মঙ্গলবার, ২৪শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নবীনগরে যুবলীগ নেতা নৃশংসভাবে খুন

news-image

বিশেষ প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিটঘর ইউনিয়নের যুবলীগ নেতা ও ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আল-মামুন (৪২) শুক্রবার মধ্যরাতে পাশ্ববর্তী বিটঘর গ্রামে তার খালার বাড়ির অদূরে নৃশংসভাবে খুন হয়েছেন। মামুনের খালতো ভাইদের সঙ্গে পারিবারিক কলহের জের ধরেই তাকে খুন করা হয়েছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। এ ঘটনায় পুলিশ নিহতের খালা রীনা আক্তার (৫৫) কে আটক করেছে। সে মহেশপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রবিউল্লার ছেলে। এলাকাবাসী জানায়, পূর্ব শত্র“তার জের ধরে নিহতের খালাত ভাই জুয়েল, মিঠুসহ ৮/১০ জন শুক্রবার রাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুুপিয়ে হত্যা করে। পরে তার লাশ বাড়ি থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে বিটঘর গ্রামের একটি পরিত্যক্ত জমিদার বাড়ির বালাখালার পেছনে ছাইয়ের স্তুপে লুকিয়ে রাখে। লাশ দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী রাতেই পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে শনিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরন করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, লাশের সারা শরীরে অসংখ্য ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল । যুবলীগ নেতার সাথে খালতো ভাইরের পারিবারিক কলহের জের ধরে মামুনকে খুন করতে পারে বলে জানায়। শিবপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবু কাউছার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশের শরীরে ২০/২৫টি দায়ের কোপ ছিলো। খালাতো ভাইদের সাথে পারিবারিক কলহের জের ধরে মামুন খুন হয়ে থাকতে পারে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানতে পেরেছি। এ ঘটনায় মামুনের খালা রীনা আক্তারকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। বিটঘর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ সোলায়মান ভূইয়া বলেন, খুন হওয়ার বিষয়টি আমি শুনেছি।
উল্লেখ্য, আল-মামুনের বিরুদ্ধে নবীনগর থানায় ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।