মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজয়নগর উপজেলা নির্বাচন একতরফা নির্বাচন, ভোট কারচুপি ও কেন্দ্র দখল

ডেস্ক: চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীরা মাঠ ছেড়ে দেওয়ায় শেষ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে একতরফা নির্বাচন হয়েছে৷ গতকাল সোমবার ষষ্ঠ দফার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এখানে ভোট গ্রহণ করা হয়৷ভোট শুরুর সাড়ে চার ঘণ্টা পর বিএনপি-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমের কাছে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন৷ এ সময় তিনি আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী তানবীর ভূঞার বিরুদ্ধে তাঁর পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া, কর্মীদের মারধর করা, ভোটকেন্দ্র দখল, ভোট কারচুপি এবং জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ আনেন৷


বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী রফিকুল ইসলামও প্রায় একই অভিযোগ এনেছেন৷ তবে তিনি নির্বাচন বর্জন না করে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকলেও ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে ৩০টি কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, ‘আমি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী লড়াই চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছি৷ কিন্তু আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে পুলিশসহ সরকারের বিভিন্ন বাহিনী আতঙ্ক ছড়িয়ে আমার কর্মীদের মাঠ ছেড়ে যেতে বাধ্য করেছে৷’ এদিকে বেলা তিনটায় জাতীয় পার্টি-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ইমদাদুল হকও নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন৷


আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী তানবীর ভূঞা তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে বলেন, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে৷ উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিয়েছেন ভোটাররা৷


তবে উপজেলার ৫৮টি ভোটকেন্দ্রের ১৫টিতে সরেজমিনে ভোটার উপস্থিতি দেখা যায়নি৷ সকাল নয়টায় বুধন্তী ইউনিয়নের বুধন্তী আহ্লাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সাত নম্বর বুথে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে তখন পর্যন্ত একটি ভোটও পড়েনি৷ কেন্দ্রটির মোট দুই হাজার ৪৬০টি ভোটের মধ্যে তখন পর্যন্ত মাত্র ৫০টি ভোট পড়ে৷


২০০৯ সালের ৩ আগস্ট তিতাস নদের পূর্ব পারের ১০টি ইউনিয়ন নিয়ে বিজয়নগর উপজেলা গঠিত হয়৷ এরপর উপজেলায় এটিই প্রথম নির্বাচন৷ নির্বাচনের এক দিন আগেও ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ দেখা যায়৷ অথচ ভোটের দিন দেখা গেল ভিন্ন চিত্র৷


এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সভাপতি হারুন মুন্সি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পক্ষে আগের রাতে প্রচার করা হয়েছে, ভোট দিয়ে কোনো লাভ নেই৷ ফলাফল নির্ধারিত হয়ে আছে৷ এখানে সরকারি দলের বিজয় অনিবার্য৷’ তিনি দাবি করেন, এমন প্রচারণার কারণে তাঁদের কর্মী-সমর্থকেরা বিভ্রান্ত হয়ে মাঠ ছেড়ে দিয়েছেন৷ ভোট শুরু হওয়ার পর এজেন্টদের বের করে দিয়ে কেন্দ্র দখলের মাধ্যমে সরকারি দল একতরফা নির্বাচন করেছে৷


চর ইসলামপুর, বড় পুকুরপাড়, গোয়াখোলা, ফুলবাড়িয়া, সেজামোড়া, কামালমোড়া, সিঙ্গারবিলসহ ১৫টি কেন্দ্রে বহিরাগতরা আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে কেন্দ্র দখল করে ব্যাপক হারে জাল ভোট দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ এর মধ্যে আখাউড়া পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফার নেতৃত্বে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের একদল কর্মী মোটরসাইকেলে সিঙ্গারবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে বিরোধীদের প্রতিরোধের মুখে পড়েন৷


জানতে চাইলে আখাউড়া পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা বলেন, পাশের উপজেলার নির্বাচন বলে নিছক কৌতূহলবশত তাঁরা দেখতে গিয়েছিলেন৷ এলাকাবাসী তাঁদের ভুল বুঝেছে৷


বেলা ১১টার দিকে পাহাড়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা েগছে, বিএনপি-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুল ইসলামের ছয়জন পোলিং এজেন্টের সবাই কেন্দ্র ছেড়ে বের হয়ে এসেছেন৷ ওই এজেন্টদের একজন সোহেল রানা বলেন, এক মহিলা জাল ভোট দিতে এলে তাঁরা বাধা দেন৷ এ নিয়ে আওয়ামী লীগের পোলিং এজেন্টদের সঙ্গে তাঁদের কথা-কাটাকাটি হয়৷ একপর্যায়ে তাঁদের ওপর আক্রমণ করা হয়৷ সেখানে উপস্থিত বিজিবির টহল দলও তাঁদের ওপর চড়াও হয়৷

এ জাতীয় আরও খবর

এ সফর ছিল সংক্ষিপ্ত কিন্তু অত্যন্ত ফলপ্রসূ : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিতে আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়ার বিদায়

স্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘদিন যোগাযোগ বন্ধ মেসির?

ইতিহাস গড়তে একসঙ্গে রজনীকান্ত-সালমান

ঈদযাত্রায় সড়কে ২৬২ জনের মৃত্যু

রাসেলস ভাইপার নিয়ে যা বলছেন বেদেরা

সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

কোপা মিশনে সকালে মাঠে নামছে ব্রাজিল, দেখবেন যেভাবে

ভোরে আফগানদের মুখোমুখি বাংলাদেশ, সেমিতে খেলতে যা করতে হবে

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি অগ্রহণযোগ্য : নোয়াব

গাজীপুরের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাময়িক বরখাস্ত

বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ১৩ কোটি ডলার রেমিট্যান্সের ৫ কোটিই ভারতের