বৃহস্পতিবার, ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তিন মাসেই কোটিপতি বাড়ল দেড় হাজার

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে কোটি টাকার বেশি আমানতকারী ব্যাংক হিসাব বেড়েছে প্রায় দেড় হাজার। আর গত এক বছরে বেড়েছে সোয়া ৯ হাজার। সব মিলে গত মার্চ শেষে কোটিপতি অ্যাকাউন্টের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৩ হাজার ৫৯৭টি। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদন পর্যালোচনায় এ তথ্য পাওয়া গেছে।

দেশে কোটিপতির প্রকৃত সংখ্যা কত সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো পরিসংখ্যান নেই। তবে আমানতকারীর ব্যাংক হিসাব থেকে এ বিষয়ে একটি ধারণা করা যায়। তবে বাস্তবে কোটিপতির সংখ্যা আরও বেশি বলে জানা গেছে। কারণ বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে কেবল যেসব ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের হিসাবে কোটি টাকার বেশি জমা আছে সেই সংখ্যা দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে অনেকেই আছেন যাদের কোটি কোটি টাকার সম্পদ রয়েছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশে অর্থনীতির আকার ক্রমেই বড় হচ্ছে। প্রতিবছরই বাড়ছে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও মাথাপিছু আয়। এতে মানুষের সঞ্চয় প্রবণতা বেড়েছে। তবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গুণগত মান না বাড়ায় সমাজের একটি শ্রেণির কাছেই বেশি সম্পদ ও অর্থ কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, একটি বিশেষ শ্রেণির কাছেই দিন দিন আয় ও সম্পদ কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ছে। তারাই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সুফল ভোগ করছে। এটা ভালো লক্ষণ না। এর ফলে ধনী গরিবের বৈষম্য আরও বেড়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত ব্যাংকিং খাতে মোট আমানতকারীর সংখ্যা দাঁড়ায় ১২ কোটি ৭৩ লাখ ৫২ হাজার ৮৯৩। যাদের হিসাবে জমা ছিল ১৫ লাখ ১৪ হাজার ৮৯৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে কোটি টাকার বেশি আমানতের হিসেবের ১ লাখ ৩ হাজার ৫৯৭টিতে। ২০২১ সালের মার্চে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা ছিল ছিল ৯৪ হাজার ২৭২টি। সে হিসেবে গত এক বছরের ব্যবধানে কোটিপতি হিসাব বেড়েছে ৯ হাজার ৩২৫টি। আর ২০২১ সালের ডিসেম্বরে দেশে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা ছিল ১ লাখ ১ হাজার ৯৭৬টি। সে হিসেবে গত তিন মাসে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা বেড়েছে ১ হাজার ৬২১টি।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত মার্চ শেষে এক কোটি এক টাকা থেকে পাঁচ কোটি টাকার আমানতকারীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮১ হাজার ৩৪৪টি, যাদের হিসাবে জমা টাকার পরিমাণ ১ লাখ ৬৭ হাজার ৬৭৯ কোটি টাকা। পাঁচ কোটি থেকে ১০ কোটির মধ্যে রয়েছে ১১ হাজার ৪৮৭টি হিসাব, যাদের হিসাবে টাকার পরিমাণ ৮১ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকা। এ ছাড়া ১০ কোটি ১ টাকা থেকে ১৫ কোটি টাকার হিসাব রয়েছে ৩ হাজার ৮৬৫টি, ১৫ কোটি ১ টাকা থেকে ২০ কোটির মধ্যে ১ হাজার ৭৭১টি, ২০ কোটি ১ টাকা থেকে ২৫ কোটির মধ্যে ১ হাজার ১৫৫ জন, ২৫ কোটি ১ টাকা থেকে ৩০ কোটির মধ্যে হিসাব রয়েছে ৮৮৬ জনের, ৩০ কোটি ১ টাকা থেকে ৩৫ কোটি টাকার মধ্যে ৪৫৮ জন এবং ৩৫ কোটি ১ টাকা থেকে ৪০ কোটির মধ্যে ২৯০ জন আমানতকারী হিসাব রয়েছে। ৪০ কোটি ১ টাকা থেকে ৫০ কোটি টাকার অ্যাকাউন্ট সংখ্যা ৬৪৪টি। আলোচিত সময়ে ৫০ কোটি টাকার বেশি আমানত রাখা ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে ১ হাজার ৬৯৭টিতে দাঁড়িয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর