শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইন্টারনেটকে মৌলিক মানবাধিকার হিসেবে সংবিধানে যুক্ত করতে হবে

news-image

প্রযুক্তি ডেস্ক : ইন্টারনেটকে মৌলিক অধিকার হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে। এখন খাদ্যের পরেই মানুষের মৌলিক চাহিদা হচ্ছে ইন্টারনেট। গতকাল রাজধানীর লেকশোর হোটেলে বিডিনগের তৃতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
গতকাল থেকে শুরু হয়েছে তৃতীয় বিডিনগ সম্মেলন। নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ বা নগ হচ্ছে ইন্টারনেট ইঞ্জিনিয়ারদের একটি গ্লোবাল কমিউনিটি বা ফোরাম যাঁরা নিজেদের মধ্যে অপারেশনাল বিষয়ক জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ও মতামত বিনিময় করে। ফলে বিডিনগও অন্যান্য দেশ ও অঞ্চলের মতো নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ যেমন, সাউথ এশিয়া নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ (সেনগ), নর্থ আমেরিকান নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ (ন্যানগ), জাপান নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ (জেনগ), অস্ট্রেলিয়া নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ (অসনগ), এশিয়া প্যাসেফিক রিজিওনাল ইন্টারনেট কনফারেন্স অন অপারেশনাল টেকনোলজিস (অ্যাপ্রিকট) এর সঙ্গে কাজ করবে।
বিডিনগ ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর থেকে একটি অলাভজনক সংগঠন হিসেবে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করে। এর আগে গত বছরে ১৯-২৪ মে ঢাকায় প্রথম সম্মেলন এবং ১১-১৫ নভেম্বর কক্সবাজারে দ্বিতীয় সম্মেলন সফলভাবে আয়োজন করে বিডিনগ।
হাসানুল হক ইনু ছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এশিয়া-প্যাসেফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জের (বিডিআইএক্স) চেয়ারম্যান অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইন্টারনেট করপোরেশন ফর অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নাম্বারসের (আইক্যান) হেড অব সিকিউরিটি, স্ট্যাবিলিটি অ্যান্ড রিসিলিয়েন্স জন ক্রেইন, আইএসপি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সভাপতি এম এ হাকিম, বিডিনগ সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, সভাপতি নুরুল ইসলাম রোমান এবং বিডিনগ বোর্ড অব ট্রাস্ট্রির চেয়ারম্যান সুমন আহমেদ সাবির।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশকে একটি আধুনিক ও উন্নত বাংলাদেশ হিসেবে দেখতে চাই। এ লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হলে সকল পেশার মানুষ একে অপরের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যেতে হবে। এই সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য যদিও ইঞ্জিনিয়ারদের মধ্যে প্রযুক্তিগত জ্ঞানের ব্যাপ্তি বাড়ানো, তবুও আমি আশা করব সামনের দিকে প্রযুক্তিতে আগ্রহী লোকজনকেও এ ধরনের সম্মেলনে সংযুক্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। ইন্টারনেটকে মৌলিক অধিকার হিসেবে গণ্য করতে হবে।
অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশের মতো দেশের অনেক ইন্টারনেট পেশাজীবী দরকার। বিডিনগের এ ধরনের সম্মেলন ও প্রশিক্ষণ প্রকৌশলীদের আরও যুগোপযোগী হতে সাহায্য করবে।’
জন ক্রেইন বলেন, ইন্টারনেট বর্তমান পৃথিবীর যোগাযোগ ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে এসেছে, যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেক সহজ করে দিচ্ছে। বিডিনগের এই উদ্যোগ বাংলাদেশের ইন্টারনেট ব্যবস্থায় ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে বলে আমি আশা করি। এ ক্ষেত্রে সরকার, সিভিল সোসাইটি এবং টেকনিক্যাল কমিউনিটিকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।