সোমবার, ১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাজিলের জয়রথ থামালো কলম্বিয়া

news-image

কোপা আমেরিকার ৪৪তম আসরে গ্রুপ ‘সি’র হাইভোল্টেজ ম্যাচে মাঠে নেমেছিল ব্রাজিল আর কলম্বিয়া। সেলেকাওদের বিশ্বকাপের পর টানা ১১ ম্যাচে জয়ের ধারাকে থামিয়ে দিয়েছে কলম্বিয়া। মুরিলোর একমাত্র গোলে জয় পায় কলম্বিয়ানরা। এর আগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে কার্লোস দুঙ্গার বদলে যাওয়া ব্রাজিল ২-১ গোলে জয় পেয়েছিল পেরুর বিপক্ষে। আর হেসে পেকারম্যানের কলম্বিয়া ১-০ গোলে হেরেছিল ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে। ফলে, বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নেমেছিল গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালিস্টরা।

 বিশ্বকাপের হতাশা কাটিয়ে টানা ১১ ম্যাচ জয়ী কার্লোস দুঙ্গার ব্রাজিল শুরু থেকে ৪-৪-২ ফরমেশনে খেলতে থাকে। শুরুর একাদশে মাঠে নামনে জেফারসন, দানি আলভেজ, মিরান্ডা, ধিয়াগো সিলভা, ফেলিপ লুইস, উইলিয়ান, এলিয়াস, ফার্নান্দিনহো, ফ্রেড, ফারমিনো আর নেইমার। অন্যদিকে একই ফরমেশনে হোসে পেকারম্যান শুরুর একাদশে মাঠে পাঠান অসপিনা, জুনিগা, জাপাতা, মুরিলো, আরমেরো, কুয়াদ্রাদো, সানচেজ, ভ্যালেন্সিয়া, জেমন রদ্রিগেজ, রাদামেল ফ্যালকাও এবং তিয়ো।চিলির এস্তাদিয়ো মনুমেন্টাল স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরুর আগে ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার জিতোর মৃত্যুতে শোক জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

 শুরু থেকেই পূর্ণ তিন পয়েন্টের জন্য লড়তে থাকে দুই দল। আক্রমণ আর পাল্টা-আক্রমণের মধ্য দিয়ে এগুতে থাকে ম্যাচ। বল দখলের লড়াইয়ে কেউ কারো থেকে কম যায়নি। ম্যাচের ৩০ মিনিটের মাথায় ব্রাজিলের ডি-বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শট নেন কুয়াদ্রাদো। তবে, তার শটটি গোলবারের কিছুটা বাইরে দিয়ে বেড়িয়ে যায়।

 খেলার ৩৬ মিনিটে ব্রাজিলের ডি-বক্সের বাইরে ফ্রি-কিক লাভ করে কলম্বিয়া। কুয়াদ্রাদোর দারুণ ফ্রি-কিকে বল গিয়ে পড়ে ব্রাজিলের ডি-বক্সে জটলার মধ্যে। কিন্তু দুঙ্গার শিষ্যরা বল ক্লিয়ার করতে না পারলে মুরিলো গোলবার লক্ষ্য করে শট নেন। সেলেকাও গোলরক্ষক জেফারসন ঝাঁপিয়ে পড়েও তা রুখতে ব্যর্থ হলে কলম্বিয়া ১-০ গোলে এগিয়ে যায়। 

দুই মিনিট পরেই ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারত কলম্বিয়ানরা। আরমেরোর দারুণ একটি পাসে ব্রাজিলের ডি-বক্সে দুরন্ত গতিতে ছুটে যাওয়া ফ্যালকাও পা ছোঁয়াতে পারলেই নিশ্চিত গোলের দেখা পেতেন। ম্যাচের ৪৪ মিনিটে আবারো কলম্বিয়ার আক্রমণ থেকে গোলের সম্ভাবনা জেগে উঠেছিল। রদ্রিগেজের বাড়ানো বল চলে যায় ব্রাজিলের ডি-বক্সে থাকা তিয়োর কাছে। ব্যাকপাসে তিয়ো বল দেন কুয়াদ্রাদোকে। তবে, এবারো সেলেকাওদের ভাগ্য ভালো। কুয়াদ্রাদোর শটটি গোলবারের পাশ দিয়ে বাইরে চলে যাওয়ার আগে জেফারসন ঝাঁপিয়ে পড়েও বল নাগালের মধ্যে পাননি।এক মিনিট পরেই বার্সেলোনার তারকা দানি আলভেজ দারুণ এক কোনাকুনি শটে বল বাড়িয়ে দেন নেইমারকে। বার্সার ট্রেবল জয়ী এ তারকা ছুটে এসে হেড করেন। কলম্বিয়ার গোলরক্ষক অসপিনা নেইমারের হেডটি রুখে দিলেও সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেন নি। কিন্তু, শেষ মুহূর্তে গোললাইনের বাইরে বল আটকে দেন অসপিনা। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়েও আর কোনো গোল না হলে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় কলম্বিয়া।

 বিরতির ঠিক আগে জ্বলে উঠেছিলেন নেইমার। বিররিত পর মাঠে নেমেই আবারো জ্বলে উঠেন ব্রাজিল অধিনায়ক। কলম্বিয়ার ডি-বক্সে সময় আর জায়গা পেয়েও সেলেকাও দলপতি দুর্বল শট নেন। 

৫৩ মিনিটের মাথায় আক্রমণে যায় কলম্বিয়ানরা। প্রতিপক্ষের ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া কুয়াদ্রাদোর শটটি বাইরে চলে যায়। এরপর সময়ের সঙ্গে ম্যাচের গতি আরও বাড়তে থাকে। দু’দলই নিজেদের ডিফেন্স সামলে আক্রমনাত্বক হয়ে উঠে। 

৫৭ মিনিটের মাথায় সহজ একটি সুযোগ নষ্ট করেন ফারমিনো। ব্রাজিলের উঠতি এ তারকা কলম্বিয়ার ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে ফাঁকা গোলবারে শট নিয়েও গোল করতে পারেন নি। মুরিলোর ব্যাকপাসে কলম্বিয়ার গোলরক্ষক অসপিনা বল ধরার আগেই এলিয়াস বল পেয়ে তা বাড়িয়ে দেন সতীর্থ বরাবর। মাঝে থাকা নেইমারের সামনে দিয়ে বল চলে যায় একেবারে ফাঁকায় দাঁড়ানো ফারমিনোর কাছে। কিন্তু ব্রাজিলের এ তারকা যে শটটি নেন তা গোলবারের উপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। সহজ এ সুযোগ নষ্ট হওয়ায় ১-০ তেই পিছিয়ে থাকে সমতা ফেরাতে ব্যর্থ হওয়া নেইমার বাহিনী।৭৩ মিনিটে জটলা থেকে গোল আদায় করার সুযোগ পায় লিড নেওয়া দলটি। তবে, আরমেরোর নেওয়া শটটি অনেক বাইরে দিয়ে চলে যায়। 

শেষের দশ মিনিট ব্রাজিল আরও বেশি আক্রমণাত্বক হয়ে উঠে। দগলাস কস্তা, ফারমিনো আর নেইমারের আক্রমণ ঠেকাতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে কলম্বিয়া। তবে, থেমে থাকেনি রদ্রিগেজ, ফ্যালকাওদের দলটি। ৮৯ মিনিটের মাথায় রিয়াল মাদ্রিদ তারকা রদ্রিগেজের কোনাকুনি একটি শট ব্রাজিল গোলরক্ষক জেফারসনের নাগালের বাইরে দিয়ে চলে যায়। গোলবারের কয়েক ইঞ্চি বাইরে দিয়ে বল চলে যাওয়ায় ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারেন নি রদ্রিগেজ। 

ম্যাচের বাকি সময় আর কোনো গোল না হলে ১-০ গোলে জয় নিয়ে টুর্নামেন্টে টিকে রইল কলম্বিয়া। গ্রুপ ‘সি’তে থাকা ব্রাজিল, কলম্বিয়া আর ভেনেজুয়েলা একটি করে ম্যাচ জিতে সমান তিন পয়েন্ট অর্জন করেছে।