বৃহস্পতিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

এবার ভ্যাকসিনে আতঙ্ক!

news-image

প্রায় এক বছরের বেশি সময় ধরে গোটা বিশ্ব মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করছে। অদৃশ্য ভাইরাস ইউরোপ-আমেরিকাকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে। বাংলাদেশে তেমন প্রভাব ফেলতে না পারলেও প্রায় আট হাজার প্রাণহানি ঘটেছে। টিকা প্রয়োগের পথে গোটাবিশ্ব। বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কিনেছে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে প্রস্তুত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম চালান আসার কথা রয়েছে। টিকার জন্য মুখিয়ে থাকা জাতি এখন টিকা নিতে অনীহা দেখাচ্ছে। ভারত, নরওয়ে, যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে টিকা গ্রহণের পর বিরূপ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেয়া দিয়েছে। এসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার খবরে বাংলাদেশে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

ভারতে গেলো কয়েকদিনে অক্সফোর্ডের টিকার বড় পরিসরে প্রয়োগ শুরু হয়েছে। সেই সাথে ভারত বায়োটেকের তৈরি কো-ভ্যাকসিনও প্রয়োগ করা হচ্ছে। টিকা গ্রহণের পর সেখানে প্রতিক্রিয়া হিসেবে অনেকে জ্বর, মাথাব্যথা এবং বমিভাব অনুভব করছে। এসব উপসর্গকে টিকাদানের বিরূপ প্রতিক্রিয়া বা অ্যাডভার্স ইভেন্ট ফলোইং ইমিউনাজেশন (এইএফআই) বলে বর্ণনা করা হচ্ছে। ভারতে টিকা গ্রহণের পার অন্তত ৪৪৭ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে উত্তরপ্রদেশের একটি সরকারি হাসপাতালের এককর্মী টিকা নেয়ার ২৪ ঘণ্টা পর মারা গেছেন। কলকাতায় ৩৫ বছর বয়সি এক নার্স টিকা নেয়ার পর অজ্ঞান হয়ে পড়েন। দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেসের নিরাপত্তা কর্মী টিকা নেয়ার পর তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়েছে। অসুস্থদের মধ্যে কারা কারা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত কোভিশিল্ড এবং কারা ভারত বায়োটেকের তৈরি কো-ভ্যাকসিন নিয়েছেন, সেই পরিসংখ্যান ভারত সরকার প্রকাশ করেনি।

এর আগে টিকা গ্রহণের পর ইসরায়েলে বিরূপ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সেখানে ১৩ জন নাগরিকের মুখ অবশ হয়ে পড়েছে। টিকা গ্রহণের কয়েকদিনের মধ্যে নরওয়ের ২৩ প্রবীণের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। যাদের সবাইকে যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার ও জার্মানির বায়ো-এনটেক উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছিল। নরওয়েয়ান মেডিসিন এজেন্সি বলছে, গুরুতর অসুস্থদের ক্ষেত্রে করোনার এই টিকা খুব ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। এক বিবৃতিতে ফাইজার জানিয়েছে, বিষয়টা উদ্বেগের কিছু নয়। এমনটা প্রত্যাশিতই। এছাড়া, ফ্রান্সে এক কেয়ারহোমে টিকা নেয়ার দুই ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যু হয়েছে এক বৃদ্ধের। গত বৃহস্পতিবার দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, টিকা নেয়ার পর তীব্র অ্যালার্জির সমস্যা দেখা গেছে চারজনের ক্ষেত্রে। দুজনের হূৎকম্পন বেড়েছে অস্বাভাবিক।

টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে অনীহা তৈরি হচ্ছে: স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান বলেন, আমাদের নাগালেই রয়েছে আরেক কার্যকরী ভ্যাকসিন। মাস্ক পরিধান, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা ও নিয়মিত হাত ধোয়া। এসব অভ্যাস আমাদের দীর্ঘমেয়াদি সুরক্ষা দিতে পারে না। ভ্যাকসিন কখনো এই অভ্যাসের বিকল্প হতে পারে না।

তিনি বলেন, সরকার ভ্যাকসিন আনার উদ্যোগ নিয়েছে। অন্যদিকে ভ্যাকসিন গ্রহীতাদের মধ্যে দিনে দিনে অনীহা তৈরি হচ্ছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে আলোচনার ঝড় ওঠায় আমাদের দেশেও ভ্যাকসিন গ্রহণে অনীহা তৈরি হচ্ছে। এ বিষয়ে সরকারকে পরিষ্কার ধারণা দিতে হবে। গণমাধ্যমকেও অনুরোধ করবো তারা আতঙ্ক না ছড়িয়ে যাতে দেশের নাগরিকদের মধ্যে আতঙ্ক দূর করতে কাজ করেন।

টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে বাংলাদেশেও ভয় ছড়িয়ে পড়ছে: স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান বলেন, এ মাসেই দেশে ভ্যাকসিন আসছে। ভ্যাকসিন প্রয়োগের ক্ষেত্রে আমরা চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী, মুক্তিযোদ্ধা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও গণমাধ্যমকর্মীসহ সম্মুখযোদ্ধাদের অগ্রাধিকার প্রদান করবো।

তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে আলোচনা শোনা যাচ্ছে। বাংলাদেশেও এই আলোচনা থেকে ভয় ছড়িয়ে পড়ছে। মর্ডানা ও ফাইজার দুটোর ভ্যাকসিন নিয়ে মানুষ মারা গেছে। আমরা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশের ভ্যাকসিন আনবো। কেউ যাতে একসাথে একাধিক প্রতিষ্ঠানের ভ্যাকসিন গ্রহণ না করতে পারে সে বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে।

সব ওষুধ কিংবা টিকায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে এ নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ভ্যাকসিন নিয়েও এক শ্রেণি সমালোচনা করছে। তারা বলছে ভ্যাকসিন আসবে না। আবার চলে এলে বলবে সেটায় কাজ করবে না। এসব ষড়যন্ত্র করে লাভ হবে না। ষড়যন্ত্রে কান দেবেন না, ভ্যাকসিন আসবেই। আমরা ঠিক সময়েই দেবো। আমাদের টিকাদান কর্মসূচিতে বিশেষ সাফল্য রয়েছে। সারা দেশে ১৫ কোটি ভ্যাকসিন রাখার সক্ষমতা রয়েছে। ৪২ হাজার লোকবল করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য ট্রেনিং দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সবকিছুতেই কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকে। আমরা এখন যে সব টিকা দিচ্ছি কিংবা ওষুধ খাচ্ছি দেখবেন প্রত্যেকটিতেই কিছু না কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। করোনার ভ্যাকসিনেও আছে। এসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া যাতে কম মাত্রায় হয় আমরা সেই ব্যবস্থাপনাই করছি। সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার চিকিৎসা নিশ্চিতে নিবন্ধিতদের হাসপাতাল বা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভ্যাকসিন দেয়া হবে। ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর যদি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তবে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হবে। সূত্র : আমার সংবাদ

এ জাতীয় আরও খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন

টেস্টে ক্রিকেটে ৪০০ উইকেট শিকারের কীর্তি গড়লেন অশ্বিন

ওয়ানডেতে পৃথ্বীর ১৫২ বলে অপরাজিত ২২৭

ছাত্র ইউনিয়নের ৮ নেতা বহিষ্কার, ২ কমিটি বিলুপ্ত

রেলে ১০-১২ হাজার লোক নিয়োগ, জানালেন মন্ত্রী

২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪১০

বরকত-রুবেলের সাড়ে ৫ হাজার বিঘা সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

হুঙ্কার দিয়ে শিক্ষার্থীরা সড়ক ছাড়লেন

স্কুল-কলেজ বিষয়ে শনিবার সিদ্ধান্ত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফসলি জমির মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়, জমিগুলো হারাচ্ছে উর্বরতা 

পিলখানা হত্যার এক যুগ: এখনো ঝুলছে বিস্ফোরক মামলা

লিবিয়া উপকূলে জাহাজডুবি, ৪১ অভিবাসীর মৃত্যু