মঙ্গলবার, ৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

হাইকোর্ট সেই এরশাদ আলীকে পুলিশে দিল

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : এবি ব্যাংক থেকে ভুয়া ওয়ার্ক অর্ডারের মাধ্যমে ১৭৬ কোটি ১৮ লাখ টাকা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে করা মামলায় রিকশাচালক থেকে হাজার কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়া এরশাদ আলী আগাম জামিন নিতে গতকাল মঙ্গলবার হাইকোর্টে হাজির হন। আদালত জামিন না দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেন। বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজহারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এরশাদ আলীকে পরে শাহবাগ থানায় নিয়ে যাওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। আদালতে দুর্নীতি দমন করপোরেশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। আর আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শেখ মো. জাকির হোসেন।

এরশাদ ব্রাদার্স করপোরেশনের মালিক এরশাদ আলীর বিরুদ্ধে ২০২০ সালের ৮ জুন মামলা করে দুদক। এরশাদ গ্রুপের স্বত্বাধিকারী মো. এরশাদ আলীসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়। এজাহারে বলা হয়, প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অপরাধজনক বিশ্বাস ভঙ্গ করে এরশাদ গ্রুপ স্বেচ্ছায়-স্বজ্ঞানে জাল ওয়ার্ক অর্ডার প্রস্তুত করে। তারা সাতটি ব্যাংক গ্যারান্টির মাধ্যমে ১৭৬ কোটি ১৮ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে। এজাহার অনুযায়ী, এ ঋণের ক্ষেত্রে শাখা ব্যবস্থাপকসহ প্রধান কার্যালয়ের সঠিক তদারকি ছিল না। জালিয়াতির অভিযোগ ওঠায় এরশাদ গ্রুপের চেয়ারম্যান এরশাদ আলী ও

তার ভাই ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুল ইসলামের অবৈধ সম্পদেরও অনুসন্ধান করছে দুদক। রাজশাহী মহানগরীর রিকশাচালক থেকে রিকশাচালকের সর্দার হওয়া এরশাদ আলী অবৈধভাবে পদ্মার বালু উত্তোলন, বিভিন্ন প্রকল্পে পাথর সরবরাহসহ বিভিন্ন উপায়ে বিপুল অর্থবিত্তের মালিক বনে যান বলে অভিযোগ রয়েছে।

 

এ জাতীয় আরও খবর