সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাজেটে কোন খাতে কত বরাদ্দ

news-image

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করেছেন। প্রস্তাবিত বাজেটের আকার দুই লাখ ৯৫,১০০ কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে ২০ শতাংশ বেশি।

সমগ্র বাজেটের খাতওয়ারি বরাদ্দের পরিমাণ নিচে দেওয়া হলোÑ

    যোগাযোগ অবকাঠামো খাতে মোট ২৬,৩২৯ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী সড়ক- সেতু অবকাঠামো উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ, বিদ্যমান সড়কের রক্ষণাবেক্ষণ ও উন্নয়ন, যাত্রীসেবার মানোয়ন্নন, রেলপথ উন্নয়ন, পদ্মা সেতু নির্মাণ, যানজট নিরসন, বন্দর ও নৌপথ উন্নয়ন, বিমানবন্দর উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ খাতে এই বরাদ্দ প্রস্তাব করেছেন।

    বাজেটে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জন্য অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন খাতে মোট ১২,৭২৬ কোটি টাকার বাজেট বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্য অনুন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ৭,৩৯৪ কোটি টাকা এবং উন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ৫,৩৩১ কোটি টাকা।

    যুব ও ক্রীড়া খাতে ৮৩৫ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী। এর মধ্যে ফুটবলের জন্য আলাদা ১৫ কোটি টাকা থোক সহায়তা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

    স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় খাতে এবার ২২,২২২ কোটি টাকার বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর মধ্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের জন্য ১৮,৮৭২ কোটি টাকা এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের জন্য ১,৩৫১ কোটি টাকা এবং পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জন্য ৭৭৯ কোটি টাকার বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

    শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে ৩৩,১৬৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিপরীতে ৩১,৬১৮ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। আর বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষার প্রসারে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বিপরীতে ১,৫৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

    আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিদ্যুৎ বিভাগ এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের বিপরীতে মোট ১৮,৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী বিদ্যুৎ সমস্যার টেকসই ও দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথা উল্লেখ করে এ বরাদ্দের কথা জানান।

এ ছাড়া মোট পাঁচটি ক্যাটাগরির ১৫টি খাতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির বিভাজন নিচে দেওয়া হলোÑ

    মানব সম্পদ ক্যাটাগরির মোট চারটি খাতে ২১,৩০৮ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ৫,৫৪২ কোটি, স্বাস্থ্য ও পরিবার কণ্যাণ মন্ত্রণালয়ে ৫,৩৩১ কোটি, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ৪,১৯৭ কোটি এবং অন্যান্য খাতে ৬,২৩৮ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

    কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন ক্যাটাগরির চারটি খাতে বরাদ্দের প্রস্তাবিত পরিমাণ ২৪,৫২১ কোটি টাকা। এর মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগে ১৬,৬৫০ কোটি, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে ৩,০৬২ কোটি, কৃষি মন্ত্রণালয়ে ১,৮২৪ কোটি ও অন্যান্যতে ২,৯৮৫ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।

    জ্বালানি অবকাঠামো ক্যাটাগরির দুটি খাতে প্রস্তাবিত বরাদ্দের পরিমাণ ১৮,৪৭৯ কোটি টাকা। এর মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগে ১৬,৪৮৫ কোটি এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদে ১,৯৯৪ কোটি টাকা।

    যোগাযোগ অবকাঠামোর চারটি খাতে প্রস্তাবিত মোট বরাদ্দের পরিমাণ ২১,৬৫৯ কোটি টাকা। এর মধ্যে রেলপথে ৫৬৫০ কোটি, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগে ৫,৬৭৫ কোটি, সেতু বিভাগে ৮,৯২১ কোটি ও অন্যান্য খাতে এই বরাদ্দের পরিমাণ ১,৪১৩ কোটি টাকা এবং

    অন্যান্য ক্যাটারিতে এবার ১১,০৩৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।