বুধবার, ২১শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৮ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটি বাতিল হওয়ার গুঞ্জন: ঘোষনা আসছে এ্যাডহক কমিটির

news-image

রংপুর ব্যুরো : রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপি কমিটি বাতিল করে এ্যাডহক কমিটি গঠনের ঘোষনা আসছে খুব শীগ্রই। এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে এখন রংপুর বিএনপির জেলা ও নগর কমিটির নেতাকর্মীদের মাঝে। গত শুক্রবার বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ এজেড এম জাহিদ হোসেন রংপুর নগরীর একটি হোটেলে জেলা বিএনপির নেতাদের সাথে চার ঘন্টা ব্যাপী রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। ওই বৈঠক সূত্র জানায়, সেখানে এমনি একটি আভাস পাওয়া গেছে।

তবে রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করলেও নাম প্রকাশে রাজি হননি।
বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, চার বছর আগে ঢাকা থেকে জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটি ঘোষনা করা হয়। সাইফুল ইসলামকে সভাপতি ও রইচ আহাম্মেদকে সাধারন সম্পাদক করে জেলা কমিটি। অন্যদিকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেনকে সভাপতি ও শহিদুল ইসলাম মিজুকে সাধারন সম্পাদক করে মহানগর কমিটি ঘোষনা করা হয়। দু’টি কমিটি পুর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষনা না করে পরে ঘোষনা করা হবে জানানো হয়। এরপর চার বছর অতিবাহিত হবার পরেও পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়নি। গত দেড় বছর আগে মহানগর কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন মৃত্যুবরণ করলে ওই পদটি শুণ্য হয়ে যায়।

এদিকে রংপুর মহানগর বিএনপির কমিটি ঘোষনার পর এখন পর্যন্ত রংপুর সিটি করপোরেশনের ৬টি থানা সহ ৩৩টি ওয়ার্ডের একটি কমিটির সম্মেলন ও কমিটি গঠন করা হয়নি।

তৃণমুল নেতাকর্মীদের অভিযোগ, রংপুর জেলা, মহানগর বিএনপিসহ যুবদলের একাধিক নেতার বিরুদ্ধে ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাদের সাথে গোপন আতাঁত করে ব্যবসায়ীক সুবিধা নেয়ার। ফলে দলের কার্মকাÐ ঝিমিয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে রংপুর বিএনপির একাধিক নেতা জানান, একই দিনে ৪ বছর আগে মহানগর বিএনপির ও জেলা কমিটিও ঘোষনা করা হয়। সাইফুল ইসলামকে সভাপতি ও রইচ আহাম্মেদকে সাধারন সম্পাদক করে ৩৭ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি ঘোষনা করা হলেও পুর্নাঙ্গ কমিটি আজও ঘোষনা করা হয়নি। এর মধ্যে ঘোষিত কমিটির প্রায় ১৫ জন নেতার দলের সাথে তাদের যোগাযোগ নেই, তারা দলের কোন কর্মকাÐে অংশ নেন না বলে অভিযোগ রয়েছে। এমনি এক পরিস্থিতিতে দলকে চাঙ্গা করতে গত ১৯ ফেব্রæয়ারি শুক্রবার ঢাকা থেকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ এজেড এম জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা রংপুরে আসেন। তারা নগরীর একটি থ্রিষ্টার হোটেলে জেলা বিএনপির ৩৫ সদস্যের সকলকে নিয়ে আলোচনা করার কথা জানালেও ২২ জন নেতা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ এজেড এম. জাহিদ জেলার নেতাদের নিয়ে দীর্ঘ ৪ ঘন্টা রুদ্ধ দ্বার বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি জানান, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান জেলা বিএনপির কর্মকান্ডে চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রংপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করবেন। তবে যে কোন দিন জেলা ও মহানগর বিএনপি বাতিল করার ঘোষনা আসবে বলে তিনি উপস্থিত নেতা কর্মীদের সাফ জানিয়ে দেন।

ওই সূত্র জানায়. বিএনপি’র জেলা ও মহানগর কমিটিসহ যুবদলের একাধিক শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে ক্ষমতাসীন জোটের দু’টি দলের স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে গোপন আতাঁত রয়েছে। তাই দলের সকল কর্মকাÐ শিথিল করে চলা এবং তাদের সহযোগিতায় টেন্ডারবাজি বাগিয়ে নিয়ে ব্যবসায়ীক সুবিধা আদায় করাই এখন তাদের মূল কাজ। ফলে দলের কার্যক্রম শিথিল হয়ে পড়েছে এমন অভিযোগ রয়েছে তৃণমূল নেতাকর্মীদের।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা বিএনপির দুই নেতা কমিটি বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, দলের হাইকমান্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটা দলের জন্য ইতিবাচক তবে এবারেও যেন দলের ত্যাগি নেতাদের বাদ দিয়ে কমিটি গঠন করা না হয়।

এব্যাপারে জানতে বিএনপির রংপুর জেলার বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রইচ আহমেদ ও মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সামসুজ্জামান সামুসহ একাধিক দায়িত্বশীল নেতার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি