শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিক্রি কম, দেশি গরুতে আগ্রহ

news-image

রাজধানীর পশুর হাটগুলো গতকাল শনিবার থেকে শুরু হয়েছে। প্রায় সব হাটে প্রচুর গরু-ছাগল এসেছে। শুক্রবার রাত ও গতকাল সারা দিনে বিভিন্ন জেলা থেকে মৌসুমি বিক্রেতাসহ খোদ খামারিরাও গরু নিয়ে এসেছেন ২২টি হাটে। হাটে আসা অধিকাংশ গরুই দেশি জাতের। ভারত, পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ান জাতের অল্পসংখ্যক গরুও দেখা গেছে। বিক্রেতারা বলছেন, দেশি গরুর দাম একটু বেশি। গতকাল বেশ কয়েকটি হাটে গিয়ে দেখা যায়, প্রচুর লোক থাকলেও বেশির ভাগই দাম যাচাই করছে। ব্যাপারীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে, ট্রাক নিয়ে আসার সময় রাস্তার পার্শ্ববর্তী হাটের ইজারাদারের লোকজন জোর করে গরু নামিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। রাজধানীর হাটগুলোতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে। ওয়াচ টাওয়ার ও সিসিটিভি ক্যামেরায় চলছে পর্যবেক্ষণ।cow

গতকাল হাটগুলো ঘুরে দেখা গেছে, সারা দিনই ট্রাক-পিকআপে করে কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ, ফরিদপুর, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে গরু নিয়ে আসছেন ব্যবসায়ী ও খামারিরা। প্রতিটি ট্রাকে ১৫ থেকে ২০টি গরু রয়েছে। ব্যবসায়ীরা জানান, এবার হাটের মেয়াদ সাত দিন করা হয়েছে। এ জন্য আগেভাগেই গরু নিয়ে আসছেন তাঁরা। গতকাল দুপুরে শাহজাহানপুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, সকালে বৃষ্টি হওয়ায় কাদা ও গরুর বর্জ্যে একাকার পুরো এলাকা। ক্রেতারাও হাটের ভেতরে খুব একটা ঢুকছে না। বাইরে থেকে অনেকে গরু দেখে চলে যাচ্ছে। কুষ্টিয়া থেকে পাঁচটি দেশি প্রজাতির গরু নিয়ে শাহজাহানপুর হাটে এসেছেন আব্দুল আলীম। প্রতিবছর এখানেই গরু নিয়ে আসেন তিনি। জানান, শুক্রবার রাতে এসেছেন। গতকাল কয়েকজন ক্রেতা দাম জেনে চলে গেছে। একই কথা জানান ঝিনাইদহ থেকে আসা ব্যবসায়ী মো. মশিউর রহমান। তিনি বলেন, 'প্রথম দফায় চারটি দেশি গরু নিয়ে এসেছি। ব্যবসা ভালো হলে আরো আনব। তবে রাস্তায় পড়া অন্যান্য হাটের লোকজন গরু নামিয়ে নিতে চেষ্টা চালায়। এ জন্য অনেকক্ষণ ট্রাক আটকে ছিল।' গতকাল এ হাটের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন শাহজাহানপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল মাবুদ। তিনি বলেন, 'আমরা একটি ওয়াচ টাওয়ার ও পুরো হাটকে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় এনে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি। জাল টাকা শনাক্ত করতে চারটি বুথ বসানো হয়েছে। এ ছাড়া বাইরে অজ্ঞান আর মলম পার্টি প্রতিরোধে বিশেষ টিম কাজ করছে।'

কমলাপুর হাটে গিয়ে দেখা যায়, নটর ডেম কলেজ থেকে আর কে মিশন রোড পর্যন্ত প্রচুর গরু। কমলাপুর রেললাইন ঘেঁষেও গরু নিয়ে দাঁড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ট্রাক থেকে নামানোর পর গরুর যত্নে ব্যস্ত ব্যবসায়ীরা। হাটে স্কুলের ছাত্র ও এলাকার শিশুদের উপস্থিতিই বেশি চোখে পড়ে। দল বেঁধে হাটের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছুটে বেড়াচ্ছে তারা। কোনো গরু পছন্দ হলেই মোবাইল ফোনে তুলে নিচ্ছে ছবি। এ হাটে আসা কুষ্টিয়ার ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক জানান, তিনি তিনটি গরু নিয়ে এসেছেন। এর মধ্যে বড়টির দাম চান দুই লাখ ৩০ হাজার টাকা। ফরিদুপর থেকে চারটি গরু এনেছেন শাহিদুল ইসলাম। ছোট একটি গরুর দাম চাইলেন ৪৫ হাজার টাকা। আকৃতি অনুযায়ী দাম একটু বেশি বলে নিজেরাই স্বীকার করলেন বিক্রেতারা। কমলাপুর হাটে ট্রাক থেকে গরু নামানোর পর একটি গরু মারা যেতেও দেখা যায়। বিকেল পৌনে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। গরুটির মালিক কুষ্টিয়ার উম্মত আলী জানান, দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে আসায় গরুটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ হাটে কিছু ছাগলও চোখে পড়েছে। দাম ১২ হাজার থেকে ১৭ হাজার টাকা পর্যন্ত চাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর ইসলাম চেয়ারম্যানবাড়ির মোড় থেকে দক্ষিণ বুড়িগঙ্গা নদীর বাঁধসংলগ্ন জায়গার হাটের ইজারা নিয়েছেন ৫৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন। তিনি বলেন, 'ঢাকার বাইরে থেকে আমাদের হাটে গরু নিয়ে আসতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। হাজারীবাগ হাটের লোকজন জোর করে ট্রাক আটকিয়ে গরু নামিয়ে নিচ্ছে।' তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হাজারীবাগ হাটের ইজারাদার জাহিদুল ইসলাম রাজীব। একই অভিযোগ গাবতলী হাটের ইজারাদারের প্রতিনিধি রাকিব ইমরানেরও। তিনি জানান, রায়েরবাজারে নতুন হাট বসায় সেখানকার লোকজন গরুর ট্রাক আটকে দিচ্ছে। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেন রায়েরবাজার হাটের ইজারাদার আহসানুল মোস্তাফিজ রাব্বি। তিনি বলেন, 'নতুন হওয়ায় ঢাকার বাইরে থেকে আসা ব্যাপারীরা রায়েরবাজার হাটটিকেই নিরাপদ মনে করছেন। তাঁরা নিজেরাই আমাদের হাটে গরু নিয়ে আসছেন।'