সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের জয়ে ‘ষড়যন্ত্র’ আবিষ্কার পাকিস্তানে

news-image

ভারতের বিপক্ষে একদিনের সিরিজে প্রথম খেলায় জয়ের পর যখন প্রশংসায় ভাসছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা, তখন এই জয়ের পেছনে ‘গভীর ষড়যন্ত্র’ দেখছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার সরফরাজ নওয়াজ।

বাংলাদেশের কাছে ভারতের ৭৯ রানে হারের পর এশিয়ার আরেক ক্রিকেট শক্তি পাকিস্তানের বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ‘দুনিয়া নিউজ’ এর ‘ইয়ে হ্যায় ক্রিকেট দিওয়াঙ্গি’ অনুষ্ঠানে তা নিয়ে আলোচনা ওঠে।

অনুষ্ঠানে উপস্থাপক আলিনা ফারুক কথা বলার ফাঁকে বাংলাদেশের কাছে ভারতের হারের কারণ সম্বন্ধে জানতে চান পাকিস্তানের সাবেক ফাস্ট বেলার সরফরাজ নওয়াজের কাছে।

১৯৬৯ সালে পাকিস্তান দলে অভিষেক হওয়ার পর অর্ধশতাধিক টেস্টে দেড় শতাধিক উইকেট নেওয়া সরফরাজ স্টুডিওতে উপস্থিত ছিলেন না, তিনি টেলিফোনে যুক্ত হন অনুষ্ঠানে।

উপস্থাপকের প্রশ্নের জবাবে সরফরাজ বলেন, “পাকিস্তান যেন ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নিতে না পারে, এজন্যই ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বাংলাদেশকে ম্যাচ ছেড়ে দিয়েছে।”

অনুষ্ঠানটির ভিডিও ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ফেইসবুকে। সেখানে পাকিস্তানি এ সাবেক ক্রিকেটারকে ধিক্কার দেওয়ার পাশাপাশি হাস্যরসেও মেতেছেন টাইগার সমর্থকরা।

ভারতের সঙ্গে এই জয়ের এক মাস আগেই ঢাকায় পাকিস্তানকে এক দিনের সিরিজে হোয়াইট ওয়াশ করে টাইগাররা।  

অনুষ্ঠানে আলিনা ফারুক জিজ্ঞেস করেন, “সরফরাজ সাহেব, আপনার কী মনে হয়? বাংলাদেশ কি আগের চেয়ে বেশি চৌকস হয়েছে, না কি ভারত এর মধ্যে কিছু যুক্ত করেছে। এটা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র নয় তো?”

সরফরাজ নওয়াজ

জবাবে সরফরাজ বলেন, “না, না। ষড়যন্ত্র তো অবশ্যই আছে। কেননা ভারত কখনোই চায় না, পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলুক।

“আমার মনে হয়, কিছুদিন আগে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর যে বৈঠক হয়েছে, মোদী যেভাবে পাকিস্তানের বিপক্ষে কথা বলেছেন, এ থেকে এটা নিশ্চিত বোঝা যায় যে ভারত চেষ্টা করেছে পাকিস্তান যেন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি থেকে বাদ পড়ে যায়, আর তাই প্রথম ম্যাচে জয় তাদের (বাংলাদেশ) প্লেটে দিয়ে দিয়েছে।”

এ সময় অনুষ্ঠানের অন্য উপস্থাপক বাংলাদেশের পাকিস্তানকে হারানোর প্রসঙ্গটি তুলে ধরেন।

তিনি প্রশ্ন করেন, “ওভারঅল বাংলাদেশে দলের কথা বললে তাদের উন্নতি ক্রমান্বয়ে উন্নত হচ্ছে। এটা কি একটা কন্সপিরিসি থিওরি, না কি আপনি সত্যিই মনে করেন যে বাংলাদেশের ক্রিকেটের মান ভালো হয়েছে?”

সরফরাজ এ সময় বলেন, “দেখুন পাকিস্তান সফরের কথা যদি বলা হয়, তাহলে যে দলটি গিয়েছিল সেটি মানসম্মত দল ছিল না, তার উপরে অধিনায়ক করা হয়েছিল একজন জুনিয়র ক্রিকেটারকে। অনেক ভালো খেলোয়াড়কেও সিরিজ থেকে বাদ দেওয়া হয়। এ বিষয়গুলোও তো দেখতে হবে।

“অন্যদিকে সে সময় জুয়া মাফিয়াদেরও রমরমা অবস্থা চলছিল, এ বিষয়গুলোও দেখতে হবে। নাহলে পাকিস্তান হোয়াইট ওয়াশ হয়ে ফিরল! এগুলো না হলে তো কমপক্ষে একটা ম্যাচ পাকিস্তান জিতত।” ক্রিকেটে জুয়ায় পাকিস্তানের অনেক খেলোয়াড়ের জড়িয়ে পড়েছেন। দলটির খেলোয়াড়দের মধ্যে সেলিম মালিক, সালমান বাট, মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ আসিফ শাস্তিও ভোগ করেছেন।

এ জাতীয় আরও খবর