বুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘আর দশ জন মায়ের মতো নয় আমার মা’

news-image

বিনোদন প্রতিবেদক : ফারদিন এহসান স্বাধীন, ঢাকাই সিনেমার অভিনেত্রী মৌসুমীর বড় ছেলে। এর বাইরেও তার একটি পরিচয় আছে। তিনি একজন নির্মাতা। আন্তর্জাতিক মা দিবস উপলক্ষে গ্লিটজের সঙ্গে কথা বললেন মাকে নিয়ে।
গ্লিটজ: আপনার মা ভীষণ ব্যস্ত অভিনেত্রী। ছেলেবেলায় মাকে কতটা কাছে পেয়েছেন?

স্বাধীন: মা শুটিংয়ে অনেক ব্যস্ত থাকতেন। অধিকাংশ দিন তার সঙ্গে আমার দেখা হতো না। পরিস্থিতি এমন ছিলো, আমি ঘুমিয়ে আছি আর মা শুটিংয়ে বেরিয়ে পড়তেন। আবার শুটিং থেকে ফিরে দেখতেন আমি ঘুমিয়ে গেছি। তখন সে আমার পাশে শুয়ে পড়তো। ঘুমের মধ্যে ঠিক টের পেতাম, মা আমাকে আদর করছে।

গ্লিটজ: হাতেখড়ি নিশ্চয়ই মায়ের কাছেই। মায়ের সঙ্গেই কি স্কুলে যেতেন?

স্বাধীন: হাতে খড়ি মায়ের হাতেই। কিন্তু মায়ের তো সময় হতো না। তবে শুটিং না থাকলে মা আমাকে যথেষ্ট সময় দিতেন।

গ্লিটজ: মায়ের কাছে বুঝি খুব বায়না করতেন?

স্বাধীন: শুটিংয়ের জন্য মাকে বিভিন্ন সময় দেশের বাইরে যেতে দেখতাম। মায়ের কাছে খুব বায়না করতাম, বলতাম মা এটা নিয়ে এসো , ওটা কিন্তু না আনলে চলবে না। একটা ইয়া বড় লিস্ট মাকে ধরিয়ে দিতাম। মা অনেক ব্যস্ততার মধ্যেও আমার জন্য শপিং করে নিয়ে আসতেন।

গ্লিটজ : তাহলে তো বলতে হয়, মাকে একেবারেই কাছে পাননি…

স্বাধীন : মাকে একদম কম সময়ই কাছে পেয়েছি। সত্যি মাকে অনেক মিস করেছি। তবে যেটুকু সময় কাছে পেয়েছি, ততটুকু সময় ছিল আমার জন্য খুব স্পেশাল।

গ্লিটজ : মায়ের কাছে বকুনি, পিটুনি খেয়েছিন কখনো? 

স্বাধীন : বকুনি, পিটুনি কে না খায় বলুন! তবে, আমার মা অনেক ভালো, আমাকে অনেক ভালোবাসে। মা-বাবা বকাবকি করে সন্তানের ভালোর জন্যই। তাই আমি কোনো অপরাধ করলে তা সঙ্গে সঙ্গে মায়ের কাছে বলে ফেলতাম, সরি বলতাম। এখনো তাই করি।

গ্লিটজ : অভিনেত্রী হিসেবে মাকে কেমন মনে হয়?

স্বাধীন : মা একজন কিংবদন্তী অভিনেত্রী। আমি তার অভিনয়ের দারুণ ভক্ত। ১৬ কোটি দর্শকের নায়িকা আমার মা। সিনেমা হলে দর্শক সারিতে বসে মায়ের অভিনয় দেখতে আমার দারুণ লাগে।

গ্লিটজ : মায়ের অভিনীত কোন চলচ্চিত্রটি আপনি প্রথম প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে দেখেছেন?
স্বাধীন : মায়ের ‘মোল্লাবাড়ির বউ’ চলচ্চিত্রটি আমি প্রথম প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে দেখি। মাও গিয়েছিলো সেই শোতে।

গ্লিটজ : আপনার পরিচালনায় আসার অনুপ্রেরণা কে?

স্বাধীন : মায়ের অভিনয়, পরিচালনায় মুগ্ধ হয়ে মূলত আমি পরিচালনায় আসার সিদ্ধান্ত নিই এবং মাকে জানাই। মা আমার সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে অদ্যবধি নিরলস সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

গ্লিটজ : মায়ের সঙ্গে কাটানো বিশেষ কোন স্মৃতি মনে পড়ছে কি?

স্বাধীন : তখন আমার বয়স ১১/১২। গাজীপুরের একটি শুটিং ইউনিট থেকে আম্মুর শুটিং দেখে ফিরছিলাম। রাত হয়ে গিয়েছিলো। পথে একটা কাঁঠাল বাগান চোখে পড়লো। গাড়ী থামিয়ে শুটিং সেটের নববধূর সাজে থাকা মাকে নিয়ে গেলাম কাঁঠাল চুরি করতে। আর বাবা থাকলো গাড়ি পাহারায়। হঠাৎ বাগান মালিকের টর্চ লাইটের ফোকাস আম্মুর দিকে পড়তেই মা আর আমি দিলাম ভো-দৌঁড়। বিষয়টি মনে পড়লে আজও হাসি পায়।

গ্লিটজ : আপনার পরিচালনায় আপনার মা নায়িকা হিসেবে অভিনয় করছেন। পরিচালক হিসেবে অভিনেত্রী মৌসুমীকে আপনি কিভাবে মূল্যায়ন করেন?

স্বাধীন : তিনি অসাধারণ একজন অভিনয়শিল্পী। তার অভিনয় দক্ষতা নিয়ে পরিচালক হিসেবে আমার নতুন করে বলার কিছু নেই। তিনি কিংবদন্তী একজন অভিনেত্রী, যেটা দেশের ১৬ কোটি জনগণ জানেন।

গ্লিটজ : মায়ের জন্য ভালোবাসা দিবসকেন্দ্রিক নয়। তবুও এদিনে মাকে ঘিরে আপনার ভাবনা, অনুভূতি কি? মাকে বিশেষ কোন বার্তা দিতে চান?

স্বাধীন : অন্য দশজন সাধারণ মায়ের মতো নন আমার মা । সে আমাকে খুব ভালো বোঝে।  মা আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু। আমার জীবনের সব গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত কিন্তু মায়ের সঙ্গে পরামর্শ করেই নিই আমি।

মাকে বিশেষ কিছু বলার নেই। তবু বলবো, অগোচরে যদি কোন ভুল করে থাকি, তুমি ক্ষমা করে দিও মা। আর তোমাকে অনেক ভালোবাসি মা।

এ জাতীয় আরও খবর

বাংলাদেশকে লিডের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন তামিম-মুশফিক-লিটন

দেশের শীর্ষ ৫ ব্যাংকের একটি হওয়ার লক্ষ্য এনসিসি ব্যাংকের

এআইইউবি রোবোটিক দলকে পৃষ্ঠপোষকতা ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের

গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

সুনামগঞ্জে পাহাড়ি ঢলে যোগাযোগ-বিচ্ছিন্ন

নাতির সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে দাদার মৃত্যু

ট্রেনের টয়লেট থেকে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার

হামলায় মাথা ফাটল ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীর

প্রেমিকার বাড়ির পাশে প্রেমিকের ক্ষত-বিক্ষত লাশ

ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে ঘুম পারান স্ত্রী, গলাটিপে হত্যা করেন পরকীয়া প্রেমিক

আকস্মিক ধুলি-ঝড়ে বিপর্যস্ত সৌদির রাজধানী রিয়াদ

রিয়াজের মাছ ধরা নিয়ে চলছে হাসিঠাট্টা