মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সৌদি বাদশার বিশেষ ক্ষমায় দেশে ফিরেছেন ৩২ হাজার বাংলাদেশি

KSA-3সৌদি আরবের বাদশার বিশেষ ক্ষমায় গত তিন নভেম্বর পর্যন্ত সময়ের মধ্যে ফেরত গেছেন ৩১ হাজার সাতশ’ ৩৮ জন বাংলাদেশি। বৈধ হতে না পেরে দেশে ফেরার অপেক্ষায় রয়েছেন আরো কয়েক হাজার বাংলাদেশি।

তিন নভেম্বর বৈধ হওয়ার সময় শেষ হলেও, শ্রমিকরা যে সকল কোম্পানিতে ইকামা ট্রান্সফারের জন্য পাসপোর্ট জমা দিয়েছিল ওই সকল কোম্পানির অবহেলার জন্য নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ইকামা ট্রান্সফার করা সম্ভব হয়নি, আবার কেউ কেউ নিজের অজ্ঞতা ও অবহেলার কারণেও বৈধ হতে পারেন নি।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে সৌদিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শহিদুল ইসলাম জানান, যারা বৈধ হতে পারেন নি তাদের বৈধ হওয়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য সৌদি আরবের সংশ্লিষ্ট শীর্ষস্থানীয় নেত্রী বৃন্দের সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত আছে।

হেল্প ডেস্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারপরও যারা দেশে ফেরত যেতে চাইছেন, তাদের জন্য সৌদি আরবের রিয়াদে এবং জেদ্দা দূতাবাসে দু’টি করে মোট চারটি হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে। হেল্প ডেক্সে গত ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশে ফেরত যাওয়ার জন্য এক হাজার একশ শ্রমিক যোগাযোগ করে তাদের নাম তালিকাভুক্ত করিয়েছেন।

হেল্প ডেস্কে যারা নাম তালিকাভুক্ত করছেন তারা সৌদি সরকারের খরচে দেশে ফেরত যেতে পারবেন বলে জানান সৌদিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের এই রাষ্ট্রদূত।

আনোয়ার হোসেন নামে এক বাংলাদেশী জানান, তিনি বিশেষ ক্ষমার মেয়াদে শোয়াইয়া হাউস রেস্টুরেন্ট কোম্পানিতে ট্রান্সফার হওয়ার জন্য পাসপোর্ট দিয়ে রাখলেও নির্দিষ্ট সময়ে কোম্পানি তাকে ট্রান্সফার করাতে পারেনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশীদের ট্রান্সফার করা যাচ্ছে না বলে পাসপোর্ট ফেরত দিয়েছে। আমার সাথে আরও প্রায় ৪০ জন প্রবাসী বাংলাদেশির একই অবস্থা।

আনোয়ার আরও বলেন, অর্থের বিনিময়ে দ্রুত দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করে দেবে বলে গুজব শোনা যাচ্ছে। বিচ্ছিন্নভাবে কিছু দালাল দেশে ফেরত যেতে আগ্রহী প্রবাসীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

দুতাবাসের একটি সূত্র বাংলানিউজকে জানায়, যারা দেশে ফিরে যাবার জন্য নাম এন্ট্রি করিয়েছেন তাদের সৌদি সরকারের খরচে পর্যায়ক্রমে দেশে পাঠানোর বেবস্থা করা হবে এবং এছাড়াও যারা ফেরত যেতে চাচ্ছেন তাদের রিয়াদ এবং জেদ্দা দূতাবাসে নাম এন্ট্রি করে নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

এখানে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে অনৈতিক কাজের সঙ্গে জড়িতদের তালিকা সৌদি প্রশাসনের কাছে রয়েছে জানিয়ে সূত্রটি আশঙ্কা করে, তাদের বিরুদ্ধে আগামী বছরের জানুয়ারিতে সৌদি আরবের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কম্বাইং অপারেশন চালাতে পারে।

সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের সতর্ক করে সূত্র জানায়, এই দেশে ট্রাফিক আইন অমান্য করাকেও একটি ক্রাইম হিসেবে গণ্য করা হয়। এখানকার বাংলাদেশিদের উচিত হবে, ট্রাফিক আইনও যেন অমান্য না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকা।

উল্লেখ্য, সৌদি বাদশার বিশেষ ক্ষমার সুযোগ গ্রহণ করে সাত লক্ষ ৯৯ হাজার একশ’ ৮৬ জন বাংলাদেশি শ্রমিক বৈধ হয়েছেন। এর মধ্যে আকামা(আইডি) ট্রান্সফার করেছেন চার লক্ষ ৩৬ হাজার চারশ’ ৭৩ জন, প্রফেশন পরিবর্তন করেছেন তিন লক্ষ ৩০ হাজার নয়শ’ ৭৫ জন, বাংলাদেশে ফেরত গিয়েছেন ৩১ হাজার সাতশ’ ৩৮ জন। আরও ১১শ’ প্রবাসী দেশে ফেরত যাবার জন্য তাদের নাম তালিকাভুক্ত করিয়েছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

মেসির হাতে উঠলো সপ্তম ব্যালন ডি’অর

ওমিক্রন রোধে বেনাপোল বন্দরে সর্বোচ্চ সতর্কতা

এসএসসি পাস ছাড়া বিমা পেশায় ঢোকার পথ বন্ধ

‘মাইনু আয়, তোরে ভালো কলেজে ভর্তি করামু’

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

পদত্যাগ করলেন টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসি

মা-বাবার পরে চেয়ারম্যান হলেন মেয়ে

যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন বুবলিও

খালেদা জিয়ার জন্য বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনতে পারবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিনহা হত্যা মামলা : ৮ম দফায় প্রথম দিনেও তদন্তকারী কর্মকর্তার জেরা অসমাপ্ত

ওমিক্রন : ভারতের উচ্চ ঝুঁকির তালিকায় বাংলাদেশ

বিএনপির শেখানো কথা বলছেন চিকিৎসকরা : তথ্যমন্ত্রী