মঙ্গলবার, ১৭ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বর্তমান সরকার দেশের প্রতিটি সেক্টরকে ডিজিটাল সিস্টেমে আনার জন্য কাজ করছে-ইউএনও

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদকসদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডঃ আশরাফুল আলম বলেছেন, বর্তমান সরকার দেশের প্রতিটি সেক্টরকে ডিজিটাল সিস্টেমে আনার জন্য কাজ করছে। ইতিমধ্যে দেশবাসী ডিজিটাল সেবা ভোগ করা শুরু করেছেন। দেশকে এগিয়ে নিতে হলে ডিজিটাল সিস্টেমের কোন বিকল্প নেই। তিনি বুধবার সকালে সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের বাকাইল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সদর উপজেলার ডিজিটাল মেলা ও ইন্টারনেট সপ্তাহ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও মজলিশপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডঃ আশরাফুল আলম আরো বলেন, ইন্টারনেট ব্যবহার একটি জটিল বিষয়। যে ব্যক্তি ইন্টারনেট ব্যবহারের উপযোগী তাকেই শুধু ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদেরকে ডিজিটাল প্রযুক্তি সম্পর্কে জানার জন্যই আজকের এই ডিজিটাল মেলা। তিনি বলেন, ঘরে বসেই আমরা এখন সারাটা বিশ্বকে হাতের মুঠোই আনতে পারি।
ডঃ আশরাফুল আলম বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তির কারনে শিক্ষার্থীরা এখন ঘরে বসেই তাদের পরীক্ষার ফলাফল জানতে পারে।  তিনি বলেন, ইন্টারনেটের খারাপ দিকগুলোকে আমাদেরকে বর্জন করে ভালো দিকটি আমাদেরকে শিখতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সারা দেশটাকে ডিজিটাল সিস্টেমের আওতায় আনার জন্য কাজ করছে। ইউনিয়ন পর্যায়ে তথ্যসেবা কেন্দ্র চালু করেছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব, মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ রুম স্থাপন করেছে। তিনি বলেন, বাকাইল উচ্চ বিদ্যালয়ে কম্পিউটার ল্যাব, আইসিটি স্থাপন করা হবে। তিনি বলেন, বাকাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি কম্পিউটার প্রদান করা হবে। তিনি বলেন, দেশে আইসিটি আইন হয়েছে। কেউ যদি ইন্টারনেটের অপব্যবহার করে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, ডিজিটাল মেলা থেকে তৃণমূলের লোকজন ইন্টারনেট সম্পর্কে জানতে পারবে। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে অফিস-আদালত, ব্যাংকসহ সকল সরকারি- বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট ব্যবহার শুরু হয়েছে। তিনি শিক্ষার্থীদেরকে ইন্টারনেটের ভালো দিকগুলো আয়ত্ব করার আহবান জানান।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জীবন ভট্টাচার্য, উপজেলা কৃষি অফিসার কে.এম. বদরুল হক ও সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব আলম।
বাকাইল উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ এনামুল হকের পরিচালনায় পিটিআই’র ইন্সট্রাক্টর জিন্নাতুন নাহার, জিল্লুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল বাশার, নিয়াজ মুহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সাহিদুল ইসলাম, চিনাইর আঞ্জুমান আরা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মোশারফ হোসেন, বাকাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল হক, বাকাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শাহজাহান সরকার, মজলিশপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সদর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিল্লাল আহমেদ, সাবেক মেম্বার দেওয়ান আলী। ডিজিটাল মেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৭টি স্টল স্থান পায়। আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিগন মেলার স্টলগুলো ঘুরে ঘরে দেখেন।

 

এ জাতীয় আরও খবর