বুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রোগী দেখে ইসলাম গ্রহণ করলেন মার্কিন ডাক্তার!

news-image

ইসলামিক ডেস্কইউ এস অরিভিয়া। একজন নারী ও শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ মার্কিন ডাক্তার। আমেরিকার একটি হাসপাতালে কাজ করেন। সম্প্রতি একজন মুসলিম নারীর জীবনচিত্র ও ইসলাম ধর্মের বিজ্ঞানভিত্তিক জীবন আচরণে মুগ্ধ হয়ে তিনি ইসলাম গ্রহণ করেছেন। মিসেস অরভিয়া বলেন, আমি আমেরিকার একটি হাসপাতালে নারী ও শিশু বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাজ করি। একদিন হাসপাতালে এক আরব মুসলিম নারী এলেন সন্তান প্রসবের জন্য। প্রসব মুহূর্ত ঘনিয়ে আসলো। আমরাও অফিস ছাড়ার সময় হলো। আমি আরব নারীকে জানালাম, আমি বাসায় যাচ্ছি! আপনার বাচ্চা প্রসবের দায়িত্ব পালন করবে অন্য একজন ডাক্তার। আরবের নারী কাঁদছে। থেমে থেমে কান্নার ঢেউ। সঙ্গে আমার কাছে জোর আবেদন, না না দয়া করে এখনই আপনি বাসায় যাবেন না। আর আমি কোনো পুরুষ ডাক্তারের সাহায্য চাই না! দয়া করে আপনিই থেকে যান!
 
ডাক্তার অরিভিয়া বলেন বিনয়ের সঙ্গে তার স্বামী আমাকে জানালেন, সে চাচ্ছে তার কাছে যেন কোনো পর-পুরুষ না আসে। কারণ, প্রাপ্ত বয়সের পর থেকে আজ পর্যন্ত বাপ, ভাই ও মামা প্রমুখ আপনজন ছাড়া কোনো পর-পুরুষ তাকে দেখেনি।
অরিভিয়া বলেন আমি অবাক হয়ে হেসে উঠলাম!
চরম বিস্মিয়ের সঙ্গে বললাম, আমি এমন একজন নারী, আমেরিকান কতো পুরুষ আমার চেহারা দেখেছে। গুণে শেষ করতে পারবো না।
আরব্য নারীর আবেদনের ব্যাকুলতায় আমি সাড়া দিলাম। বাসায় না গিয়ে তার বাচ্চা প্রসবের অপেক্ষায় থাকলাম।
তার কোল আলোকিত হলো। মায়ের কোলে হাসলো শিশু। পরদিন তার সন্তান জন্মের আনন্দে অংশ নেই। চিকিৎসা বিজ্ঞান মতে উপদেশ দিই, প্রসবের পর চল্লিশদিন দাম্পত্যমিলন থেকে বিরত থাকবেন। আমেরিকান অনেক নারী প্রসবের পরও দাম্পত্যমিলন অব্যহত রাখার কারণে অভ্যান্তরীণ সংক্রমণ এবং সন্তান প্রসবঘটিত জ্বরে ভোগেন। সুতরাং চল্লিশ দিনের আগে এসব কিছু নয়। এ ৪০ দিন পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ করবেন। ভারী কাজ থেকে দূরে থাকাবেন। আমার দীর্ঘদিনের গবেষণা মাটি করে দিয়ে আরব্য নারী বললেন, আমাদের ইসলাম ধর্মমতেও প্রসব উত্তর চল্লিশ দিন দাম্পত্যমিলন নিষিদ্ধ করেছে। পবিত্র হওয়া পর্যন্ত নারীদের নামাজ রোজা ও কোরআন পাঠেও বিধান নেই। মার্কিন এই ডাক্তার বলেন, প্রসূতির কথা শুনে আমি থমকে গেলাম! বিস্ময় বিমূঢ় হলাম! আমাদের এত্তো গবেষণা আর এত্তো পরিশ্রমের পর তো কেবল আমরা ইসলামের শিক্ষা পর্যন্তই পৌঁছলাম!
 
আরেকদিন এক শিশু বিশেষজ্ঞ এলেন নবজাতককে দেখতে। তিনি শিশুর মাকে বললেন, বাচ্চাকে ডান কাতে শোয়াবেন! ডান কাত শিশুর সাস্থ্যের জন্য উপকারী! শিশুর হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক থাকে!
 
শিশুর বাবা এগিয়ে এসে বললেন, আমরাও সবসময় ডান পাশে ঘুমাই। শিশুকেও সেভাবে অভস্থ করছি। ডান কাতে ঘুমাতে আমাদের নবী হজরত মুহাম্মাদ সা. শিখিয়েছেন। মার্কিন ডাক্তার অরিভিয়া বলেন, আমি বিস্ময়ে থ! যে চিকিৎসা বিজ্ঞানের পেছনে জীবনাটা উৎসর্গ করে দিলাম, সে কি না তাদের ধর্ম শিখিয়েছে। এতোটা বিজ্ঞানসম্মত ধর্মের সন্ধান পেয়ে আমি ইসলামে আগ্রহী হয়ে ওঠলাম। হাসপাতল থেকে এক মাসের ছুটি নিয়ে আমেরিকার অন্য শহরে চলে গেলাম। ইসলামিক সেন্টারে বইপাঠ, আরব-আমেরিকান মানুষদের জীবনপাঠ ও নানা বিষয়ে জানার মাধ্যমে আমার নতুন দিগন্তের সন্ধ্যান মিলল। মাস শেষে আমি কালিমা পাঠ করে মুসলমান হয়ে যাই। আলহামদুলিল্লাহ আমার জীবনে নেমে এলো শান্তি সুখের পায়রা।
 
সূত্র : ইন্টারনেট সূত্রে ইসলাম হাউজ অবলম্বনে

এ জাতীয় আরও খবর

উচ্চ রক্তচাপ কী? হঠাৎ রক্তচাপ বেড়ে গেলে করণীয়

শরীরের যেসব স্থানের ব্যথা হতে পারে ক্যানসারের লক্ষণ

ত্বক আর্দ্রতা হারিয়েছে কি না বুঝবেন যেভাবে

পিপলস লিজিংয়ের ২৫ ঋণখেলাপিকে গ্রেফতার করে হাজির করার নির্দেশ

গরমে জনজীবনে নাভিশ্বাস, বৃষ্টি বাড়তে পারে আগামী সপ্তাহে

দ্রব্যমূল্যের অস্থির পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীদের সতর্ক হওয়ার আহ্বান

বিদ্যুতের দাম ৫৮ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ

সেতুর উদ্বোধন ঘিরে পদ্মাপারে জয়গান

জেনেভায়‌ প্রবাসীদের কনস্যুলেট সেবা প্রদান

বই পড়লে কারামুক্তি

হাইকোর্ট সেই এরশাদ আলীকে পুলিশে দিল

দৈনিক সংক্রমণে শীর্ষে উত্তর কোরিয়া, বিশ্বে মৃত্যু আরও দেড় হাজার