বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা নেওয়ায় ছয় পুলিশ বরখাস্ত

news-image

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহীতে দুই নারীকে ইয়াবার মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে এক লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় ছয় পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক সাময়িক বরখাস্তের এ আদেশ জারি করেন।

বরখাস্ত হওয়া পুলিশ সদস্যরা সবাই নগরীর বোয়ালিয়া থানার শিরোইল বাস টার্মিনাল পুলিশ বক্সে কর্মরত ছিলেন। তাঁরা হলেন-সহকারী শহর উপপরিদর্শক (এটিএসআই) নাসির হোসেন, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. সেলিম, কনস্টেবল মো. শাহজাদা, সারোয়ার হোসেন, রিপন আলী ও শংকর চন্দ্র।

আরএমপির মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, সাময়িক বরখাস্ত করে এসব পুলিশ সদস্যদের পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে। ভুক্তভোগী নারীদের পক্ষ থেকে এঁদের বিরুদ্ধে নগরীর বোয়ালিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগও হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকেও বিভাগীয় তদন্ত করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে নারায়ণগঞ্জ এবং কুমিল্লা থেকে দুজন নারী বাসে চড়ে রাজশাহী আসেন। তাঁরা শিরোইল বাস টার্মিনালে নামার পর এটিএসআই নাসিরসহ বক্স পুলিশ সদস্যরা তাঁদের আটক করেন। এরপর ওই দুই নারীকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দেখানোর হুমকি দেওয়া হয়। এ সময় তাঁরা ভুক্তভোগীদের কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। বাধ্য হয়ে ওই দুই নারী তাঁদের পরিবারকে বিষয়টি জানান।

এরপর পরিবারের সদস্যরা বিকাশের মাধ্যমে এক লাখ টাকা দেন। এ ছাড়া দুই নারীর কাছে থাকা নগদ সাড়ে চার হাজার টাকাও কেড়ে নেওয়া হয়। এ ঘটনার পর ওই দুই নারীর পরিবারের সদস্যরা পুলিশ সদর দপ্তরে অভিযোগ করেন। অভিযোগ পাওয়ার পরে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আরএমপি কমিশনারকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। প্রাথমিক তদন্তেই অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় ওই ছয় পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।

এদিকে নগরীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন জানিয়েছেন, মাদক মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর ভয় দেখিয়ে এক লাখ টাকা বিকাশের মাধ্যমে আদায় এবং নগদ সাড়ে চার হাজার টাকা নগদ ছিনিয়ে অভিযোগে ভুক্তভোগী দুই নারী থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টির তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে এ অভিযোগের বিষয়েও আলাদাভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে বিভাগীয় তদন্তও হবে।