শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মামলায় পর্যুদস্ত বিএনপি নেতারা

news-image

একের পর এক মামলার জালে আটকা পড়েছে রাজপথের বিরোধী দল বিএনপি। সারা দেশে প্রায় ২০ হাজার মামলার খড়গ ঝুলছে দলটির পাঁচ লক্ষাধিক নেতা-কর্মীর ঘাড়ে। চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে মামলা ও আসামির সংখ্যা বেড়েই চলেছে দিন দিন।

গত বছরের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহত করার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ২০১৩ সালের ২৫ অক্টোবর থেকে বিএনপি-জামায়াতের নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া শুরু হয়। সারা দেশে নাশকতার অভিযোগে জোটের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে বর্তমানে মামলার সংখ্যা প্রায় পাঁচ হাজার। আসামি করা হয়েছে জোটের প্রায় সাড়ে চার লাখ নেতা-কর্মীকে। বিএনপির আইনজীবী ও পুলিশ সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে চলতি বছরের টানা হরতাল-অবরোধ চলাকালে সারা দেশে মামলা হয়েছে প্রায় ৯০০টির মতো। ঢাকা মহানগর পুলিশ জানিয়েছে, গত চার মাসে শুধু ঢাকা মহানগরে মামলা হয়েছে ৩২৫টি।

রাজনৈতিক কর্মসূচি চলাকালে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগে গত দুই মাসে চারটি মামলা হয়েছে। একই অভিযোগে গত ১৪ মাসে দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে সারা দেশে ৮৪টি। যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর বিরুদ্ধে ৪০টি মামলা করা হয়েছে ।

বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতাদের মধ্যে রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে ৮৩টি, মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে ৭৩, মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে ২৩, খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে অন্তত ২০, শমসের মবিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে ৬ ও সাদেক হোসেন খোকার বিরুদ্ধে ৩৪টি মামলা হয়েছে। মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ১২০টির বেশি মামলা রয়েছে। এম কে আনোয়ারের বিরুদ্ধে ৯, আ স ম হান্নান শাহের ১১, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে ৫টি, দলের যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমানের ৯০টি এবং ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানির বিরুদ্ধে হয়েছে ৪০টি মামলা। স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের বিরুদ্ধে ২৫ ও ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর বিরুদ্ধে ৭০টি মামলা রয়েছে। আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আ ন ম এহছানুল হক মিলনের বিরুদ্ধে রয়েছে ৩৬টি।

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানের বিরুদ্ধে ৫টি, দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে ২টি, সাবেক মন্ত্রী ও দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিনের ৬টি, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খোন্দকারের ২টি, কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আসলাম চৌধুরীর ৩৩টি ও নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেনের নামে ৮টি মামলা রয়েছে।

আমাদের সময়.কম