বৃহস্পতিবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

চলমান পরিবহন ধর্মঘটে অচল সিলেট বিভাগ

news-image

সিলেট প্রতিনিধি : পাথর কোয়ারি খুলে দেওয়ার দাবিতে চলমান পরিবহন ধর্মঘটে কার্যত অচল হয়ে পড়েছে সিলেট বিভাগ। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বিভাগের সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলার স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। অবর্ণনীয় দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ।

৭২ ঘণ্টার টানা ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন বুধবারও দূরপাল্লার বাস-ট্রাক চলাচল করেনি। ফলে সিলেটের সঙ্গে রাজধানী ঢাকাসহ আন্তঃজেলা সড়ক যোগাযোগ ভেঙে পড়েছে। এ অবস্থায় ট্রেনই একমাত্র ভরসা হওয়ায় এতে যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড়। অনেকের পক্ষে ট্রেন ভ্রমণ সম্ভব হচ্ছে না। বিভিন্ন গন্তব্যের যাত্রী ও আটকেপড়া লোকজন অসহায় হয়ে পড়েছেন।

সিলেট নগরীতে চলাচলকারীরা রিকশা ও ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলে যাতায়াত করছেন। এজন্য তাদেরকে বেশি ভাড়া দিতে হচ্ছে।

ভুক্তভোগীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলছেন, সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে পাথর উত্তোলনের মতো পরিবেশবিনাশী কাজের অনুমতি আদায় করতে চাচ্ছে সুবিধাভোগীরা। তারা এ ব্যাপারে প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে পাথর উত্তোলনের অনুমতির দাবিতে ডাকা পরিবহন ধর্মঘটকে আদালত অবমাননার শামিল উল্লেখ করে বিবৃতি দিয়েছেন সিলেটের ১০ জন বিশিষ্ট নাগরিক।

গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে তারা বলেন, আদালতের নির্দেশে পাথর কোয়ারিতে যন্ত্র ব্যবহার করে পরিবেশবিনাশী কর্মকাণ্ড বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় পরিবহন ধর্মঘটের নামে চলমান আদালত অবমাননাকর কার্যক্রমের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের কোনো কার্যকর ভূমিকা লক্ষ করা যায়নি। বিষয়টি নিয়ে আমরা খুবই উদ্বিগ্ন।

বিবৃতিদাতারা হলেন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা) সিলেটের সমন্বয়ক শাহ শাহেদা আক্তার, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সিলেটের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহীদুল ইসলাম, সিলেট প্রেস ক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, ব্লাস্টের সমন্বয়ক ইরফানুজ্জামান চৌধুরী, সনাক সভাপতি সমিক শহিদ জাহান, আইডিয়ার নির্বাহী পরিচালক নজমুল হক, জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি সিলেটের সমন্বয়ক সৈয়দা শিরীন আক্তার, মণিপুরী সাহিত্য সংসদের সভাপতি কবি এ কে শেরাম ও পরিবেশ আন্দোলন সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম কিম।

এদিকে পাথর-সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতা শাব্বীর আহমদ ফয়েজ বলেন, পাথর কোয়ারি বন্ধ থাকায় এই খাতের অন্তত ১৫ লাখ মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তাই জীবন-জীবিকা বাঁচাতে তারা বাধ্য হয়ে কঠোর আন্দোলনে নেমেছেন। তিনি মানবিক কারণে পাথর কোয়ারিতে সনাতন পদ্ধতিতে পাথর উত্তোলনের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান।

সিলেটের পাথর কোয়ারিগুলো খুলে দেওয়ার দাবিতে পাথর-সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সমর্থনে সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ড ভ্যান মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ গত মঙ্গলবার থেকে সিলেট বিভাগে টানা ৭২ ঘণ্টা পরিবহন ধর্মঘট শুরু করে। ধর্মঘটের কারণে কিছু প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ছাড়া সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এদিকে ধর্মঘট শুরুর আগের দিন সোমবার সন্ধ্যায় সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম ধর্মঘট আহ্বানকারী নেতৃবৃন্দকে নিয়ে এক সভা করেন। তবে অনড় মনোভাবের কারণে সভা ফলপ্রসূ হয়নি।

এরপর দুই দিন ধরে ধর্মঘট চললেও গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রশাসন কোনো বৈঠক কিংবা আলোচনার উদ্যোগ নেয়নি বলে জানিয়েছেন সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ড ভ্যান মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি গোলাম হাদী ছয়ফুল। তিনি দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য ধর্মঘট কিংবা জনগণকে কষ্ট দেওয়া নয়। ১৫ লাখ মানুষের জীবিকা রক্ষায় আমরা আন্দোলনে নেমেছি। এ ব্যাপারে প্রশাসনের আশ্বাস পেলে আমরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেব।’

এ জাতীয় আরও খবর

স্পেনে ৩১৯ অভিবাসী উদ্ধার, নিহত ১৮

সিলেটের সাংবাদিকদের হাতাহাতিও থামালেন জাফর ইকবাল

‘ফায়ার ইমোজি’র মতো পোশাক, কটাক্ষের শিকার দীপিকা

সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে তুলতে ভারতের সঙ্গে কাজ করবে বাংলাদেশ

দেশে প্রতি ১০ জনে ৭ জন মারা যাচ্ছে অসংক্রামক রোগে

সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত আমির খসরু

‘শাবিতে পুলিশি হামলার সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে’

কাস্টমসকে আরো প্রযুক্তিনির্ভর হতে হবে

সিয়াম আমার মন জয় করে নিয়েছে, ‘ভক্ত’ হয়ে গিয়েছি : রিয়াজ

ওমিক্রন নিয়ে ‘ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন’ চূড়ান্ত

টিআইবি রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহৃত হয় : তথ্যমন্ত্রী

ভারত ও মিয়ানমার থেকে আসা বিষাক্ত বস্তুকণায় দূষিত ঢাকার বাতাস