রবিবার, ২রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভুল করলে অনুশোচনা করতেও ভোলে না ইঁদুররা

mice(আমাদেরব্রাহ্মণবাড়িয়া.কম) ভুল করলে অনুশোচনা করতেও ভোলে না ইঁদুররা। বহুযুগ ধরেই মানুষের ধারণা ছিল অনুভূতি মামলায় তারাই সেরা। যদিও একের পর এক গবেষণায় উঠে এসেছে অনুভূতি প্রকাশে অনান্য প্রাণীরা তাদের নিজের মত করে কোনও অংশেই কম যায় না। মিননেসোতা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের গবেষণায় উঠে এসেছে ইঁদুররা ভুল করলে সেই ভুল নিয়ে অনুশোচনায় করে তারা।

মিননেসোতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নায়ুবিজ্ঞানের অধ্যাপকরা “রেস্টুরেন্ট রো“ নাম দিয়ে ইঁদুরদের উপর এক অভিনব পরীক্ষা চালিয়েছেন। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষাধীন ইঁদুরদের বিভিন্ন ধরণের খাবারের মধ্যে থেকে পছন্দমত খাবার খুঁজে নেওয়ার সুযোগ দেন।

এই ঘটনায় অভিনব ফলাফল পান তাঁরা। গবেষণারত এক বিজ্ঞানী জানিয়েছেন “ ব্যাপারটা অনেকটা রেস্তোরাঁর বাইরে লম্বা লাইনের মত। যেখানে চিনা রেস্তোরাঁ প্রথম পছন্দ হলেও সেই রেস্তোরাঁর বাইরে লম্বা লাইন দেখে একই রাস্তায় ভারতীয় রেস্তোরাঁর দিকে রওনা দেন অনেকে। সেই রকমই পছন্দের খাবারের সামনে অন্যদের ভিড় দেখে তুলনামূলক কম পছন্দের খাবার বেছে নেয় পরীক্ষাধীন ইঁদুররা।“

এর মধ্যেই কিছু ইঁদুর এমন কিছু খাবার বেছে নেয় যা গ্রহণ করার পর তারা এমন আচরণ করতে থাকে যা দেখে বোঝা যায় তাদের সেই সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল না। এমনকি মানুষের মত একই ভাবে নিজের ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে শব্দহীন অনুশোচনা করতেও দেখা যায় তাদের।

বেতন বৃদ্ধির দাবিতে ধর্মঘট করার `অপরাধে` মেট্রপলিটন পরিবহন কর্তৃপক্ষ ৬০জন ধর্মঘটিকে ইতিমধ্যে কাজ থেকে ছাঁটাইয়ের নির্দেশ দিয়েছে। ধর্মঘটে সামিল হলে জরিমানা দিতে হবে এই হুমকিও দেওয়া হয়েছে। এই ধর্মঘটকে বেআইনি আখ্যাও দেওয়া হয়েছে সাও পাওলোর একটি আদালতের পক্ষ থেকে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও ভাবেই দমন করা যায়নি ধর্মঘটিদের আন্দোলন।

সাধারণ মানুষের উপর পাহাড় প্রমাণ করের বোঝা বৃদ্ধি করে বিশ্বকাপের জন্য কোটি কোটি টাকা ব্যয় করার বিরোধিতা করেছিলেন সাবওয়ে শ্রমিকরা। তাঁদের দাবি ছিল বিশ্বকাপের জন্য অর্থ ব্যয় না করে বাড়ানো হোক তাঁদের মজুরী। প্রাথমিকভাবে ১৬.৫% বেতন বৃদ্ধির দাবি থেকে সরে এসে সাবওয়ে শ্রমিকরা অন্তত ১২.২% বেতন বৃদ্ধির দাবি তোলেন। কিন্তু সরকার ৮.৭% বেতন বৃদ্ধিতে সম্মতি জানিয়েছে। তারই প্রতিবাদে এখনও ধর্মঘট চালিয়ে যাচ্ছেন ব্রাজিলের সাবওয়ে শ্রমিকরা।

সাবওয়েগুলি আংশিকভাবে খোলা থাকলেও বর্তমানে স্টেশন গুলিতে কোনও ট্রেনই ঢুকছে না।