মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আওয়ামী লীগ নেতার শিশু নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

news-image

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের নড়াগাতী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বাঐসোনা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ মো. ফোরকান মোল্যার বিরুদ্ধে ১২ বছরের এক শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়। সুপারি চুরির অভিযোগে ওই শিশুকে অমানবিক নির্যাতন চালানো হয় বলে জানা গেছে।

ভিডিওটি রবিবার রাতে ফেইসবোকে আপলোড করার পর সোমবার ভাইরাল হয়ে পড়ে। অনেকে ভিডিওটি শেয়ার করে নির্যাতনে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, আওয়ামী লীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যান ফোরকান মোল্যা শিশুটিকে ব্যাপক মারধরসহ লাথি মারছেন ও ছাড়া গালিগালাজ করছেন। এ সময় অপর ব্যক্তিও ওই শিশুকে মারধর করেন। ওই শিশুটি বার বার মাফ চেয়েও ক্ষমা পাচ্ছে না।

এ সময় চেয়ারম্যান বলেন যে, ‘আমার এরিয়ায় শয়তান ঢোকে না।’

বিভিন্নসূত্রে জানা যায়, নড়াগাতি থানার বাঐসোনা ইউনিয়নের মধুপুর এলাকায় সুপারি চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিশুটিকে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে।

মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার্স ফোরাম (এইচআরডিএফ) নড়াইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কাজী হাফিজুর রহমান বলেন, ‘১২ বছরের একটি শিশুকে এভাবে মারধর করার অধিকার কারও নেই। আইন কেউ হাতে তুলে নিতে পারে না। দেশে প্রচলিত আইন আছে। শিশুটিকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা যেত। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দ জানাই। পাশাপাশি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাই’।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা শাহ মো. ফোরকান মোল্যা বলেন, সুপারি চুরির ঘটনায় ওই কিশোরকে ধরে আমাকে খবর দেওয়া হয়েছিল। তাকে চর-থাপ্পড় দিয়ে তার গার্জিয়ানকে দিয়ে দিয়েছিলাম। ঘটনাটি ছয় মাস আগের। কে বা কারা ভিডিও করে আমার নামে একটা ফেক আইডি খুলে ফেইসবুকে দিয়েছে।’

নড়াগাতীর থানার ওসি রোকসানা খাতুন জানান, নির্যাতনের বিষয়টি জানতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ভূক্তভোগী শিশুর পরিচয় জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।