সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মোদি ঢাকায়

news-image

৩৬ ঘণ্টার সফরে দিল্লি থেকে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে ভারতীয় ১৫তম প্রধানমন্ত্রীর এই বাংলাদেশ সফর। শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ১০ মিনিটে ভারতের এয়ার ইন্ডিয়া-১ বিমানে চড়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তিনি। এসময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লাল গালিচা সংবর্ধনা দিয়ে তাকে স্বাগত জানান। দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি, অভ্যন্তরীণ পানি বিষয়ক প্রটোকল, উপকূলীয় জাহাজ চলাচল, পণ্যের মান সংক্রান্ত সহযোগিতা এবং সংস্কৃতিক বিষয়ক বেশ কিছু চুক্তি এ সফরকালে স্বাক্ষরিত হতে পারে।

এছাড়াও উভয় দেশের সমুদ্র নিরাপত্তা বাহিনী এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মানব পাচার ও জাল নোট রোধ এবং নিরাপত্তা বিষয়ে পৃথক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হতে পারে।

এদিকে, মোদির একদিন আগেই পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বাংলাদেশে এসে পৌঁছান।

বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের আশা ভারতের ১৫তম প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে তিস্তা চুক্তির বিষয়টির দ্রুত সমাধান হবে।

এর আগে এক টুইটার বার্তায় নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হচ্ছি। এই সফর আমাদের দেশগুলোর মধ্যে বন্ধন শক্তিশালী করবে, দেশের মানুষ এবং এ অঞ্চল উপকৃত হবে।’

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আনুষ্ঠানিক মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ আরেক টুইট বার্তায় বলেন, ‘বাংলাদেশে ঐতিহাসিক সফরের জন্য তৈরি। আইএএফ রাজদূত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অপেক্ষায়।’

বার্তা সংস্থা বাসসের খবরে বলা হয়, বিমানবন্দরেই সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর একটি দল মোদিকে গার্ড অনার দেবে। বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাবেন তিনি। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। মোদি পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে যাবেন।

জাদুঘর থেকে ফেরার পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী বিকেলে মোদির সঙ্গে সোনারগাঁও হোটেলে সাক্ষাৎ করবেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কলকাতা-আগরতলা এবং ঢাকা-শিলং-গৌহাটি বাস সার্ভিস চলাচল যৌথভাবে উদ্বোধন করবেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। এরও পরে দুই প্রধানমন্ত্রী বৈঠক করবেন এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের আগে তাঁদের সঙ্গে যোগ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি ২৫ মিনিট একান্ত বৈঠক করবেন। দুই নেতা পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিদলের সদস্যদের নিয়ে শীর্ষ বৈঠকে যোগ দেবেন। এ বৈঠক এক ঘণ্টা স্থায়ী হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। পরে দুই নেতা যৌথ বিবৃতি দেবেন। সন্ধ্যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী সোনারগাঁও হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নৈশভোজের আগে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

ঢাকা সফরের দ্বিতীয় দিনে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির ও পুরান ঢাকায় রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শনে যাবেন মোদি। পরে তিনি বারিধারায় ভারতীয় হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সারি কমপ্লেক্সে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গভবনে প্রায় ১২টা ৪০ মিনিটে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং রাষ্ট্রপতি প্রাসাদে তাঁর সম্মানে দেওয়া মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন। তিনি ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর পক্ষে রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা’ গ্রহণ করবেন।

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ বেলা ৩টা ১০ মিনিটে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

ভারতের পররাষ্ট্রসচিব জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এবং ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদল নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তাঁর হোটেল কক্ষে দেখা করবেন।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ভারতীয় হাইকমিশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেওয়ার মাধ্যমে ভারতের প্রধানমন্ত্রী তাঁর ঢাকা সফর সমাপ্ত করবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার সন্ধ্যায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নরেন্দ্র মোদিকে বিদায় জানাবেন।

এ জাতীয় আরও খবর