মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চার ভুবনের এক মাহফুজ

52f29b629bf26-1শনিবার৷ রাত আটটা ৩৭ মিনিট৷ বনানী সি ব্লকের ১৭ নম্বর সড়ক৷ নকশীকাঁথা৷ এই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার মাহফুজ আহমেদ৷ নিজ কক্ষে বসে টিভি নাটক দেখছেন৷ ধারাবাহিকটির নাম আমাদের ছোট নদী চলে বাঁকে বাঁকে৷ প্রযোজক ও পরিচালক মাহফুজ আহমেদ৷ প্রচারিত হচ্ছে চ্যানেল আইয়ে৷ শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর বললেন, ‘প্লিজ, একটু বসুন৷ নাটকটি এখনই শেষ হবে৷’

নাটক শেষ হতেই টিভি বন্ধ করে মাহফুজ বললেন, ‘আমি নিজে যে নাটক তৈরি করি, প্রচারের সময় তাতে কোনো ত্রুটি থাকছে কি না, সেিদকেও খেয়াল রাখতে হয়৷’

মাহফুজের মুঠোফোন বেজে ওঠে৷ আলাপ শুনে বোঝা গেল অন্য প্রান্তে আছেন প্রকাশক, প্রযোজক এবং পরিচালক মাজহারুল ইসলাম৷ হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস থেকে ২৬ পর্বের একটি ধারাবাহিক তৈরি করবেন তিনি। নাম একজন মায়াবতী৷ নাম ভূমিকায় অভিনয় করবেন সুমাইয়া শিমু৷ শুটিং শুরু হবে ১ মার্চ৷ তাতে অভিনয় করবেন মাহফুজ৷ তাঁকে ১ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত সময় দিতে হবে৷

আলোচনা চূড়ান্ত হয়ে আছে অনেক আগেই৷ কিন্তু ঝামেলা তৈরি হয়েছে জিরো ডিগ্রি ছবির শুটিং নিয়ে৷ মাহফুজ আহমেদের নতুন ছবি৷ তিনি অন্যতম প্রযোজক৷ পাশাপাশি অভিনয়ও করছেন৷ ছবির অন্য দুজন অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান আর রুহি কিছুদিন দেশের বাইরে ছিলেন৷ ছবির অল্প কিছু কাজ বাকি আছে৷ তাই পরিচালক অনিমেষ আইচ চান, মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহেই তা শেষ করতে৷ 

ফোনে কথা শেষ হওয়ার পর মাহফুজ বললেন, ‘এখন আমি কোনো নাটকে অভিনয় করছি না৷ একজন মায়াবতী হুমায়ূন আহমেদের, আর আমার সঙ্গে অনেক দিন আগেই কথা হয়েছে, তাই এই কাজটা আমাকে করতেই হবে৷ জিরো ডিগ্রি ছবিতে আমার চরিত্রটি খুবই চ্যালেঞ্জিং৷ এমন একটি চরিত্র করার পর নাটকের প্রতি মায়া কমে গেছে৷ এখন চলচ্চিত্রেই নিয়মিত অভিনয় করব৷ খুব বেশি নয়, বছরে অন্তত একটা ছবি৷’

নাটকে অভিনয় না করা প্রসঙ্গে মাহফুজ বললেন, ‘গল্প পাচ্ছি না৷ স্ক্রিপ্ট বলে কিছু নেই৷ এমন কোনো চরিত্র নেই যা আমাকে আকর্ষণ করে৷ তার ওপর বাজেটস্বল্পতা৷ ভালো পরিচালকেরা টিভি থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন৷’ 

মাহফুজের অভিযোগ, ‘টিভি নাটকের এখন ক্রান্তিকাল চলছে৷’ তাঁর মতে, ‘টিভি নাটকের দর্শক এখন নেই বললেই চলে৷’

এর কারণ কী? মাহফুজ মনে করেন, ‘টিভি চ্যানেল থেকে যে সময়টা দেওয়া হয়, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ওই সময় নাটক শুরু হয় না৷ সঙ্গে আছে বিজ্ঞাপনের নির্যাতন৷ বাইরের চ্যানেলগুলোতে এসব নির্যাতন নেই৷ আমাদের নাটকগুলো দর্শককে দেখতেই দিচ্ছি না৷ তারা কীভাবে ভালো-খারাপের বিচার করবেন৷ আমাদের নাটকের মান কমেছে৷ নির্মাণশৈলী নেই৷ লোকেশনের বৈচিত্র্য নেই, দেখে মনে হবে সব নাটক বুঝি একই জায়গায় শুটিং হচ্ছে৷ চরিত্র অনুযায়ী পোশাক দিতে পারি না৷ একই পোশাক পরে একেকজন শিল্পী অনেক নাটকে অভিনয় করছেন৷ ঘুরেফিরে কয়েকটি মুখ৷ আবার বিশ্বাসযোগ্য অভিনয় নেই৷’

এখন চ্যানেল আইয়ে প্রচারিত হচ্ছে আমাদের ছোট নদী চলে বাঁকে বাঁকে আর এটিএন বাংলায় মাগো তোমার জন্য৷ দুটি ধারাবাহিকই প্রযোজনার পাশাপাশি পরিচালনাও করছেন মাহফুজ৷ 

আবার জিরো ডিগ্রির প্রসঙ্গ৷ মাহফুজ বলেন, ‘জিরো ডিগ্রি সাইকো অ্যাকশন থ্রিলার ধাঁচের ছবি৷ ছবিতে দর্শক কী চায়; আনন্দ, বিনোদন, নাটকীয়তা, দ্বন্দ্ব, সংঘাত-সবকিছুই আছে এই ছবিতে৷ এখানে দর্শক অভিনয়ের যুদ্ধ দেখবেন৷ আমি মনে করি, জয়া তাঁর অভিনয়জীবনের সেরা অভিনয় এই ছবিতে করেছেন৷ রুহি র৵াম্পের মডেল৷ কিন্তু রুহি যে কত ভালো অভিনেত্রী, এই ছবি দেখে তা দর্শক বুঝতে পারবেন৷ চরিত্রের প্রয়োজনে আমি তিন মাস দাড়ি রেখেছি৷ নিজের সমস্ত মেধা দিয়ে ভালো কিছু করার চেষ্টা করেছি৷ আর আছে অনিমেষের দুর্দান্ত পরিচালনা৷’

এর আগে ১২টি ছবিতে অভিনয় করেছেন মাহফুজ৷ কোনোটিই তেমন ব্যবসাসফল হয়নি৷ এ ব্যাপারে মাহফুজ বলেন, ‘চলচ্চিত্রে আমি পুরোপুরি ব্যর্থ, এ কথা বলব না৷ কারণ ২০০৫ সালে লাল সবুজ ছবিতে অভিনয়ের জন্য সেরা নায়ক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি৷’

মাহফুজ এখন বিজ্ঞাপনচিত্র নির্মাতা৷ বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে তাঁর ১০টি বিজ্ঞাপনচিত্র প্রচারিত হচ্ছে৷ তিনি বলেন, ‘নাটক বানিয়ে এখন আর চলা যায় না৷ বলতে পারেন, বেঁচে থাকার জন্য এই কাজ করতে হচ্ছে৷’

অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক ও বিজ্ঞাপনচিত্রের নির্মাতা৷ মাহফুজ বললেন, ‘সবকিছুর ওপর আমি একজন অভিনেতা৷’ 

এরপর? ‘চলচ্চিত্র পরিচালনা করব, এটা আমার অনেক দিনের স্বপ্ন৷ মুহম্মদ জাফর ইকবাল আমাকে একটি স্ক্রিপ্ট দিয়েছেন৷ এখন চিত্রনাট্য তৈরির কাজ চলছে৷ এ বছর নয়, পুরোপুরি তৈরি হয়ে তবেই ঘোষণা দেব৷ এমন একটি ছবি পরিচালনা করব, যা বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে৷ এমনি একটি ছবি বানানোর স্বপ্ন আমার চোখে৷’