রবিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে সেতু ভেঙে ১৫ হাজার মানুষ চরম দুর্ভোগে

news-image

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাট সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের কোন্ডলা ও সুলতানপুর গ্রামের কাটাখালের উপর নির্মিত কাঠের সেতুটি দীর্ঘ আট মাস ধরে ভেঙে পড়ে রয়েছে।

রাতের আঁধারে ইঞ্চিন চালিত ট্রলারের ধাক্কায় ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ার ফলে খালের দু’পাড়ের ১০ গ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ পড়েছে চরম ভোগান্তির মধ্যে। যাতায়াতের বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় কোন্ডলা ও সুলতানপুর গ্রামের বাসিন্দারা বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সেতুটি পার হচ্ছেন। ফলে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন নারী ও শিশুরা। এমন অবস্থায় সেতুটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘ আট মাস ধরে খাটাখালের উপর নির্মিত এ সেতুটি ভেঙে পড়ার কারণে যাতায়াতের সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে রয়েছেন কোন্ডলা ও সুলতানপুর গ্রামের বাসিন্দারা। এছাড়াও খালের দু’পাড়ের কোন্ডলা, সুলতানপুর, নওয়াপাড়া, পাতিলাখালী, তালেশ্বর, নাটইখালী, খাসবাটি, ভাটশালা, বানিয়াগাতি ও চরগ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে। এ সেতুটি পাড় হতে গিয়ে আহত হয়েছেন অনেকে।
সুলতানপুর গ্রামের বাসিন্দা আছমা বেগম বলেন, ‘এই সাত-আট মাস ধরে এই সেতুটা ভেঙে পড়ে আছে। এই সুলতানপুর ও কোন্ডলা মানুষ যাতায়াতে অনেক কষ্ট হয়, আমরা বাচ্চা নিয়ে যাতায়াত করতি পারি না। অনেকে জানিয়েও কোনো সমাধান হয়নি।’

বাগেরহাট বেমরতা ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন টগর বলেন, ‘কোন্ডলা ও সুলতানপুরের মধ্যে সংযোগস্থাপনকারী সেতুটি দীর্ঘদিন ধরে এই অবস্থায় রয়েছে। আমাদের সদর আসনের এমপিকে বিষয়টি আমরা জানিয়েছি। তিনি আন্তরিকতার সাথে বিষয়টি গ্রহণ করেছেন। আমরা আশা করছি দ্রুতই বিষয়টির সমাধান হবে।’

বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোছাব্বেরুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি সেতুটির জেলা পরিষদে জানানো হয়েছে। আশা করছি শীঘ্রই সেতুটি সংস্কারের কাজ শুরু হবে।’