শুক্রবার, ২৮শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জনপ্রিয় হচ্ছে পারিবারিক পুষ্টি বাগান

news-image
তৌহিদুর রহমান নিটল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সময় আর চাহিদার সাথে পাল্লা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে পারিবারিক পুষ্টি বাগান। নানা জাতের শাক-সবজি আর বিভিন্ন ফলমূল চারা দিয়ে বসতবাড়ির আঙিনার পাশাপাশি অনাবাদি ও পতিত জমিতেও এই বাগান গড়ে তোলা হচ্ছে বলে কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। বাড়ির আঙিনার খালি জায়গা লাউ, শিম, বরবটি ,পুঁইশাক, লালশাক, পেপে গাছসহ বিভিন্ন প্রকার ফল গাছ শোভা পাচ্ছে।পরিবারের প্রতিদিনের পুষ্টির চাহিদা পূরণ হচ্ছে  এই ‘পারিবারিক পুষ্টি বাগান’ থেকে।
কৃষি সম্প্রসারণ অফিস ও সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলায় ৩৪ টি প্রদর্শনী স্থাপনে মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু করেছিল।বর্তমানে পর্যায়ক্রমে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ৫ শত পুষ্টি বাগান স্থাপনের জন্য কাজ করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। পারিবারিক পুষ্টি বাগান স্থাপনের উদ্দেশ্য হচ্ছে অনাবাদি, পতিত ও বসতবাড়ির অব্যবহৃত জমি ব্যবহারের মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি করা। এতে একদিকে পারিবারিক পুুষ্টির চাহিদা পূরণ হবে,অন্যদিকে  জাতীয় ফসলেরও উৎপাদন হবে। বসতবাড়ির আঙ্গিনাসহ প্রতি ইঞ্চি কৃষি জমি সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, সেই সঙ্গে সারাবছর সবজি ও ফলের চাহিদা মেটাতে শুরু হয়েছে ‘পারিবারিক পুষ্টি বাগান’ স্থাপনের কার্যক্রম।যেসব পরিবারের এক থেকে দেড় শতাংশ পরিমাণ পতিত জমি আছে, তারা এই সুবিধা পাবে। বীজ, সার ও বেড়া দেওয়ার জন্য উন্নত মানের নেটের ব্যবস্থাসহ সাইনবোর্ড টাঙানোর কাজ করে দেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এরই মধ্যে আগ্রহীদের প্রশিক্ষণসহ সব ধরণের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। চাষিরা সুফলও পাচ্ছেন।
কৃষক ইদ্রিস মিয়া জানান, কৃষি অফিসের সহযোগিতায় আমার বাড়ির আঙ্গিনায় সবজি বাগান করেছি তা থেকে পারিবারিক সবজির চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি বাড়তি আয় হচ্ছে।এতে করে পারিবারিক সচ্ছলতাও ফিরে এসেছে পারিবারিক সবজি বাগানের কল্যাণে।
আরেক কৃষক সামসু মিয়া বলেন, বাগানে উৎপাদিত নানা রকমের বিষমুক্ত সবজি নিজেদের প্রয়োজন মিটিয়ে বাজারজাত করে বাড়তি অর্থ আয় সম্ভব হচ্ছে। পরিচর্যা ও পরামর্শের বিষয়ে সার্বক্ষণিক কাজ করছে কৃষি কর্মকর্তারা।
আখাউড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শাহানা বেগম  জানান, প্রস্তাবিত খামারের মডেল এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যে একজন কৃষক সব সময়ই খামার থেকে কিছু না কিছু পাবেনই। কখনো সবজি থাকবে, আবার কখনো থাকবে ফল। এজন্য উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে।  কৃষকরা বেশ সুফল পাচ্ছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

র‌্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইইউ পার্লামেন্ট সদস্যের চিঠি ‘ব্যক্তিগত’ : রাষ্ট্রদূত

লাল না সবুজ, কোন আপেলে বেশি পুষ্টি?

বিএনপি লবিস্ট নিয়োগ করে র‍্যাবের বিরুদ্ধে এ ঘটনা ঘটিয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কেনিয়ায় জনপ্রিয় ফুটবল ভক্তকে নিজ বাসায় কুপিয়ে হত্যা

অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতার আবেদনের সময় বাড়াল কাতার

দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার, সঠিক তদন্ত চান শিক্ষামন্ত্রী

ক্ষমতায় গেলে র‌্যাব-পুলিশের খারাপ সদস্যদের বাদ দেওয়া হবে : গয়েশ্বর

বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের টাকার পাই পাই হিসাব দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

গাঁজা খেলে যৌনসুখ বাড়ে!

গণধর্ষণের পর চুল কেটে ঘোরানো হলো রাস্তায়

আমেরিকার বঙ্গ সম্মেলনের শুভেচ্ছাদূত চিত্রনায়ক শাকিব

রাত পোহালেই চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন