বৃহস্পতিবার, ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমকে নিষিদ্ধ করতে পুলিশের প্রস্তাব

news-image

বাংলাদেশের পুলিশ আজ একটি জঙ্গী ইসলামী সংগঠন আনসারুল্লা বাংলা টিমকে নিষিদ্ধ করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে।পুলিশ বলছে, জঙ্গি এই সংগঠনটি আল-কায়েদার মতাদর্শ অনুসরণ করে কাজ করে।

সাম্প্রতিক সময়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের সদস্যরা আনসারুল্লাহর নাম ধারণ করে সামরিক প্রশিক্ষণ নিচ্ছে বলেও পুলিশের সন্দেহ।

কিন্তু কারা এই আনসারুল্লাহ বাংলা টিম? আর এতদিন পরে কেন তাদের নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব উঠেছে? পুলিশ বলছে, আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যরা ২০০৮ সাল পর্যন্ত জামিয়াতুল মুসলেমিন নামক একটি আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনের হয়ে কাজ করত।

বাংলাদেশে ২০০৯ সাল থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম নামে দলটি নতুন করে সংগঠিত হয়। এরপর বিভিন্ন সময় গোপনে সদস্য সংগ্রহ এবং তাদের প্রশিক্ষন দেবার কাজ চালিয়ে গেছে তারা।

বিভিন্ন সময় পুলিশের অভিযানে অস্ত্র, জঙ্গি প্রশিক্ষনে ব্যবহার করা সরঞ্জামাদি এবং বিভিন্ন ধরণের প্রকাশনাও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মহানগর পুলিশ উপকমিশনার এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেছেন, সংগঠনটির গ্রেপ্তার সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ, তাদের কাজের ধরণ পর্যালোচনা ও অনুসন্ধানে তারা নিশ্চিত হয়েছেন একটি একটি উগ্র জঙ্গি সংগঠন।
মি. সরকার বলেন, আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সাথে আল-কায়েদার প্রাতিষ্ঠানিক যোগাযোগের ব্যাপারে এখনো তারা নিশ্চিত নন, তবে এরা আল কায়ের ঘনিষ্ঠতম ভাবশিষ্য। সংগঠনটির গ্রেপ্তার হওয়া সদস্যদের কাছে পাওয়া কাগজপত্রে পুলিশ দেখেছে, কয়েকটি ধাপে তারা কার্যক্রম পরিচালনা করে, যার সর্বশেষ ধাপ হচ্ছে টার্গেট করে হত্যাকাণ্ড ঘটানো।

তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে এই সংগঠনটির কাজের ধরণ বাংলাদেশে সক্রিয় অন্যান্য জঙ্গি সংগঠনের থেকে আলাদা।

এদিকে, ২০০৭ সালে জেএমবি প্রধানসহ আরও কয়েকজন নেতার মৃত্যুদণ্ডের পর জঙ্গি সংগঠনের তৎপরতা বিষয়টি অনেকটাই চাপা পড়ে যায়। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আবারো বিভিন্ন তৎপরতা দেখা যাচ্ছে।

বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করছেন নুর খান লিটন। তিনি বলছিলেন, ভিন্ন নামে এবং ভিন্ন ভিন্ন পরিচয়ে নতুন করে সংগঠিত হচ্ছে জঙ্গি সংগঠন এবং তারা বিভিন্ন কৌশলে শক্তি সঞ্চয়ের চেষ্টা করছে।

মি. খান বলেন, আগে সক্রিয় জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে কৌশল এবং হামলার টার্গেটের দিক থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বেশ আলাদা। তারা অল্প কয়েকজনের গ্রুপ গঠন করে অনলাইনে যারা 'ইসলামের বিরুদ্ধে লেখালিখি করেন' তাদের টার্গেট করছে। আদের চূড়ান্ত লক্ষ্য জিহাদি পরিবেশ তৈরি করা এবং সশস্ত্র লড়াইয়ের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করা।

পুলিশ বলছে, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে কয়েকজন ব্লগারকে হত্যার ঘটনার সঙ্গে এই সংগঠনটির সম্পৃক্ততার ব্যপারে তাদের কাছে তথ্যপ্রমাণ রয়েছে।

আর সেকারণেই এ সংগঠনকে নিষিদ্ধ করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছেন তারা।

বিবিসি

এ জাতীয় আরও খবর

হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় বাড়লো

খালেদাকে পদ্মা সেতুতে তুলে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় হত্যা, চারজনের যাবজ্জীবন

সিলেটে বন্যার্তদের পাশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ক্লাসরুমে ফ্যান খুলে পড়ে চার ছাত্রী আহত

ঘরে বসে খুব সহজেই করে ফেলুন পার্লারের মতো হেয়ার স্পা

সামরিক সহায়তা চাইলো মিয়ানমারের ছায়া সরকার

হত্যা মামলায় তিন ভাইসহ চারজনের যাবজ্জীবন

এমপির গাড়িবহরে ট্রাকচাপায় লাশ হলেন ছাত্রলীগ নেতা

কান উৎসবে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের ট্রেইলার, ফ্রান্সের পথে তথ্যমন্ত্রী

শ্রমিকের তীব্র সঙ্কট, বৃষ্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে ধান

পল্লবীর অনুপস্থিতিতে ফ্ল্যাটে কে আসতেন, মুখ খুললেন পরিচারিকা