে। অভিযানে মোজাফফরকে গ্রেপ্তার করা হয়। খুনের ঘটনাটি পরকীয়ার জেরে হয়েছে, যা প্রাথমিকভাবে আসামি স্বীকার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।