সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কৃষি খাতে বাংলাদেশি কর্মী নেবে দক্ষিণ কোরিয়া

news-image

অসীম বিকাশ বড়ুয়া,দক্ষিণ কোরিয়া
বাংলাদেশ থেকে কৃষি খাতে কর্মী নেওয়ার সমঝোতা চুক্তির অনুমোদন দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার। এ চুক্তির আওতায় দেশটিতে পাঁচ মাসের জন্য ২০০ বাংলাদেশি কর্মীকে ভিসা দেওয়া হবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার শ্রম বাজারে প্রতিবছর প্রচুর সংখ্যক শ্রমিকের প্রয়োজন হয়। তাই বৈধভাবে মৌসুমি ভিসা প্রদান করে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য শ্রমিক নেয় দেশটি। এ লক্ষ্যে সম্প্রতি বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট এন্ড সার্ভিসেস লিমিটেড(বোয়েসেল) এবং দক্ষিণ কোরিয়ার খিয়ংসাং প্রদেশের উইরিয়ং শহর বাংলাদেশ থেকে সিজনাল চুক্তিতে কর্মী নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

চলতি বছরের শুরুর দিকে দক্ষিণ কোরিয়া ও মিয়ানমারের মাঝে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। কিন্তু মিয়ানমারের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে চুক্তি বাতিল করে বাংলাদেশের সঙ্গে গত ৪ আগস্ট নতুন চুক্তি করে দক্ষিণ কোরিয়া।

বোয়েসেলের কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ায় সিজনাল ভিসায় আসা বাংলাদেশিরা প্রতি মাসে বেতন পাবেন ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। সপ্তাহে ছুটি একদিন এবং কর্মঘন্টা ৮ ঘন্টা। আগ্রহী প্রার্থীদের নির্ধারিত শর্ত সাপেক্ষে গুগল ডকস ফর্মে আগামী ২০ আগস্টের মধ্যে সকল তথ্য প্রদান করতে হবে। ৩০ থেকে ৪৫ বছরের সুঠাম দেহের অধিকারী বাংলাদেশি পুরুষ ও নারীরা উভয়ে এ ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদকারীকে অবশ্যই কৃষি ও মৎস্য খাতে দুই বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতার সনদ থাকতে হবে এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্বাক্ষরিত সনদ দাখিল করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, সিজনাল ভিসায় চাকমা, মারমা, গারো, সাঁওতাল ও অন্যান্য উপজাতি প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। নতুন এ ভিসা পেতে কোন মধ্যস্বত্ত ভোগি থাকবে না। আগ্রহীরা কোনভাবে যেনো দালাল বা প্রতারকের খপ্পরে না পড়েন সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে দুদেশের সরকারের পক্ষ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়াতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা মনে করছেন, কৃষি খাতের নতুন ভিসায় আরও কিছু বাংলাদেশিদের দক্ষিণ কোরিয়ায় কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। এতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হ‌ওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য সেক্টরেও কোটা বৃদ্ধি পাবে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় কৃষি ভিসায় আসতে আগ্রহীদের দ্রুত বোয়েসেল এ যোগাযোগ করে নোটিশ অনুযায়ী গুগল ডকস পূরণ করে সামান্য চার্জ ও ৫০ হাজার টাকা জামানতের বিনিময়ে দক্ষিণ কোরিয়া আসতে পারবেন।