বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বাসা থেকেই দাপ্তরিক কাজ করছেন গাজীপুর মেয়র জাহাঙ্গীর

news-image

গাজীপুর প্রতিনিধি : দল থেকে বহিস্কার হওয়া গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম নিজ বাসায় থেকেই সিটি করপোরেশনের জরুরি কাজ সারছেন। নগর ভবন সূত্রে জানা গেছে, সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস রোববার থেকে সেখানে যাচ্ছেন না তিনি।

তবে নগর ভবন ও বিভিন্ন আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল করপোরেশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা তার বাসভবনে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সেসব ফাইলে স্বাক্ষর করছেন। তবে মেয়র পদ হারাতে পারেন এমন শঙ্কা ও মামলার কারণে তার কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা কাজ করছে।

জানা গেছে, মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের তিন বছরে সিটি করপোরেশনে মাস্টাররোলে নিয়োগ পান অনেক কর্মকর্তা কর্মচারী। এ ছাড়া ট্রাফিক সহকারি হিসেবে সড়কে কাজ করতেন ৩শ’ কর্মী। ইতিমধ্যে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে যে, দলীয় পদ হারানোর পাশাপাশি জাহাঙ্গীর মেয়র পদও হারাচ্ছেন। এমন খবরে চাকরি পাওয়া এসব ব্যক্তি আতঙ্কে আছেন।

মেয়র পদ হারালে তাদের চাকরির কী হবে, কোথায় গিয়ে দাঁড়াবেন, তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন তারা। এ ছাড়া সিটির বিভিন্ন ওয়ার্ডে দলীয় কার্যালয় থেকে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের ছবিও নামিয়ে ফেলতে দেখা গেছে গত দুই দিনে। জাহাঙ্গীর আলম মেয়র পদ হারাচ্ছেন এমন খবরে বহুল আলোচিত নবনির্মিত বনমালা সড়কের মাঝখানে বাঁশের খুঁটি দিয়ে আটকে দেন এলাকাবাসী। এ সময় ওই সড়কে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়।

এলাকাবাসি জানায়, গাজীপুর শহর হয়ে হায়দরাবাদ থেকে টঙ্গীর বনমালা এলাকায় যাওয়ার জন্য রেলওয়ের জমির ওপর দিয়ে একটি সড়ক ছিলো। এক বছর আগে রেলওয়ের ডাবল লেন নির্মাণ করার জন্য সেই রাস্তাটি বন্ধ করে রেললাইন স্থাপন করা হয়। এতে গাজীপুরের হয়দারাবাদ ও টঙ্গীর বনমালা এলাকার শত শত বাসিন্দারা বিপাকে পড়েন।

গত ৬-৭ মাস আগে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম জমি অধিগ্রহণ ছাড়াই ৪০ ফুট প্রশস্ত একটি রাস্তা নির্মাণ করে ইটের সলিং করেন। এসময় এলাকাবাসী বাধা দিলে মেয়র জাহাঙ্গীর তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু কয়েক দফা তার কাছে ঘুরেও সেই ক্ষতিপূরণের টাকা পাননি ক্ষতিগ্রস্তরা। তিনি যদি মেয়র না থাকেন, তাহলে ক্ষতিগ্রস্তরা জমির ক্ষতিপূরণ না পাওয়ার আশংকায় ফের তাদের জমি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে আজ দুপুর দুইটার দিকে গাজীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থান্দার কামরুজ্জামান ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে নেন।

কয়েকজন কাউন্সিলর জানান, গাজীপুর সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডের প্রায় বেশিভাগ ওয়ার্ডেই নানা ধরনের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। যেসব ওয়ার্ডগুলোতে কাউন্সিলররা মেয়রের পক্ষের সেখানে কাজের গতি কিছুটা মন্থর হয়ে আছে।

কারণ হিসেবে তারা বলেন, আমরা স্থানীয় বাসিন্দাদের বুঝিয়ে শুনিয়ে তাদের জমি নিয়ে রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ করছি। এখন এলাকায় প্রচার হয়েছে যে, মেয়র জাহাঙ্গীর আর মেয়র থাকবে না। নতুন মেয়র আসবে, তিনি রাস্তায় যাওয়া সব জমির উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেবেন। এ জন্য অনেক স্থানে কাজ থেমে যাচ্ছে। তবে আমরা স্থানীয়দের ম্যানেজ করে কাজ চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি।

এর আগে, গত ১৯ নভেম্বর জাহাঙ্গীর আলমকে দলীয় পদ ও দল থকে বাদ দেওয়া হলেও মেয়র পদে থাকতে পারবেন কিনা, তা নিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। এদিকে, গাজীপুরে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরোধীরা তার মেয়র পদ থেকে অপসারণ দাবি করে আসছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

বোমা আতঙ্কে জরুরি অবতরণ, উড়োজাহাজে তল্লাশি

এইচএসসি পরীক্ষা : কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে প্রবেশ নয়

এইচএসসি পরীক্ষা, রংপুর বিভাগে অংশগ্রহণ নিবে ১লাখ ১৬ হাজার পরীক্ষার্থী

মুজিব শতবর্ষ ও বিজয় দিবসের সুবর্ণ জয়ন্তীতে রংপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বস্তাভর্তি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

৭৯ শতাংশ করদাতা এখনও রিটার্ন দেননি

বয়স্ক নারীদের যেসব খাবার খাওয়া জরুরি

শীতের মৌসুমে ভ্রমণের জন্য ৫ জায়গা

সব বয়সের জন্য ভিন্ন স্বাদের গাজরের সন্দেশ

প্রতিশ্রুতি রক্ষায় নাইট গার্ডের দায়িত্বে ইউপি চেয়ারম্যান

বন্ধ হচ্ছে অবৈধ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ব্যবসা

অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে জবির শোক