বৃহস্পতিবার, ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সালাউদ্দিনকে নিয়ে ইন্টারপোলের রেড এলার্ট জারি

news-image

বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দিন আহমেদের ওপর কঠোর নজরদারি রাখতে ভারতের মেঘালয়ের পুলিশকে অ্যালার্ট জারি করেছে আন্তর্জাতিক পুলিশের সংস্থা ইন্টারপোল। আজ বৃহস্পতিবার মেঘালয়ভিত্তিক দৈনিক শিলং টাইমস-এর খবরে এ কথা জানানো হয়েছে।

দৈনিকটির প্রধান শিরোনামে বলা হয়েছে, শিলং সিভিল হাসপাতালে বিচারাধীন কয়েদিদের জন্য বরাদ্দ থাকা কক্ষে সালাহ উদ্দিনকে রাখা হয়েছে। তাঁর জন্য কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। গত সোমবার বিএনপির এই নেতা কোনো বৈধ কাগজ ছাড়া ভারতে প্রবেশ করেন। তাঁকে আদালতে তোলা হবে বলেও পত্রিকাটি জানিয়েছে।

পুলিশের মহাপরিচালক (ডিজিপি) রাজীব মেহতার বরাত দিয়ে শিলং টাইমস জানিয়েছে, ‘মঙ্গলবার গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি সম্পর্কে আমরা সিবি আইয়ের (ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো) কাছ থেকে ইন্টারপোলের অ্যালার্ট পেয়েছি।’

রাজ্যের পুলিশপ্রধান জানান, ইন্টারপোলের এই অ্যালার্টের পরিপ্রেক্ষিতে মেঘালয় পুলিশ তাদের জানিয়েছে, সালাহ উদ্দিন এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

ডিজিপি বলেন, ‘ভবিষ্যতে আমরা কী পদক্ষেপ নেব, সে ব্যাপারে সিবি আইয়ের নির্দেশনার অপেক্ষায় আছি।’

সিবি আই সালাহ উদ্দিন আহমেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে এখানে আসবে কি না-জানতে চাইলে রাজীব মেহতা বলেন, তদন্ত সংস্থার কাছ থেকে এ ধরনের কোনো তথ্য তাঁর কাছে আসেনি।

তিনি বলেন, ‘যেহেতু সালাহ উদ্দিন ফরেনার্স আইন ভঙ্গ করেছেন, সে কারণে সিভিল হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তাঁকে আদালতে তুলবে মেঘালয় পুলিশ।’ তিনি জানান, সালাহ উদ্দিনের স্ত্রী এখনো মেঘালয় পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি।

রাজীব মেহতা জানান, গত সোমবার গ্রেপ্তারের সময় বাংলাদেশের এই রাজনীতিকের কাছে শুধু কিছু ওষুধ ছিল।

সালাহ উদ্দিন আহমেদ কীভাবে বৈধ কাগজ ছাড়া শিলংয়ে প্রবেশ করলেন, সে ব্যাপারে তদন্ত করছে মেঘালয় পুলিশ।

গত ১০ মার্চ থেকে ‘নিখোঁজ’ ছিলেন সালাহ উদ্দিন আহমেদ। তাঁকে আইনশৃক্সখলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে তাঁর পরিবার ও দলটির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে। তবে তাঁকে আটক করা হয়নি বলে দাবি করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

সালাহ উদ্দিন আহমেদের সন্ধান চেয়ে ১১ মার্চ রাতে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গুলশান ও উত্তরা পশ্চিম থানায় যান তাঁর স্ত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা আহমেদ। তবে কোনো থানাই তাঁর জিডি গ্রহণ করেনি।

রাজধানীর উত্তরার একটি বাড়ি থেকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদকে আইনশৃক্সখলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় ১০ মার্চ—এমন অভিযোগ করে থানা পুলিশের পাশাপাশি উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন সালাহ উদ্দিনের পরিবার।

সূএ : আমাদের সময়.কম

এ জাতীয় আরও খবর

হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় বাড়লো

খালেদাকে পদ্মা সেতুতে তুলে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় হত্যা, চারজনের যাবজ্জীবন

সিলেটে বন্যার্তদের পাশে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ক্লাসরুমে ফ্যান খুলে পড়ে চার ছাত্রী আহত

ঘরে বসে খুব সহজেই করে ফেলুন পার্লারের মতো হেয়ার স্পা

সামরিক সহায়তা চাইলো মিয়ানমারের ছায়া সরকার

হত্যা মামলায় তিন ভাইসহ চারজনের যাবজ্জীবন

এমপির গাড়িবহরে ট্রাকচাপায় লাশ হলেন ছাত্রলীগ নেতা

কান উৎসবে বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের ট্রেইলার, ফ্রান্সের পথে তথ্যমন্ত্রী

শ্রমিকের তীব্র সঙ্কট, বৃষ্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে ধান

পল্লবীর অনুপস্থিতিতে ফ্ল্যাটে কে আসতেন, মুখ খুললেন পরিচারিকা