বুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যৌতুকের বলি : শ্বশুরবাড়িতে স্ত্রী-শিশু কন্যাকে শ্বাসরোধে হত্যা

news-image

যৌতুকের বলি হল এক তরুণী গৃহবধূ ও তার শিশু কন্যা। তাদের হত্যার জন্য শ্বশুর বাড়িকেই বেছে নিল পাষন্ড স্বামী আবদুল রউফ সরদার। সোমবার দিনগত রাতে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের তারালি গ্রামে বাপের বাড়িতে স্বামীর হাতে খুন হন সাবিনা ইয়াসমিন (২৬) ও তার শিশু কন্যা আয়েশা খাতুন (২)। পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করেছে। গ্রেফতার করা হয়েছে যৌতুকলোভী পাষন্ড স্বামী রউফকে। পুলিশের কালিগঞ্জ সার্কেলের এএসপি মীর মনির হোসেন জানান, গৃহবধূর স্বামী নলতার ঘোনা গ্রামের আবদুর রউফ সরদার সোমবার সন্ধ্যায় তার শ্বশুরবাড়ি তারালিতে যান। এ সময় তার স্ত্রীর সঙ্গে যৌতুকের মোটর সাইকেল কেনার টাকা নিয়ে ঝগড়া হয়। পরে রাতে সবাই ঘুমিয়ে পড়ে। একপর্যায়ে রাতের কোন এক সময়ে সাবিনা ও তার শিশু কন্যা আয়েশাকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।
নিহত সাবিনার মা জাহানারা খাতুনের বরাত দিয়ে তিনি জানান, রাত সাড়ে ১২টার দিকে তিনি বাড়ির মধ্যে একটি শব্দ শুনতে পান। বাইরে এসে দেখতে পান তার জামাতা রউফ সাইকেলে দ্রুত চলে যাচ্ছে। ঘরে ঢুকে তিনি দেখেন তার মেয়ে সাবিনা ও নাতনি আয়েশার লাশ ।   
এএসপি আরও জানান, ঘটনার পরপরই স্বামী আবদুর রউফ তার বাড়ি নলতার ঘোনা গ্রামে  পালিয়ে  যান । খবর পেয়ে  পুলিশ  রাতেই তাকে  তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে।  তিনি জানান, আবদুর রউফ প্রাথমিকভাবে এই জোড়া খুনের  কথা স্বীকার করেছেন। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন অসুস্থ মায়ের চিকিৎসার জন্য তার টাকার প্রয়োজন ছিল। কিন্তু শ্বশুর তা না দেয়ায় রাগে ও ক্ষোভে  তিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।    
লাশ দুটি ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে  ।