সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শেখ রাসেলকে হারিয়ে ফাইনালে শেখ জামাল

65991_22222ক্রীড়া ডেস্ক : ফেডারেশন কাপ ফুটবলে ফাইনালের টিকিট পেয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। পুরো ৯০ মিনিটের পারফরম্যান্সে জয়টা প্রাপ্য ছিল শেখ রাসেলেরই। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলেছে অল ব্লুজরা। কিন্তু ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে শেখ জামাল। আগামী ৫ই মার্চ ফাইনালে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বিজয়ী দলের মুখোমুখি হবে তারা। আজ দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মোহামেডানের মুখোমুখি হবে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্র।
এগিয়ে যাবার সুযোগটা প্রথমে এসেছিল জামাল শিবিরেরই। ২০ মিনিটে ডানপ্রান্ত থেকে কর্ণার করেন মামুনুল ইসলাম। কিন্তু ছোট বক্সে বল পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড ডার্লিংটন। ২৬ মিনিটে রাসেলের ডিফেন্ডারদের ভুলে বক্সের মধ্যে বল পেয়েছিলেন শেখ জামালের খেলোয়াড়রা। কিন্তু এবারও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ৩০ মিনিটে হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড লিওনেল সেইন্ট প্রিয়াক্সের  ক্রস থেকে বল পেয়ে হেড নিয়েছিলেন তারই স্বদেশী ফরোয়ার্ড ওয়েডসন এনসেলমি। কিন্তু বল জালে জড়ায়নি। ৩৫ মিনিটে বক্সের খুব কাছেই বা প্রান্তে প্রিয়াক্সকে ফাউল করেন রাসেলের ডিফেন্ডার তপু বর্মন। কিন্তু প্রিয়াক্সের ফ্রি কিক ফাটল ধরাতে পারেনি রাসেলের জমাট রক্ষণে। ৩৯ মিনিটে রাসেলের নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড কিংসলে চিগোজিকে নিজেদের বক্সে ফাউল করে বিপদ ডেকে আনেন জামালের ডিফেন্ডার ইয়ামিন মুন্না। রেফারি তৈয়ব পেনাল্টির নির্দেশ দেন। জাহিদ হাসান  এমিলির তীক্ষ্ণ শট জাল খুঁজে পেয়েছে সহজেই (১-০)। প্রথমার্ধের অন্তিম মুহূর্তে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগটা অল্পের জন্য হাত ছাড়া হয় শেখ রাসেলের। প্রায় মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে জামালের বক্সে ঢুকে জোরালো শট করেছিলেন কিংসলে চিগোজি । কিন্তু তার শট ডান পোস্টে লেগে মাঠের বাইরে চলে যায়। প্রথমার্ধে আর কোন গোল হয়নি ।  দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকেই জামালের বক্সে বল নিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন কিংসলে চিগোজি। তিনি শট নিতে গেলে আগুয়ান গোলরক্ষক বক্স ছেড়ে বাইরে এসে বল ধরেন। যদিও শেখ রাসেলের কোচ লাল কার্ড আশা করেছিলেন। কিন্তু রেফারি তৈয়ব হাসান জামালের গোলরক্ষককে হলুদ কার্ড দেখান। ফলে শেখ রাসেলের কোচ রেফারির সিদ্ধান্ত মেনে না নিতে পেরে  তার শিষ্যদের  মাঠ ছেড়ে চলে আসতে বলেন। প্রায় ৫ মিনিট খেলা বন্ধ থাকার পর ক্লাব কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে আবারো মাঠে নামেন মিঠুন-এমিলিরা। ৬০ মিনিটে সমতায় ফেরে জামাল। বল নিয়ে রাসেলের বক্সে ঢুকে ৪ ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন দলীয় অধিনায়ক নাসির উদ্দিন চৌধুরী (১-১)। এর পরের ২০ মিনিটে বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে জামাল-রাসেল উভয় শিবিরেরই। তবে ম্যাচের প্রায় শেষ দিকে এসে এগিয়ে যায় শেখ জামাল। ৮৯ মিনিটে বা প্রান্ত থেকে ওয়েডসনের উঁচু ক্রসে দর্শনীয় হেডে লক্ষ্যভেদ করেন নাইজেরিয়ান এমেকা ডার্লিংটন (২-১)। রেফারি শেষ বাঁশি বাজালে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ফেডারেশন কাপের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।