বৃহস্পতিবার, ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র প্রতিরক্ষা সম্পর্ক ক্রমবর্ধমান

news-image

বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষাবিষয়ক সম্পর্ক ক্রমবর্ধমান। দুদেশই শান্তি ও আঞ্চলিক সমৃদ্ধির প্রতি প্রতিশ্রুতিতে অভিন্ন অবস্থানে। যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা ইস্যুতে অনুষ্ঠিত সংলাপের পর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়েছে। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে নিরাপত্তা ইস্যুতে চতুর্থ বার্ষিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপক্ষীয় ও কনস্যুলার) মিজানুর রহমান ও যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক-সামরিক ব্যুরোর ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি টড চ্যাপম্যান এ সংলাপে সভাপতিত্ব করেন। নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা করেন তারা। সংলাপে একে একে উঠে আসে কৌশলগত অগ্রাধিকার ইস্যু, আঞ্চলিক সহযোগিতা, দেশ দুটির মধ্যে সামরিক সহযোগিতা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সাইবার নিরাপত্তা, সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াই, মানবিক সহায়তা, জাতিসংঘে শান্তিরক্ষা, সমুদ্র ও সীমান্ত নিরাপত্তা কার্যক্রমসহ গুরুত্বপূর্ণ নানা বিষয়। এ সংলাপের ফলে যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের পারস্পরিক সম্পর্কের ভিত আরও দৃঢ় ও স্থায়ী হবে বলে আশা প্রকাশ করেন উভয় রাষ্ট্রের প্রতিনিধিবর্গ। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র একটি মিডিয়া নোটে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ওই বিবৃতিটি এখানে তুলে ধরা হলো:
১১ই সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক-সামরিক সম্পর্ক বিষয়ক ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি টড চ্যাপম্যান ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপক্ষীয় ও কনস্যুলার) মিজানুর রহমান ওয়াশিংটন ডিসিতে নিরাপত্তা ইস্যুতে চতুর্থ বার্ষিক যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সংলাপে সভাপতিত্ব করেন। সংলাপটি বাংলাদেশের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান প্রতিরক্ষা সম্পর্ক ও অঞ্চলটিতে শান্তি ও সমৃদ্ধি ইস্যুতে আমাদের পারস্পরিক প্রতিশ্রুতির বিষয়টি প্রতিফলিত করে। আলোচনায় গুরুত্বপূর্ণ নানা বিষয় স্থান পেয়েছে। এর মধ্যে কৌশলগত অগ্রাধিকার ইস্যু ও আঞ্চলিক সমস্যাসমূহ, নিরাপত্তা সহযোগিতা, সাইবার নিরাপত্তা, শান্তিরক্ষা, উভয় রাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা ও সন্ত্রাসবাদবিরোধী বিষয়সমূহ অন্তর্ভুক্ত। সংলাপে অংশগ্রহণকারীরা মানবিক সহায়তা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সমুদ্র ও সীমান্ত নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট বিষয়সমূহ নিয়ে আলোচনা হয়।
ওদিকে ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশ দূতাবাস এক প্রেসনোটে বলেছে, ওই সংলাপে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট। বিশ্বব্যাপী জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের ভূয়সী প্রশংসা করা হয় যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের আসন্ন ৭০তম অধিবেশনের পাশাপাশি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন নিয়ে যৌথভাবে একটি সম্মেলন আয়োজন করার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার। আলোচনায় এ বিষয়টিও প্রাধান্য পায়। 

এ জাতীয় আরও খবর

হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় বাড়লো

খালেদাকে পদ্মা সেতুতে তুলে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় হত্যা, চারজনের যাবজ্জীবন

সিলেটে বন্যার্তদের পাশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ক্লাসরুমে ফ্যান খুলে পড়ে চার ছাত্রী আহত

ঘরে বসে খুব সহজেই করে ফেলুন পার্লারের মতো হেয়ার স্পা

সামরিক সহায়তা চাইলো মিয়ানমারের ছায়া সরকার

হত্যা মামলায় তিন ভাইসহ চারজনের যাবজ্জীবন

এমপির গাড়িবহরে ট্রাকচাপায় লাশ হলেন ছাত্রলীগ নেতা

কান উৎসবে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের ট্রেইলার, ফ্রান্সের পথে তথ্যমন্ত্রী

শ্রমিকের তীব্র সঙ্কট, বৃষ্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে ধান

পল্লবীর অনুপস্থিতিতে ফ্ল্যাটে কে আসতেন, মুখ খুললেন পরিচারিকা