বৃহস্পতিবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বার্ড ফ্লু ঠেকাতে মুরগি-ডিম আমদানি বন্ধের অনুরোধ

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারতে বার্ড ফ্লুর প্রাদুর্ভাবের পর বাংলাদেশেও রোগটি ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে সংক্রমণ রোধে ইতোমধ্যেই আগাম প্রস্তুতি নিয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে প্রতিবেশী দেশ থেকে মুরগির বাচ্চা, প্যারেন্টস্টক, হাঁস-মুরগি ও ডিম আমদানি বন্ধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানিয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বার্ড ফ্লু রোগের সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে সীমান্ত পথে অবৈধভাবে মুরগির বাচ্চা, প্যারেন্টস্টক, হাঁস-মুরগি, পাখি ও ডিমের অনুপ্রবেশ বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এবং বাংলাদেশকে কোস্টগার্ডকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগকে অনুরোধ জানিয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। এছাড়া সমুদ্র, নৌ এবং স্থলবন্দর দিয়ে মুরগির বাচ্চা, প্যারেন্টস্টক, হাঁস-মুরগি, পাখি ও ডিমের অনুপ্রবেশ বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট বন্দর কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য নৌপরিবহন মন্ত্রণালকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

গত মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত পৃথক তিনটি চিঠি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগে পাঠিয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ সমকালকে বলেন, অবৈধভাবে চোরাপথেও এসব প্রাণি যাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর প্রশাসনকে সতর্ক করে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সতর্কতা হিসেবে এসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, যদিও বাংলাদেশে এখনও কোনো জেলায় বার্ড ফ্লুর সংক্রমণ দেখা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, এখনও বৈবধভাবে মুরগির বাচ্চা, প্যারেন্টস্টক, হাঁস-মুরগি, পাখি ও ডিম আমদানি বন্ধ হয়নি। তবে সীমান্তে চোরাইপথে ভারত থেকে হাঁস, মুরগি, ডিম, মুরগির বাচ্চা এবং পাখিজাতীয় প্রাণি অনেক সময় পাচার হয়ে বাংলাদেশে ঢোকে বলে অভিযোগ রয়েছে। সীমান্তে নজরদারি বাড়ানোর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কেও চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমদানি বন্ধের দায়িত্ব বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের। এ বিষয়ে তারা ব্যবস্থা নেবে। তবে অবৈধ পথে মুরগি ও ডিমসহ পাখি জাতীয় প্রাণি এলে তার পরীক্ষা এবং কোয়ারেন্টাইন করা সম্ভব নয়। এতে বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সপ্তাহ কয়েক আগে ভারতে বার্ড ফ্লু দেখা দেয়। বৃহস্পতিবার সর্বশেষ খবরে বলা হচ্ছে, দেশটির অন্তত ১০টি রাজ্যে বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়েছে। বিভিন্ন রাজ্যে এরই মধ্যে সতর্কতাও জারি করা হয়েছে। কিছু রাজ্য এ কারণে পোল্ট্রি খামারে হাঁস-মুরগি নিধন শুরু করেছে- এরই মধ্যে হাজার হাজার হাঁস-মুরগি মেরে ফেলা হয়েছে।