বুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রমজানের আগে ২০,০০০ নারী শ্রমিক যাবেন সৌদি

news-image

ডেস্ক রির্পোট : রমজান মাসের আগেই গৃহকর্মীর কাজ নিয়ে সৌদি আরব যাচ্ছেন ২০ হাজার নারীকর্মী। পূর্বনির্ধারিত ন্যূনতম ৮০০ রিয়াল মজুরিতেই সরকার নারীকর্মীদের দেশটিতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গতকাল বিকালে রাজধানীর ইস্কাটনে প্রবাসী কল্যাণ ভবনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন সাংবাদিকদের এ কথা জানান। এ সময় তিনি আরও বলেন ইতিমধ্যে দেশটি থেকে ৩০ হাজার শ্রমিকের জন্য ভিসা এসে পৌঁছেছে। এর আগে হোটেল সোনারগাঁওয়ে সৌদি আরবের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন মন্ত্রী। সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপমন্ত্রী ড. আহমেদ আলফাহিদের নেতৃত্বে ৭ সদস্যের প্রতিনিধি দলটি ঢাকা আসে। খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সৌদি আরবের ৫০ হাজার নারী শ্রমিকের চাহিদা ছিল। তবে চূড়ান্তভাবে আগামী রমজান মাসের আগেই ২০ হাজার নারী শ্রমিককে দেশটিতে পাঠাবে বাংলাদেশ। আর এ ব্যাপারে ভিসা জটিলতা হবে না। কারণ সৌদি আরবের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কথা হয়েছে, এ ব্যাপারে তাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। এ জন্য ১০০টি রিক্রুটিং এজেন্সিকে সারা দেশ থেকে ২০০ জন করে নারী শ্রমিক সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে বলেও জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন, ‘শ্রমিকদের সম্পূর্ণ বিনাখরচে পাঠানো হবে। শ্রমিকদের জন্য ৮০০ রিয়াল বেতন ধরা হয়েছে, এরপর যতো বাড়ানো যায়। এ সময় মানবপাচার প্রসঙ্গে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ  হোসেন বলেন, আমরা শুধু বৈধ শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করি। অবৈধ শ্রমিকদের নিয়ে নয়। এটি স্বরাষ্ট্র-পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাজ। বৈধ-অবৈধ মিশ্রণ করলে অসুবিধা হয়ে যাবে। তবে স্বরাষ্ট্র-পররাষ্ট্র এ দুই মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার সৌদি আরবে ২০০৮ সালে বন্ধ হয়ে যায়। দীর্ঘ ৬ বছর পর এ বছর বাজার খুলে দেয় দেশটি। তবে তা খুবই সীমিত পরিসরে- গৃহকর্মী খাতে। গত ১০ই ফেব্রুয়ারি সৌদি আরবের সঙ্গে এ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করে বাংলাদেশ। চুক্তির আওতায় গৃহস্থালি কাজের জন্য ১২ ধরনের কর্মী নেয়ার কথা বলে  সৌদি আরব। বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব খন্দকার  মো. ইফতেখার হায়দার এবং সৌদি আরবের পক্ষে দেশটির উপ-শ্রমমন্ত্রী আহমেদ আল ফাহাইদ এ দ্বিপক্ষীয় চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। ওই চুক্তি স্বাক্ষর শেষে প্রবাসী কল্যাণ সচিব বলেন, এই চুক্তির আওতায় ১২ ধরনের গৃহকর্মী সৌদি আরবে কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে শুধু গৃহপরিচারিকার (হাউজমেড) ন্যূনতম বেতন ৮০০ সৌদি রিয়াল (বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৭ হাজার) ঠিক করা হয়েছে। বাকি ১১ ধরনের কর্মীদের  বেতনের ব্যাপারে কোন আলোচনা হয়নি। বাকি খাতগুলো হলো- কেয়ার গিভার, বেবি সিটার, মালি, গার্ড, ক্লিনার, ড্রাইভার, কুক। তবে প্রথমে শুধু নারীকর্মী নেবে বলে সৌদি আরব জানায়।

এ জাতীয় আরও খবর

বাংলাদেশকে লিডের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন তামিম-মুশফিক-লিটন

দেশের শীর্ষ ৫ ব্যাংকের একটি হওয়ার লক্ষ্য এনসিসি ব্যাংকের

এআইইউবি রোবোটিক দলকে পৃষ্ঠপোষকতা ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের

গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

সুনামগঞ্জে পাহাড়ি ঢলে যোগাযোগ-বিচ্ছিন্ন

নাতির সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে দাদার মৃত্যু

ট্রেনের টয়লেট থেকে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার

হামলায় মাথা ফাটল ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীর

প্রেমিকার বাড়ির পাশে প্রেমিকের ক্ষত-বিক্ষত লাশ

ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে ঘুম পারান স্ত্রী, গলাটিপে হত্যা করেন পরকীয়া প্রেমিক

আকস্মিক ধুলি-ঝড়ে বিপর্যস্ত সৌদির রাজধানী রিয়াদ

রিয়াজের মাছ ধরা নিয়ে চলছে হাসিঠাট্টা