মঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তিউনিশিয়ার প্রেসিডেন্টকে হত্যার প্রচেষ্টা ব্যর্থ: ইসরায়েলের দিকে সন্দেহের তীর

news-image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তিউনিশিয়ার পিপলস মুভমেন্ট দলের নেতা জহির আল-মাগজাভি বলেছেন, তার দেশের প্রেসিডেন্ট কায়িস সাইদকে হত্যার যে ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালানো হয়েছে তার পেছনে ইহুদিবাদী ইসরায়েল থাকতে পারে। ইসরায়েল এবং আরব দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের ব্যাপারে তিউনিশিয়ার প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন কড়া সমালোচক।

বুধবার সন্ধ্যায় তিউনিশিয়ার গণমাধ্যম খবর দিয়েছে যে, ৬২ বছর বয়সী কায়িস সাঈদ হত্যা প্রচেষ্টা থেকে বেঁচে গেছেন। দেশটির গণমাধ্যম জানিয়েছে, চিঠির মাধ্যমে অত্যন্ত তীব্র মাত্রার বিষাক্ত পাউডার দিয়ে প্রেসিডেন্টকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে। ওই চিঠি তার কার্থেজ প্রাসাদে পাঠানো হয়েছিল।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই বিষাক্ত পদার্থ যদি কয়েক মিলিগ্রামও শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে কারো দেহে ঢোকে তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে। গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হওয়ার পর প্রেসিডেন্টের দপ্তর থেকে দেয়া বিবৃতির মাধ্যমে হত্যা-প্রচেষ্টার কথা নিশ্চিত করা হয়েছে।
এ ঘটনার পর এখন সমস্ত ব্যক্তিগত চিঠিপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে এবং প্রেসিডেন্টের প্রাসাদে পৌঁছানোর আগে প্রয়োজনীয় পরীক্ষার কাজ সম্পন্ন হচ্ছে।

এদিকে, প্রেসিডেন্ট কায়িস সাঈদের ভাই নোফাল নিশ্চিত করেছেন যে, তার ভাই সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। তিনি জানিয়েছেন, তার ভাইকে হত্যার প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। এই ঘটনার পেছনে কে জড়িত তা খতিয়ে দেখতে বিষয়টি বর্তমানে তদন্তাধীন আছে।

এ প্রসঙ্গে পিপলস মুভমেন্টের নেতা জহির আল-মাগজাভি আজ লেবাননের আল-মায়াদিন টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ইসরায়েলকে সন্দেহ করা হচ্ছে এই কারণে যে, প্রেসিডেন্ট সাঈদ বহুবার আরব-ইসরায়েল সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের নিন্দা জানিয়েছেন।