শনিবার, ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংবাদ প্রকাশের হুমকী দিয়ে টাকা দাবী বিজয়নগরে একজন লাঞ্চিত

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১০ হাজার টাকা না দিলে মাদক ব্যবসায় জড়িত বলে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের হুমকী দেয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে আমির মাহমুদ ভূইয়া নামে এক সাংবাদিককে  গনপিটুনি  দিয়েছে এলাকার লোকজন । এসময় আর কখনো এমন করবেনা বলে ঐ সাংবাদিক  পায়ে ধরে ক্ষমা চেয়ে জনতার রোষ থেকে নিজেকে রক্ষা করে । ঘটনাটি ঘটে গত ১৯ শে মে সকালে কাশিমপুরে। বিষ্ণপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শাহিন ভূইয়া অভিযোগ করেন গত ১৫ ই মে সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি বিষ্ণপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। এর পরদিন সকালে রানওয়ে বাজারে আমির মাহমুদ ভূইয়া তার সঙ্গে দেখা করে নিজেকে বিজয়নগর প্রেসক্লাবের সভাপতি এবং ভোরের কাগজের বিজয়নগর প্রতিনিধি ও প্রতাপ নামের পত্রিকার সম্পাদক পরিচয় দিয়ে তার কাছে ১০ হাজার টাকা দাবী করে। বলে এই টাকা না দিলে সে তার নিজের পত্রিকাসহ অন্যান্য পত্রিকায় আমি মাদক ব্যবসায় জড়িত বলে রিপোর্ট করে দেবে। এতে আমি অবাক হই এবং তার কাছ থেকে ২ দিনের সময় নিয়ে তার বিষয়ে খোজখবর নিয়ে জানতে পারি আমির মাহমুদ  বিজয়নগর প্রেসক্লাবের সভাপতি নন। বিষয়টি আমি বিজয়নগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মোজাম্মেল হককে জানাই। খোজ নিয়ে জানতে পারি রানওয়ে বাজারসহ এলাকার আরো অনেকের কাছ থেকে সে টাকা নিয়েছে। বাজারের বেকারীর মালিক হালিম মিয়া ,সিএনজি অটোরিকসা চালক পান্না,সেলুন মালিক আবদুল হাকিম আমাকে জানায়-তারাও আমির মাহমুদ ভূইয়ার কাছে টাকা পান। সেলুনে সেভ করে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে টাকা না দিয়েই সে চলে যায়। টাকা চাইলে মাদক চোরাচালানী বলে নিউজ করে দেয়ার হুমকী দেয়। সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সিএনজি অটোরিকসার ভাড়া দেয়না বলেও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। শাহিন আরো জানান- ২ দিন পর আমির মাহমুদ ভূইয়া রানওয়ে বাজারে আমার কাছে টাকা নিতে আসলে বাজারে উপস্থিত লোকজন তাকে ধরে পিটুনী দেয়। এরপর বাজারের লোকজন তাকে নিয়ে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ও রানওয়ে বাজারের ব্যবসায়ী মোজাম্মেল হকের কাছে গিয়ে তার ব্যাপারে প্রতিকার চাইলে আমির মাহমুদ ভূইয়া স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মোজাম্মেল হকের পায়ে ধরে নিজের অপকর্মের জন্যে ক্ষমা চায় এবং নিজের দোষ স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করে। নিউজ করার ভয় দেখিয়ে কোনদিন মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায় করবেনা বলে সবার সামনে অঙ্গীকার করে। তবে এ ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিক আমির মাহমুদ ভূইয়াকে মাদক ব্যবসায়ীরা লাঞ্চিত করেছে বলে স্থানীয় একটি সংবাদপত্রে খবর প্রকাশিত হয়। এই খবরে বিস্ময় প্রকাশ ও প্রতিবাদ জানিয়ে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও রানওয়ে বাজারের মা টিম্বার্সের মালিক মোজাম্মেল হক বলেন আমীর মাহমুদ ভূইয়া নিজেই একজন মাদকসেবী ও  মাদক চোরাচালানী চক্রের সদস্য। সে চাদাবাজি করে বেড়ায়। আমরা মাদক ব্যবসা করি কিনা তার স্বাক্ষ্য এলাকার লোকজনই দেবে।

 

 

এ জাতীয় আরও খবর