রবিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তিন নারী সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তার জামিন

jaminদশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে লাঙল প্রতীকে জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে সাজা পাওয়া সরাইলের সেই তিন নারী সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা জামিন পেয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার জেলা দায়রা জজ আদালতে জামিন মঞ্জুর হওয়ার পর শুক্রবার জেল থেকে মুক্তি পান।

আসামি পক্ষের আইনজীবী সৈয়দ তানভির হোসেন জানান, জেলা দায়রা জজ মো.কাউছার মিয়ার আদালতে ওই তিন কর্মকর্তার পক্ষে আপিল করে অন্তর্বর্তী জামিন প্রার্থনা করা হয়। আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

গত ৫ জানুয়ারি দুপুর সোয়া একটার দিকে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণকালে নির্বাচন সংক্রান্ত বিশেষ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট মো. কামাল হোসেন শিকদার উপজেলা সদরের উচালিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে লাঙল প্রতীকে ভোট দেয়ার সময় হাতেনাতে তিন নারী সহকারি প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে আটক করেন। তারা হলেন- কোহিনুর বেগম, জোবেদা বেগম ও নাছিমা বেগম।

পরে তাদের দেয়া লিখিত বক্তব্যের ভিত্তিতে শিউলি আজাদ ও আশরাফ উদ্দিনকে ৫ বছর করে এবং তিন নারী সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে তিন বছর করে কারাদণ্ডের আদেশ দেন। এর মধ্যে শিউলি আজাদ ও আশরাফ উদ্দিনকে ঘটনাস্থলে না পাওয়ায় দণ্ডদেয়ার সময় তাদের বক্তব্য নেয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, শিউলি আজাদ দশম জাতীয় নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছিলেন। পরে দলের নির্দেশে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে লাঙল প্রতীকের প্রার্থী জিয়াউল হক মৃধাকে সমর্থন দেন। আশরাফ উদ্দিন সরাইল উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক। কোহিনুর ও জোবেদা বেগম সরাইল উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের পরিদর্শিকা। আর নাছিমা বেগম অরুয়াইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারি শিক্ষক।