বৃহস্পতিবার, ৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

এবার নিজেদের গোলে জিতল বাংলাদেশ

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : ম্যাচের আগের দিন ‘হুংকার’ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে—ভুটানের বিপক্ষে জিততে হবে বড় ব্যবধানে। বাংলাদেশ জিতল ঠিকই, তবে ব্যবধানটা আহামরি কিছু নয়। গ্রুপের তুলনামূলক কম শক্তিশালী দলটার বিপক্ষে স্বাগতিকের জয় ২-০ গোলে।

এই জয়ে অবশ্য একটা স্বস্তির বিষয় আছে। অবশেষে গোল পেয়েছে বাংলাদেশের আক্রমণভাগ। দুটিই এসেছে হেড থেকে। ১০ মিনিটে নাজিম উদ্দিন ও ৭৩ মিনিটে মোলতাজিম আলম হিমেলের গোলে পূর্ণ তিন পয়েন্ট পেয়েছে। এই জয়ে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৭ এশিয়ান কাপে খেলার সম্ভাবনা এখনো বাঁচিয়ে রেখেছে পল স্মলির দল। সেই সম্ভাবনাকে বাস্তব করতে হলে শেষ ম্যাচে ইয়েমেনের বিপক্ষে বিশেষ কিছুই করতে হবে ইমরান খানদের।

কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে আজ সিঙ্গাপুর ম্যাচের একাদশ থেকে চার পরিবর্তন এনে ভুটান ম্যাচের একাদশ সাজান বাংলাদেশ কোচ পল স্মলি। মিরাজুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম, স্বপন হোসেন ও মুর্শেদ আলীর পরিবর্তে এই ম্যাচের শুরু থেকে খেলেছেন আসাদুল মোল্লা, মিঠু চৌধুরী, স্যামুয়েল রাকসাম ও মোলতাজিম আলম হিমেল।

‘ই’ গ্রুপের তুলনামূলক কম শক্তিশালী দল ভুটানের বিপক্ষে বেশি বেশি গোলের লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশের। প্রথম ম্যাচে ইয়েমেনের কাছে ৮ গোল হজম করে মানসিকভাবে বিধ্বস্ত ভুটানের দুর্বলতার সুযোগটাকে কাজে লাগানোর পরিকল্পনা ছিল পল স্মলির দলের। সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও সেই ম্যাচে নিজেরা কোনো গোল পাননি স্বাগতিক ফুটবলাররা। তাই গোলের একটা তাগিদও ছিল। অন্তত সেরা ছয় রানার্সআপের তালিকায় থাকতে হলে যতটা সম্ভব গোলের পরিমাণটা বাড়িয়ে রাখা দরকার ছিল বাংলাদেশের। জয়ের দেখা পেলেও সেই ব্যবধানটা বাড়াতে পারেননি ইমরান খানরা। আগামী পরশু ইয়েমেনের বিপক্ষে হেরে গেলে বাংলাদেশের সেরা ছয় রানার্সআপ হওয়া সম্ভাবনা ভেস্তে দিতে পারে এই গোল ব্যবধান।

সিঙ্গাপুর ম্যাচের ভুল শুধরে ভুটানের বিপক্ষে অবশ্য শুরুটা ভালোই ছিল বাংলাদেশের। আক্রমণাত্মক ফুটবলে ভুটানের অর্ধে বেশ ভীতিই ছড়াচ্ছিলেন স্বাগতিক ফরোয়ার্ডরা। অতি আক্রমণাত্মক খেলতে গিয়ে ৮ মিনিটে প্রায় গোলই খেয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। প্রতি আক্রমণে বাংলাদেশ গোলরক্ষক সোহানুর রহমানকে পরাস্ত শট নিয়েছিলেন কামাল উরাওন। বাংলাদেশের ভাগ্য ভালো, অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় কামালের সেই শট।

ভুটান আতঙ্ক ছড়ানোর আগেই গোল খাতা খুলে বসে বাংলাদেশ। ১০ মিনিটে নিচ থেকে আক্রমণ গড়ে ডানপাশ দারুণ এক ক্রস করেন অনূর্ধ্ব-১৭ দলে নবাগত আসাদুল মোল্লা। সেই ক্রসে নাজিম উদ্দিনের হেড ভুটান গোলরক্ষক রিগজিন সোনমের মাথার ওপর দিয়ে জড়ায় জালে।

দুই মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন নাজিম। ভুটান ডিফেন্ডারের ভুলে গোলরক্ষক একা পেয়েও এবার আর জালে জড়াতে পারেননি নাজিম।

এগিয়ে যাওয়ার তৃপ্তি থেকে শুরুর গোছানো ফুটবলের ধারাটা ধরে রাখতে পারেননি বাংলাদেশের ফুটবলাররা। আক্রমণে আসে শিথিলতা, পরিকল্পনায় আসে অগোছালো ভাব।

প্রথম গোলের ৫১ মিনিট পর দ্বিতীয় গোলের দেখা পায় বাংলাদেশ। ৭৩ মিনিটে অধিনায়ক ইমরান খানের ফ্রি-কিক থেকে হেডে স্বাগতিকদের জয় নিশ্চিত করেন মোলতাজিম আলম হিমেল।

আজ দিনের প্রথম ম্যাচে সিঙ্গাপুরকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ইয়েমেন। দুই ম্যাচে ১৪ গোল করে বাংলাদেশকে শেষ ম্যাচে বেশ কঠিন চ্যালেঞ্জই দিয়ে রাখল মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।