মঙ্গলবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সপ্তাহব্যাপী বই মেলার উদ্বোধনকালে মোকতাদির চৌধুরী এমপি

Brahmanbaria Pic-03নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধান মন্ত্রীর সাবেক একান্ত সচিব, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি বলেছেন, সন্ত্রাস, নাশকতা, পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করা একুশের চেতনার পরিপন্থী। তিনি বলেন, মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আমাদের আত্মপরিচয়ের দিন। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী সালাম,রফিক, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা কৃতি সন্তানেরা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে আমাদের ভাষার অধিকারকে প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। তিনি বলেন,  ১৯৪৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী পাকিস্তান পার্লামেন্টে সর্বপ্রথম বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি তুলে ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কৃতি সন্তান শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। তিনি গত শনিবার সন্ধ্যায় মহান শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী বই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
স্থানীয় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে জেলা প্রশাসক ডঃ মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এম.পি আরো বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকেই আমাদের স্বাধীনতার আন্দোলনের সূচনা হয় আর এর নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, পৃথিবীর মধ্যে একমাত্র দেশ বাংলাদেশ যে দেশ রক্ত দিয়ে মায়ের ভাষার অধিকারকে প্রতিষ্ঠা করেছিল। এবং পৃথিবীর মধ্যে বাংলা ভাষাভাষীদের একমাত্র স্বাধীন দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ।
তিনি বলেন, বাঙ্গালী জাতি একদিন জীবন দিয়ে মাতৃ ভাষা আদায় করেছিল। বাংলা ভাষায় কথা বলার অধিকার অর্জন করেছিল। এই বাংলা ভাষা এখন আন্তর্জাতিক মাতৃ ভাষার স্বীকৃতি লাভ করেছে। তিনি বলেন, আমরা বাংলা ভাষাকে শক্তিশালী করতে চাই, মজবুত করতে চাই। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে বাংলা ভাষায় বক্তব্য দিয়ে বাংলা ভাষাকে বিশ্বময় সমাদৃত করেছিলেন। তিনি বলেন, আমরা দেশটাকে সমৃদ্ধ উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারে থাকলে দেশটা এগিয়ে যায়, অন্যরা ক্ষমতায় থাকলে দেশ পিছিয়ে যায়। তিনি বলেন, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই বিএনপি-জামাত জোট হরতাল-অবরোধের নামে দেশে নাশকতা করছে। তাদের হরতাল-অবরোধ জনগন প্রত্যাখ্যান করায় পেট্্েরাল বোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে মারছে। তিনি বলেন, বিএনপি হচ্ছে জামাত ও হেফাজতের বি টিম। যারা বোমা মারে তারা হচ্ছে ইয়াহিয়ার বংশধর। তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশকে আইএস’র ঘাটি হতে দিতে পারিনা।
মোকতাদির চৌধুরী এম.পি বলেন, বই মেলা হলে মানুষের বই কেনা ও পড়ার আগ্রহ বাড়ে। তিনি বলেন জ্ঞানভিত্তিক একটি সমাজ গড়তে হলে বই পড়তে হবে। বই পড়তে হলে বই মেলার কোন বিকল্প নেই।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ প্রশাসক অ্যাডভোকেট সৈয়দ এমদাদুল বারী,পুলিশ সুপার মোঃ মনিরুজ্জামান পিপিএম. পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার। বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন, প্রেসক্লাব সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রেজা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ হারুন অর রশীদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মুখলেছুর রহমান খাঁন।
মেলায় বিভিন্ন বই নিয়ে ২০টি স্টল স্থান পায়। প্রথম দিনে মেলায় ছিল ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভীড়।