মঙ্গলবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পুলিশি ‘নির্যাতনে মৃত্যু’র অভিযোগ: পদক্ষেপের প্রতিবেদন হাইকোর্টে

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : রংপুরের হারাগাছ থানা পুলিশের ‘নির্যাতনে’ তাজুল ইসলাম (৫৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়েছিলন হাইকোর্ট। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন এবং ওই ঘটনায় কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, এ বিষয়ে রংপুর বিভাগীয় পুলিশের প্রতিবেদন হাইকোর্টে এসেছে।

আজ বুধবার ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত এ প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করবেন। এরপর বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলিরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে শুনানি শেষে আদেশ দেবেন।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) এ বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন হাইকোর্টের নজরে আনেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। এরপর ঘটনার বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা জানতে চান আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাসগুপ্ত।

সোমবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রংপুরের হারাগাছ এলাকায় পুলিশের অভিযানের পর হারাগাছ পৌর এলাকার দালালহাট নয়াটারী গ্রামের বাসিন্দা তাজুল ইসলামের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে তাজুলকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ তুলে থানা ঘেরাও করে স্থানীয়রা। এতে স্থানীয়দের সঙ্গে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয় পুলিশের। বিক্ষুব্ধরা এ সময় বেশ কিছু গাড়ি ভাঙচুর করে, সড়ক অবরোধেরও চেষ্টা করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। এদিন প্রায় তিন ঘণ্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

ঘটনার বিষয়ে হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত আলী বলেন, তাজুল হেরোইন সেবন করছিলেন- এমন খবর পেয়ে সেখানে অভিযানে যায় পুলিশ। তাকে আটকের পর হ্যান্ডকাপ পরানো হলে তিনি মলত্যাগ করে ফেলেন।

ওসির ভাষ্য, এ ঘটনার পর পুলিশ তাজুলকে স্থানীয়দের জিম্মায় দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এর কিছুক্ষণ পর খবর আসে তাজুল মারা গেছেন।

 

এ জাতীয় আরও খবর