শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অগ্রণী ব্যাংকে ডাকাতি ২১ লাখ টাকা লুট

news-image

যশোর শহরতলির রাজারহাট অগ্রণী ব্যাংকে গ্যাস কাটার দিয়ে ভল্ট কেটে ২১ লাখ আট হাজার টাকা লুট করে নিয়ে গেছে ডাকাতরা। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পাহারাদার দুই আনসার সদস্যকে বেঁধে রেখে এ ঘটনা ঘটায় ডাকাতরা। ব্যাংকের সিসি ক্যামেরাটি ভাঙা পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুটি গ্যাস সিলিন্ডার ও কিছু দড়ি উদ্ধার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই দুই আনসার সদস্যকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে মুখোশ পরা পাঁচ থেকে ছয়জন ডাকাত দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ওই ব্যাংকের দায়িত্বরত দুজন নৈশপ্রহরী আনসার সদস্যকে বেঁধে মারপিট করে। পরে তারা জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে ঢোকে এবং গ্যাস কাটার দিয়ে ভল্ট কেটে ২১ লাখ আট হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। তবে আনসার সদস্য বিশ্বজিৎ ও সাইদুল ইসলামের কাছে একটি দোনলা বন্দুক থাকলেও দুর্বৃত্তরা সেটি নেয়নি। নৈশপ্রহরী বিশ্বজিৎ ও সাইদুল জানিয়েছেন, 'তাঁরা ব্যাংকের একটি ঘরে শুয়ে ছিলেন। গভীর রাতে দুজন লোক অস্ত্রের মুখে তাঁদের মারধর করে বেঁধে রাখে। সে সময় বাইরে আরো কয়েকজনের কথাবার্তাও শোনা যাচ্ছিল।'

এ বিষয়ে অগ্রণী ব্যাংকের যশোর অঞ্চলের উপমহাব্যবস্থাপক ওয়াদুদ আলী মুন্সি বলেন, 'গ্যাস দিয়ে গ্রিল আর জানালার রড কেটে ব্যাংকের ভেতরে ঢোকে ডাকাতরা। এরপর তারা ভল্ট কেটে ২১ লাখ আট হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।' ব্যাংকটি যে ভবনে রয়েছে সেই ভবনের মালিক কাউসার আলী বলেন, 'মসজিদ থেকে ফজরের নামাজ পড়ে বের হওয়ার পর এক ভাড়াটিয়া আমাকে ফোন করে জানান, দোতলা থেকে শব্দ পাওয়া যাচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে উপরে গিয়ে দেখি, ব্যাংকের দুই নৈশপ্রহরী বাঁধা অবস্থায় পড়ে আছেন। পরে ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও পুলিশকে ফোন করি। খবর পেয়ে পুলিশ এসে নৈশপ্রহরীদের থানায় নিয়ে যায়।'

যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের বলেন, 'দুই নৈশপ্রহরীকে আমি জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। দ্রুতই এ ঘটনার রহস্য উন্মোচন হবে। জড়িতদের আটক করতে অভিযান শুরু হয়েছে।'