শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রতিপক্ষের মাঠে আবারও অচেনা রিয়াল মাদ্রিদ

Rialস্পোর্টস ডেস্ক : প্রতিপক্ষের মাঠে আরও একটি ম্যাচ, আরও একবার অচেনা রিয়াল মাদ্রিদ। আরও একবার জয়বঞ্চিত। এগিয়ে গিয়েও মালাগার মাঠ থেকে আজ ১-১ গোলের ড্র নিয়ে ফিরল রিয়াল।

প্রতিপক্ষের মাঠে খেলার আগে জিনেদিন জিদান হয়তো এরপর থেকে টিম মিটিংয়ে পাটিগণিতের চিরায়ত দুটি শব্দ ব্যবহার করবেন—‘মনে করি’। বক্তব্যের শুরুটা এমন হতে পারে, ‘মনে করি আমরা সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে খেলছি। সাধারণত সেখানে যেভাবে খেলি, ওরকম করে খেললেই হবে।’

এ ছাড়া আর কী-ই বা করতে পারেন রিয়াল কোচ? প্রতিপক্ষের মাঠে এলেই যে কেমন যেন অচেনা হয়ে পড়ে তাঁর দল। গত জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেওয়ার পর লিগে এর আগে প্রতিপক্ষের মাঠে তিনটি ম্যাচ খেলেছে ‘লস ব্লাঙ্কো’রা। একটিতেই শুধু জিততে পেরেছে, বাকি দুটিই ড্র।

ড্র করল মালাগার মাঠেও। অবশ্য দায়টা আজ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কাঁধেই পড়বে। পেনাল্টি থেকেও যে গোল করতে ব্যর্থ হয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড। তবে ৩৩ মিনিটে তাঁর গোলেই এগিয়ে গিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ফ্রি কিক থেকে টনি ক্রুসের ক্রস পেয়ে বক্সের মাঝ থেকে হেড করেন রোনালদো। মালাগা গোলকিপারের পক্ষে সেটি ঠেকানো সম্ভব হলো না।

রোনালদো ‘হিরো’ থেকে ‘ভিলেনে’ পরিণত হলেন মাত্র তিন মিনিটের মধ্যে। ৩৬ মিনিটে মালাগা ডিফেন্ডার ওয়েলিংটন তাঁকেই বক্সে ফাউল করায় পেনাল্টি পায় রিয়াল। কিন্তু সেটি থেকে গোল করতে পারলেন না পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। ডান দিকে নেওয়া তাঁর দুর্বল শটটি ঠেকিয়ে দেন মালাগা গোলকিপার কার্লোস কামেনি।

বিরতির পর রোনালদোর আক্ষেপ আরও বাড়িয়ে দিলেন মালাগা ডিফেন্ডার রাউল রেদাল। ওয়েলিংটনের ক্রস থেকে বক্সের মাঝে বল পেয়েছিলেন রেদাল, তাঁর ডান পায়ের শট ঠেকাতে পারেননি রিয়াল গোলকিপার কেইলর নাভাস। এরপরও কিছু সুযোগ পেয়েছিল রিয়াল। কিন্তু রোনালদো, মার্সেলো, হামেসরা সেগুলো কাজে লাগাতে না পারায় ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ে রিয়াল।

গতকাল জিতে রিয়ালের চেয়ে ১০ পয়েন্ট এগিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা। এই ম্যাচের আগে তাই রিয়াল কোচ জিদান বলেছিলেন, ‘বার্সার সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমানোটা কঠিনই হবে। তবে আমরা চেষ্টা করব।’ কিন্তু আরও একবার অ্যাওয়ে ম্যাচ ‘জুজু’তে পয়েন্ট হারানোয় ব্যবধানটা এখনো ৯-ই রয়ে গেছে। লিগ শিরোপাটাও কি হাতছাড়া হয়ে গেল রিয়ালের?