বুধবার, ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ছিঁড়ে ফেলা হলো লিচুর গাছে আমটি, মালিকের কান্না

news-image

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : বহুল আলোচিত সেই লিচু গাছে আমটি আর নেই। আমটি ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়েন গাছের মালিক আব্দুর রহমান।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ক্ষোভের বসে গাছের বৃন্ত থেকে আমটি তুলে মাটিতে ফেলে দেয় স্থানীয় সফিকুল ইসলাম সিকিম নামে এক ইউপির সদস্যের লোকজন।

তবে ওই ইউপি সদস্য এ অভিযোগ অসত্য বলে দাবি করেন ।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের সিঙ্গিয়া কলোনিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবদুর রহমানের একটি লিচুগাছে গাছে আম আকৃতির ফল ধরে। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। লিচুর থোকায় আম ধরার ঘটনাকে অলৌকিক মনে করে তা দেখতে বহু মানুষ ভিড় করন।

জানা গেছে, ভিড়ের কারণে দুঘর্টনাও ঘটে। ইউপি সদস্য সফিকুল ইসলাম সিকিমের ভাইয়ের ছেলে সোহেল সড়ক দুঘর্টনার শিকার হওয়ায় তার পরিবারের সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।

এ ব্যাপারে লিচুগাছটির মালিক আবদুর রহমান বলেন, মেম্বার তিনজন লোক নিয়ে আমার বাড়িতে আসেন। মেম্বার আমার সঙ্গে গল্প করছিলেন। এ সময় তার সঙ্গে আসা ওই তিনজন গাছ থেকে আমটি ছিঁড়ে মাটিতে ফেলে দেয়।

তবে ইউপি সদস্য সফিকুল অভিযোগ মিথ্যে বলে দাবি করেন ।

লিচুগাছের মালিকের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, গাছটি লিচুর গুটিতে ভরা। এর মধ্যে একটি থোকায় ১৭টি লিচুর মধ্যে একটি আম ধরেছে। লিচুর ডগা লম্বা হলেও আমটির বোঁটা অনেকটা ডালঘেঁষা। আমটির গন্ধও ছিল। এটা দেখতে আশেপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিনই শত শত মানুষ ভিড় করেছেন।

আব্দুর রহমান জানান, পাঁচ বছর আগে বাড়ির একপাশে লিচুগাছের চারাটি লাগান। তিন বছর পর গাছটিতে লিচু ধরতে শুরু করে। এবারও গাছটি মুকুলে ভরে গেছে।

তিনি জানান, গত শনিবার সকালে তার নাতি এসে তাকে জানায়, লিচুগাছে একটা আম ধরেছে। নাতির কথা শুনে তিনি প্রথমে দুষ্টুমি মনে করেছিলেন। তিনি গিয়ে গাছে লিচুর থোকার একপাশে একটি আম দেখে অবাক হন।

সোমবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে তিন সদস্যের একটি টিম পরিদর্শন করে। এরপর আমের সংগ্রহ করা নমুনা কৃষি বিভাগের গবেষণাগারে পাঠায় কৃষি বিভাগ।