সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শত কোটি থেকে তিন লাখ কোটি টাকার বাজেট

news-image

বাংলাদেশের প্রথম বাজেট ছিল ৩১৪ কোটি টাকার, যা বর্তমানে দুই লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এবারের বাজেট হবে ৪২তম বাজেট। ধারণা করা হচ্ছে, এবার অর্থমন্ত্রী যে বাজেট ঘোষণা করবেন; তার আকার সম্ভবত ২ লাখ ৯২ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। এরই মধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি নির্ধারণ করা হতে পারে ৯২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহা-জোট সরকারের ৬ষ্ঠ বাজেট সংসদে পেশ করতে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত ৪০ অর্থবছরে ঘোষিত ৪১ টি বাজেটের মধ্যে ২৯টি বাজেট দেন নির্বাচিত সরকারের অর্থমন্ত্রীরা। বাকি ১২টির ৯টি সামরিক সরকার ও ৩টি তত্ত্বাবধায়ক সরকার ঘোষণা করে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রথম বাজেট হয়েছিল ১৯৯৬ সালে। সে সময় বাজেট ঘোষণা করেন তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ। তিনি তিন মাসের ব্যয়ের অনুমোদন নিয়ে কেবল বাজেটের অঙ্ক প্রকাশ করেছিলেন। পরে নির্বাচনে বিজয়ী আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া সংসদে পূর্ণাঙ্গ বাজেট দেন। ওই বাজেট ছিল ২৪ হাজার ৬০৩ কোটি টাকার। এর মধ্যে রাজস্ব খাতে ছিল ১৭ হাজার ১২০ কোটি টাকা এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি খাতে ১২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা।

২০০৮ সালের ৯ জুন অর্থ ও পরিকল্পনা উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলামের দ্বিতীয় বাজেটের আকার ছিল ৯৯ হাজার ৯৬২ কোটি টাকার। বাজেটের পর দেশবাসীর জন্য চিঠি ও ই-মেইলের মাধ্যমে তাদের মতামত দেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছিল। তবে সংসদীয় ব্যবস্থায় জনগণের জন্য সে সুযোগ থাকে না।
নতুন অর্থবছর (২০১৫-১৬) বাজেটে জিডিপি ৭ দশমিক ৫ শতাংশ নির্ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে। এনবিআরের মাধ্যমে আয় ধরার পরিকল্পণা রয়েছে এক লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা। এদিকে ঘাটতি আকার হতে পারে ৭৭ হাজার ৬৭০ কোটি টাকা। এরমধ্যে ৩৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হবে সুদ পরিশোধ করতেই।

চলতি অর্থবছর (২০১৪-১৫) বাজেটের আকার ছিল ২ লাখ ৫০ হাজার ৫০৬ কোটি টাকা। এ বছর অনুন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৭০ হাজার ১৯১ কোটি টাকা এবং উন্নয়ন ব্যয় ৮৬ হাজার ৩৪৫ কোটি টাকা। পরে তা কমিয়ে প্রায় ২ লাখ ৩৮ হাজার কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বাজেটে বিদেশি অনুদাসহ মোট রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৮৯ হাজার ১৬০ কোটি টাকা, যা জিডিপি’র ১৩ দশমিক ৭ শতাংশ। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সূত্রে আয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৪৯ হাজার ৭২০ কোটি টাকা, যা জিডিপি’র ১১ দশমিক ২ শতাংশ। এছাড়া, এনবি আর বহির্ভূত সূত্র থেকে কর রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৫৭২ কোটি টাকা, যা জিডিপির ০.৪ শতাংশ। কর বহির্ভূত খাত থেকে রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ২৭ হাজার ৬৬২ কোটি টাকা, যা জিডিপির ২ দশমিক ১ শতাংশ।

বাজেটে অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ৩ শতাংশ প্রাক্কলন করা হয়েছে। বাজেটে সার্বিক বাজেট ঘাটতি ৬৭ হাজার ৫৫২ কোটি টাকা দেখানো হয়েছে, যা জিডিপির ৫ শতাংশ। এ ঘাটতি অর্থায়নে বৈদেশিক সূত্র থেকে ২৪ হাজার ২৭৫ কোটি টাকা, জিডিপির ১ দশমিক ৮ শতাংশ এবং অভ্যন্তরীণ সূত্র থেকে ৪৩ হাজার ২৭৭ কোটি টাকা সংস্থানের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে, যা জিডিপির ৩ দশমিক ২ শতাংশ।

অভ্যন্তরীণ উৎসের মধ্যে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে ৩১ হাজার ২২১ কোটি এবং সঞ্চয়পত্র ও ব্যাংক বহির্ভূত খাত থেকে ১২ হাজার ৫৬ কোটি টাকা সংগ্রহের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

২০০৯-১০ অর্থবছরে ১ লাখ ১৩ হাজার ৮১৯ কোটি টাকার বাজেট দেয়া হয়। সে বছর অনুন্নয়ন ব্যয় ধরা হয় ৮২ হাজার ১৮০ কোটি টাকা আর উন্নয়ন ব্যয় ৩০ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এখান থেকে ২ হাজার কোটি টাকা কমিয়ে ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। ২০০৮-০৯ অর্থবছরের বাজেট ৯৯ হাজার ৯৬২ কোটি টাকার। এ অর্থবছর বাজেটে উন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ২৭ হাজার ৩৭৮ কোটি টাকা। আর অনুন্নয়ন ব্যয় ছিল ৭২ হাজার ৫৮৫ কোটি টাকা। এর আগের অর্থবছরের (২০০৭-০৮) বাজেট ছিল ৮৭ হাজার ১৩৭ কোটি টাকার।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালের ৩০ জুন তৎকালীন সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ একসঙ্গে প্রথম ও দ্বিতীয় বাজেটটি ঘোষণা করেন। দ্বিতীয় বাজেটে নতুন করারোপ ছাড়াই তিনি ৭৮৬ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেছিলেন। এর মধ্যে রাজস্ব খাতে ২১৮ কোটি টাকা ও বার্ষিক উন্নয়ন খাতে ৫০১ কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল। তখনো দেশের সংবিধান প্রণয়নের কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় সংসদের বাইরে রেডিও-টেলিভিশনের মাধ্যমে জাতির সামনে সে বাজেট পেশ করা হয়।

তাজউদ্দীন আহমদ সে সময় ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর থেকে ৭২ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত অর্ধেক বছরের জন্য ৩১৪ কোটি টাকার সংশোধিত বাজেট ঘোষণা করেন। এটাকেই দেশের প্রথম বাজেট হিসেবে অভিহিত করা হয়। পরে তিনি ৭৩-৭৪ অর্থবছরের জন্য ৯৯৫ কোটি টাকা ও ৭৪-৭৫ অর্থবছরের জন্য ১ হাজার ৮৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করেছিলেন।

 

এ জাতীয় আরও খবর

দুদকের মামলা স্থগিতে বদির আবেদন খারিজ

সকালে তীব্র, দুপুরে সহনীয় যানজট

অর্থ আত্মসাৎ: নর্থ সাউথের চার ট্রাস্টিকে গ্রেফতারের নির্দেশ

‘মুজিব’ সিনেমার ট্রেলার দেখে সবাই কেন হতাশ তার কারণ পাচ্ছেনা পরিচালক

হয়রানির শিকার বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা

অ্যান্থনি নরম্যান আলবানিজকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

উত্তরায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আজ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু

কাশিমপুর কারাগারে নারী হাজতির মৃত্যু

সিঙ্গাপুরের হেড কোচ হলেন সালমান বাট

ধানুশের আসল বাবা-মা নাকি তারাই! মানতে নারাজ অভিনেতা

পাকিস্তানি নারীর ‘প্রেমের ফাঁদে’ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার, ভারতীয় সেনা গ্রেপ্তার