বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিটিআরসির ৩টি নির্দেশের একটিও মানেনি বাংলালিংক!

Banglalink_BTRC_0প্রযুক্তি ডেস্ক : বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন- বিটিআরসি'র নির্ধারিত সময়ে প্রশাসনিক জরিমানা পরিশোধ করেনি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইলফোন অপারেটর বাংলালিংক। ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহকদের অর্থ ফেরৎ দেবার উদ্যোগও নেয়নি অপারেটরটি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি ১ মাস সময় দিয়ে বিটিআরসি নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠায় । গত ৮ মাস এক মান পূর্ণ জবার পর এ বিষয়ে বিটিআরসি ও বাংলালিংকের কাছে তথ্য চাইলে জানা যায়, বিটিআরসি'র তিনটি আদেশের কোনোটিই মান্য করেনি বাংলালিংক।

চিঠিতে টেলিকম আইন অমান্যের ন্যুনতম শাস্তি হিসাবে প্রশাসনিক জরিমানা বাবদ ১০ লাখ টাকা ১ মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে বলা হয়। একই চিঠিতে গ্রাহকের টাকা ফেরৎ দেবার সাথে সাথে তা বিটিআরসিকে প্রতি সপ্তাহে কম্পলায়েন্স রিপোর্ট জমা দেবার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

প্রশাসনিক আদেশ অমান্যের জন্য টেলিকম আইন ২০০১ (২০১০ সালে সংশোধীত) অনুযায়ী টেলিকম আইনের অনুসারে ১০০ কোটি টাকা জরিমানা হওয়ার কথা। এবং ১০০০ কােটি টাকা পরিশোধের জন্য দেয়া সময়ের মধ্যে তা পরিশোধে ব্যর্থ হলে তিন শত কোটি টাকা জরিমানা হওয়ার কথা।

বিটিআরসির ৮ ফেব্রুয়ারি লেখা চিঠি অনুসারে, বাংলালিংক 'ডেউলি ট্যারিফ প্ল্যান' নামে তারা ২০১১ সালে একটি প্রমোশনাল সার্ভিস প্রদান করে । ওই সার্ভিসের জন্য বিটিআরসি'র অনুমোদন নেয়া হয়নি। বিটিআরসির কমিশন সভার সিদ্ধান্ত অনুসারে, ট্যারিফ ডিরেকটিভস ও টেলিকম আইন লঙ্ঘনের জন্য ১০ লাখ টাকার প্রশাসনিক জরিমানা পরিশোধের জন্য এক মাসের সময় পায় বাংলালিংক।

তবে এ সময়ের মধ্যে গ্রাহকের টাকা ফেরৎ দেবার জণ্য গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, অপারেটরটির ওয়েবসাইটে ক্ষতিগ্রস্থদের অর্থ ফেরৎ দেবার ঘোষনার কোনোটিই আসেনি বলে বাংলালিক অফিসিয়াল নিশ্চিত করেছেন। ৮ ফেব্রুয়ারি বিটিআরসির সিস্টেমস অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগের পরিচালক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ জুলফিকার স্বাক্ষরিত চিঠিটি বাংলালিংক সিইও বরাবর পাঠানো হয়েছে।

ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহকদের মধ্যে একটিভ গ্রাহকদের তাদের টাকা ১ মাসের মধ্যে গ্রাহকদের টক টাইম রিফিলকেরে ফেরৎ দিতে হবে। তবে চার্ন গ্রাহকদের টাকা ফেরৎ দিতে হবে ২ মাসের মধ্যে। তাদের টাকা রিফিলের পাশাপাশি অন্য কোনো উপায়ে ফেরত প্রদান কার্যকরের কথাবলা হয়েছে। অন্য কোনো উপায়ের কোনো ব্যাখ্যা চিঠিতে উল্লেখ করা হয়নি।

চিঠিতে বলা হয়েছে, গ্রাহকদের টাকা ফেরৎ দেবার বিষয়টি সুনির্দিষ্টভাবে সম্পন্ন করার জন্য জাতীয় দৈনিক সংবাদপত্রসহ অন্যান্য সাধ্যম এবং অপারেটরটির ওয়েসবসাইটে বিজ্ঞপ্তি এবং বিজ্ঞাপন আকারে বহুল প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এ জন্য প্রতিটি সিম ঘোষনা দিয়ে গ্রাহকদের টাকা বুঝিয়ে দিতে হবে।

একটিভ ও চার্ন গ্রাহকদের টাকা প্রদানের বিষয়ে বিটিআরসিকে বাংলালিংক প্রতি সপ্তাহে কমিশনকে কম্পলায়েন্স রিপোর্ট দিয়ে রাখতে হবে। বিটিআরসির নির্দেশনা অনুসারে একটিভ গ্রাহকদের ডেইলি ফ্লাট ট্যারিফ প্রমোশনাল প্যাকেজ থেকে সাবক্রিপশফি বাবদ অতিরিক্ত আদায় করা ৫ কোটি ৯৮ লাখ ৪৩ হাজার ৯৩২ টাকা এবং চার্ন গ্রাহকদের কাছ থেকে অবৈধভাবে গ্রহণ করা ৩ কোটি ৩৬ লাখ হাজার ৪৯৬ টাকা ফেরৎ দিতে হবে ।

এ ব্যাপারে জানতে বিটিআরসির সচিব মো. সারওয়ার আলমের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি  বলেন, আমি ট্রেনিংয়ে আছি বলে কিছু বলতে পারছি না। তিনি বিটিআরসির সহকারী পরিচালক (মিডিয়া উইং) জাকির হোসেন খানের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। তাঁর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানাবেন বলে জানান। তবে কয়েকদিন পার হলেও এ ব্যাপারে আর কোন রিপ্লাই দেননি।

এ জাতীয় আরও খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোরবানীর হাটে জন্য প্রস্তুত খামারিরা,শেষ সময়ে পরিচর্যায় ব্যস্ত

নতুন নোট বাজারে আসছে বুধবার

শিগগিরই ৫-১২ বছরের শিশুদের করোনার টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

এক দিনে রেকর্ড ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

বিষাক্ত হলুদ ধোঁয়ায় ঢেকে গেল জাহাজ! মুহূর্তে ১২ জনের মৃত্যু

বিয়ের আসরে কনের পা ছুয়ে প্রণাম বরের!

বিশ্বের সব স্বৈরাচারকে টেক্কা দিয়েছে আওয়ামী সরকার : ফখরুল

আসছে ‘ডিজিজ এক্স’! অজানা রোগের মহামারীর শঙ্কা বিজ্ঞানীদের

রেসলিংয়ের মঞ্চে আরব নারী!

শ্রীলঙ্কায় এবার পেট্রল বিক্রি বন্ধ

পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার বেরিয়ারে বাসের ধাক্কা

গাড়ি আমদানিতে চট্টগ্রাম বন্দরকে পেছনে ফেলল মোংলা‍