শুক্রবার, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ বাঁধাকপি

news-image

অনলাইন ডেস্ক : শীতের সবজি বলতে যেগুলোর কথা মাথায় আসে, তার মধ্যে অবশ্যই থাকে বাঁধাকপি। নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এই বাঁধাকপি কিন্তু হালের কোনো সবজি নয়, বরং এর চাষ হয়ে আসছে চার হাজার বছর ধরে। চীন, মধ্য ও পশ্চিম ইউরোপ আর মেসোপটেমিয়ায় বাঁধাকপি আবাদের ইতিহাস মেলে।

বাঁধাকপি খাওয়া যায় কাঁচা, রান্না করে ও শুকিয়ে। এর পুষ্টিগুণও কোন পদ্ধতিতে খাওয়া হচ্ছে, তার ওপর নির্ভর করে। এক কাপ আধা সেদ্ধ বাঁধাকপিতে পাওয়া যায় আমাদের প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিন সির তিন ভাগের এক ভাগ। ফাইবার তো আছেই; সেই সঙ্গে আছে ফোলেট, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন এ, কেসহ আরও অনেক উপাদান।

এক কাপ বা ৯০ গ্রাম বাঁধাকপিতে রয়েছে ২২ ক্যালরি শক্তি। প্রোটিন আছে ১ গ্রাম, ফাইবার ২ গ্রাম; আর প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিন সির ৫৪ শতাংশ, ভিটামিন কের ৮৫ শতাংশ, ফোলেটের ১০ শতাংশ, ম্যাঙ্গানিজের ৭ শতাংশ, ভিটামিন বি সিক্সের ৬ শতাংশ, ক্যালসিয়ামের ৪ শতাংশ, পটাশিয়ামের ৪ শতাংশ ও ম্যাগনেশিয়ামের ৩ শতাংশ মেলে।

বাঁধাকপি খুব মিহি করে কেটে ১০ মিনিট রেখে সালাদে ব্যবহার করলে এর সর্বোচ্চ পুষ্টিগুণ পাওয়া যায়।

বাঁধাকপিতে রয়েছে ভুরপুর অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট। এর ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস কোষকে সজীব রাখে, কোষের প্রদাহ দূর করে, ফোলা কমায়; যা ক্যানসার, হার্টের অসুখ, ডায়বেটিস ও আলঝেইমার প্রতিরোধে সহায়ক ভূমিকা রাখে বলে মনে করা হয়।

এর ফাইবার হজমে সহায়তা করার পাশাপাশি মন্দ কোলেস্টেরল কমায় এবং রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে। পাকস্থলী ও অন্ত্রের ভেতরের অংশকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি পাকস্থলীর আলসার নিরাময় করে।

লাল প্রজাতির বাঁধাকপি শরীরের জন্য বিশেষ উপকারী

বাঁধাকপি বিশেষত লাল প্রজাতির বাঁধাকপি শরীরের বেটা-ক্যারোটিন, লুটিন ও হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে সহায়ক অন্যান্য অ্যান্টি–অক্সিডেন্টের পরিমাণ বাড়ায়। ফলে হৃৎপিণ্ডের সুস্থতায় বাঁধাকপি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

এ ছাড়া একাধিক গবেষণায় জানা গেছে, বাঁধাকপি বিশেষ ধরনের ক্যানসার প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। আসলে সালফারসমৃদ্ধ উপাদান গ্লুকোসাইনোলেটস তৈরি হয় বাঁধাকপি থেকে, যা ক্যানসারের বিরুদ্ধে রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করে। এ ছাড়া টাইপ টু ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি কমায় বাঁধাকপি।

বাঁধাকপি খাওয়া যায় নানাভাবে। কাঁচা, আধা সেদ্ধ, ভাপা, ভাজা; এমনকি বেক করেও। আর কুচি কুচি করে কেটে কড়া রোদে শুকিয়ে বয়ামে ভরে রাখলে খাওয়া যায় বছরভর। আবার এর পাতা টরটিলা বা স্যান্ডউইচ ব্রেডের পরিবর্তে ব্যবহার করা যায়। এতে পুষ্টি মেলে, শর্করা কমে আর কমে ক্যালরিও।

আমাদের দেশে প্রচুর পরিমাণে বাঁধাকপি হয়। তাই পুষ্টির জন্য আমরা বেশি বেশি করে খেতে পারি এই সবজি। শীতকালজুড়ে রাখতে পারি সালাদে। আর এই বাঁধাকপি দিয়ে নানা ধরনের পদও রান্না হয়ে থাকে।