শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জাতিসংঘে রাশিয়ার ‘ন্যায্য শাস্তি’ চাইলেন জেলেনস্কি

news-image

অনলাইন ডেস্ক : ইউক্রেনে চলা সামরিক অভিযানকে পুরোপুরি অবৈধ অ্যাখ্যা দিয়ে রাশিয়াকে শাস্তির আওতায় আনার জোর আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। একই সঙ্গে রাশিয়াকে আর্থিক জরিমানা এবং নিরাপত্তা পরিষদে মস্কোর ভেটো ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ারও দাবি করেছেন তিনি।

গতকাল বুধবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশনে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে তিনি এ দাবি জানান। আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষধের অধিবেশনে একটি ভিডিও ভাষণ দিয়েছেন ভলোদিমির জেলেনস্কি। সেখানে বিশেষ জাতিসংঘ ট্রাইব্যুনালের কাছে ইউক্রেনে আগ্রাসনের জন্য রাশিয়ার ‘ন্যায্য শাস্তি’ দাবি করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার পূর্ব-রেকর্ডকৃত এক ভিডিও ভাষণে একটি বিশেষ যুদ্ধ ট্রাইব্যুনাল এবং রাশিয়ার যুদ্ধাপরাধ বিশদভাবে তদন্তের আহ্বান জানান জেলেনস্কি। এ ছাড়া ইউক্রেনের জন্য আরও সামরিক সহায়তা এবং বিশ্ব মঞ্চে রাশিয়াকে শাস্তি দেওয়ার জন্য একটি শান্তি ‘ফর্মুলা’ নির্ধারণ করে দেন তিনি। তার এই ভাষণের পর অধিবেশনে উপস্থিত অনেকে দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানান।

বক্তব্যের শুরুতে ‘অবৈধ যুদ্ধ’ বাঁধিয়ে ‘বিপর্যয়কর অশান্তি’ সৃষ্টি করার জন্য রাশিয়াকে অভিযুক্ত করেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। ভাষণে ভ্লাদিমির পুতিনের ‘মাতৃভূমিকে রক্ষার জন্য’ রাশিয়ায় আংশিক সেনা সমাবেশের ঘোষণার কথা উল্লেখ করে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এই পদক্ষেপটি আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে যে, মস্কো শান্তি আলোচনার বিষয়ে আগ্রহী নয়।’

এ ছাড়া মস্কোর নিয়ন্ত্রণাধীন ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ায় যুক্ত করার জন্য জরুরিভিত্তিতে তথাকথিত ভোটের পরিকল্পনারও নিন্দা জানান জেলেনস্কি। ভিডিও ভাষণে ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ইউক্রেনের বিরুদ্ধে একটি অপরাধ সংঘটিত হয়েছে এবং আমরা (রাশিয়ার) ন্যায্য শাস্তি দাবি করছি।’

জেলেনস্কি আরও বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে আগ্রাসনের অপরাধে রাশিয়াকে শাস্তি দেওয়ার জন্য একটি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করা উচিত… রাশিয়াকে তার সম্পত্তিসহ এই যুদ্ধের জন্য অর্থ প্রদান করা উচিত।’ একই সঙ্গে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে রাশিয়ার কাছে থাকা ‘ভেটো ক্ষমতা প্রত্যাহার’ করার জন্যও জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।